ঢাকা, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৪ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

বাংলাদেশে পিয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত

মানবজমিন ডেস্ক

(১ মাস আগে) ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৮:৪৫ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন

mzamin

অভ্যন্তরীণ বাজারে দরপতনের ফলে আবারও পিয়াজ রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। গত ৮ই ডিসেম্বর পিয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছিল দেশটি। ওই সিদ্ধান্তের কারণে দেশটির পিয়াজের ওপরে নির্ভরশীল দেশগুলোতে পিয়াজের বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়। অবশেষে প্রায় আড়াই মাসের মাথায় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশসহ আরও মোট পাঁচ দেশে পিয়াজ রপ্তানি শুরু করবে দেশটি। এগুলো হচ্ছে, নেপাল, ভুটান, বাহরাইন ও মরিশাস। ফলে বাংলাদেশে ভারত থেকে সীমিত পরিমাণে পিয়াজ আমদানির আশা করা হচ্ছে। 

এর আগে টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানানো হয়, রোববার ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভাপতিত্বে এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। অভ্যন্তরীণ বাজার নিয়ন্ত্রণে ২০২৩ সালে বারবার নানা পদক্ষেপ নিয়েছিল ভারত। ২৮শে অক্টোবর পিয়াজ টনপ্রতি রপ্তানিতে দাম ৮০০ ডলার বেঁধে দেয় দেশটি। তাতেও কাজ না হওয়ায় ৮ই ডিসেম্বর দেশটি ঘোষণা দেয়, ২০২৪ সালের ৩১শে মার্চ পর্যন্ত পিয়াজ রপ্তানি বন্ধ থাকবে।

বিজ্ঞাপন
ওই সিদ্ধান্তের পর পণ্যটির দাম তিন ভাগের এক ভাগ হয়ে যায় দেশটিতে। দামের এই পতনে চাষিরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। 

এরই প্রেক্ষিতে টানা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিল ভারতের চাষিরা। তাদের চাপে শেষমেশ পিয়াজের ওপর থেকে রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো দেশটির সরকার। শিগগিরই এ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি আকারে ঘোষণা আসছে। উল্লেখ্য যে, ভারত রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দিলে পরের দিনই বাংলাদেশের বাজারে পিয়াজের দাম কেজিতে ২০০ টাকা ছাড়িয়ে যায়। বর্তমানেও উচ্চদামে বিক্রি হচ্ছে পণ্যটি।

পাঠকের মতামত

বাংলাদেশে পিয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত, এখন প্রশ্ন হলো কেন এই নিষেধাজ্ঞা ?" ভারত তো আমাদের কলিজার টুকরার মত বন্ধু রাষ্ট্র,কেন এই আচরণ??? ভারত অনেক কিছু পেয়েছি যা ভাবেন কোন দিন, আমার কথা না, রাষ্ট্রপ্রধানের কথা, ভারতের এই আচরনের কারণে বাংলাদেশের মানুষ ভারতকে আর বিশ্বাস করতে চায়না, ভারত আমাদেরকে পিছনের দিকে চাকু চালিতেছে.

দৃষ্টি
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, মঙ্গলবার, ৩:০৬ পূর্বাহ্ন

গোলামীর শিকল ভেঙ্গে ফেলি দেশীয় পন্যে বাংলাদেশ গড়ি Boycott Indian products and save Bangladesh economy

বন্ধু খান
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, মঙ্গলবার, ১:২৮ পূর্বাহ্ন

No Need onion import, This import now harm our farmer.

Forhad
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ১০:২০ অপরাহ্ন

নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখা হউক । শুধু পিঁয়াজ নয় সব ধরনের পণ্যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হউক । নচেৎ এই ঘুমন্ত জাতি জেগে উঠবে না ।

zakiul Islam
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৯:২৪ অপরাহ্ন

আমাদের দেশের পেঁয়াজের মান যথেষ্ট ভালো বর্তমানে পর্যাপ্ত পরিমাণ পেঁয়াজ দেশে আছে । এ অবস্থায় ভারতীয় পেয়াজ আমদানি আমদানি না করা সমচীন হবে মনে করি।

সজীব
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৫:১৮ অপরাহ্ন

শুধু বাংলাদেশে রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়নি বরং ভারত তার ব্যবসায়িক স্বার্থে বাংলাদেশ সহ শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান, মৌরিশাস, বাহরাইন ইত্যাদি দেশে রপ্তানি শুরু করছে।

আব্দুল জব্বার
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ১০:০২ পূর্বাহ্ন

তবে আমার মনে হয়, অন্যান্য দেশ থেকেও আমদানী করা উচিত।

pro
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৯:৪৫ পূর্বাহ্ন

দাদাবাবুদের দয়ার তুলনা হয় না।

Mahmud Jahan
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৯:০৬ পূর্বাহ্ন

We still will not buy Indian products.

Subol Biswas
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ৯:০০ পূর্বাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

‌‌‘‌আমাদের আকাশসীমা ব্যবহার করে ইরানে হামলা নয়’‌/ আমেরিকাকে সতর্ক করলো উপসাগরীয় দেশগুলো

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status