ঢাকা, ২৬ জুন ২০২২, রবিবার, ১২ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

অর্থ-বাণিজ্য

ঢাকার বাড়িওয়ালারা সবাই কালো টাকার মালিক: অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার

(১ সপ্তাহ আগে) ১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:২৯ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩১ পূর্বাহ্ন

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ঢাকা শহরে যেসব ব্যক্তির জায়গা-জমি বা ফ্ল্যাট আছে, তারা সবাই ‘কালো টাকার মালিক’। বলেন, ঢাকা শহরে যার জায়গা আছে কিংবা যে ব্যক্তি জায়গা কিনেছেন তিনিই শুধু বলতে পারবেন, কত টাকায় রেজিস্ট্রি হয়েছে এবং জায়গার প্রকৃত বাজার দর কত। এজন্য সরকার দায়ী, আমাদের সিস্টেম দায়ী।

বুধবার অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সরকারি অর্থনৈতিক ও ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়ালি বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পাচার করা টাকা যখন দেশে ফেরত আসবে, আমরা মনে করি তখন সেটার একটি অংশ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ হবে। বিভিন্ন শিল্প-কারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্যে বিনিয়োগ হবে। এ প্রত্যাশায় আমরা সেদিকে নজর দিচ্ছি।

পাচার করা টাকা দেশে ফিরিয়ে আনার পদক্ষেপ বিষয়ে কোনো চাপে আছেন কি না- জানতে চাইলে মুস্তফা কামাল বলেন, আমি কোনোভাবে চাপে নেই। আমি যা বলেছি তা আমি করবো। আমি অর্ধেক রাস্তা থেকে ফিরে আসি না। আমি যখন রেমিট্যান্সের ওপর প্রণোদনা দিয়েছি তখন অনেক সমালোচনা ছিল। বলা হয়েছিল টাকা আসবে না, কিছু হবে না, টাকা পাচার হবে। কিন্তু এসেছে, শুধু আসেইনি ঐতিহাসিক রেকর্ডও হয়েছে।

কালো টাকা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ঢাকায় যাদের জায়গা-জমি বা ফ্ল্যাট আছে তারা সবাই কালো টাকার মালিক।

বিজ্ঞাপন
এজন্য সরকার দায়ী, আমাদের সিস্টেম দায়ী। গুলশান এলাকায় কেনা কোনো জমির যে দাম দেখিয়ে রেজিস্ট্রি করা হয় জমির প্রকৃত দাম তারচেয়েও বেশি। কিন্তু বেশি দামে তো রেজিস্ট্রি করতে পারবেন না। প্রত্যেকটা মৌজার জন্য দাম ঠিক করে দেয়া আছে, এর বেশি দামে রেজিস্ট্রি করা যাবে না। সুতরাং যেটি পারা যাবে না, কালো টাকা তো সেখানেই হয়ে আছে। কে কালো টাকার বাইরে আছে?

তিনি বলেন, কিন্তু যখন বিদেশে পাচার হওয়া কালো টাকা দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করি তখন বলা হচ্ছে, সরকার নাকি কালো টাকাকে সাদা করার প্রশ্রয় দিচ্ছে। আমি বারবার বলি অপ্রদর্শিত টাকা। এখানে লাজ-লজ্জার কিছু নাই। সরকার এজন্য দায়ী। আমিও একসময় দায়িত্বে ছিলাম। ঢাকা শহরে জমির দাম বাড়ানো যায় কি না সেটা নিয়ে চিন্তা করলেও শেষ পর্যন্ত দাম বাড়াতে পারিনি। যে দাম ছিল সে দামই আছে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বাস্তবতা হচ্ছে, যে ফ্ল্যাট দুই কোটি টাকায় রেজিস্ট্রি হচ্ছে সেই ফ্ল্যাটের প্রকৃত দাম ১০ কোটি টাকা। ফলে সরকার বাড়তি রেজিস্ট্রেশন ফি পাচ্ছে না। এখানেই কালো টাকার উত্থান হচ্ছে। এ বিষয়গুলো সবাইকে বুঝতে হবে। ঢাকা শহরে যার জায়গা আছে কিংবা যে ব্যক্তি জায়গা কিনেছেন তিনিই শুধু বলতে পারবেন, কত টাকায় রেজিস্ট্রি হয়েছে এবং জায়গার প্রকৃত বাজার দর কত।

কালো টাকা ফেরত আনা নিয়ে বিভিন্ন মহলের সমালোচনার জবাবে মন্ত্রী বলেন, বাস্তবতার সঙ্গে মিল রেখে আমরা কোনো আলাপ-আলোচনা করলে সেটি বস্তুনিষ্ঠ হয়।

পাঠকের মতামত

kalo taka , kalo bari , kalo land ....all black ... black money black house black land .....!!!!!!

Manik
১৬ জুন ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১:১৫ পূর্বাহ্ন

ঢাকার বাড়িওয়ালারা সবাই কালো টাকার মালিক এটা সঠিক না। উনি সবাইকে নিজেদের মতো মনে করেছেন। বহু বাড়িওয়ালা আছেন যারা তাদের সারা জীবনের সঞ্চয় জমা করে, অনেক প্রবাসী ২০/৩০ বছর কষ্ট মেহনত করে একটা বাড়ির মালিক হয়েছেন, ফ্ল্যাটের মালিক হয়েছেন। সবাইকে নিজেদের মতো অবৈধ উপার্জনকারী মনে করা ঠিক না।

salim khan
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ১০:৪৩ অপরাহ্ন

And finance minister is the only owner of white money

kalam
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ১০:০০ অপরাহ্ন

Money of Begum para and money for purchasing flat or land are not same. Think how much tax you are collecting and what facility you are giving to the people in return. Don't mixup with the money of Gush/Chandabaji with the money people are depositing from their salary.

mamun
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৭:২৮ অপরাহ্ন

If you think you have black money,don't think every body is same ,what a shame ! You should be more responsible while talking because you are not a ordinary person ,you are finance minister ...

Nannu chowhan
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৫:৩৬ অপরাহ্ন

Right. Most of house owners r governments job holder,politician ,muscleman . Honestly its impossible to buy a home in Dhaka.

Azad
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

দয়া করে সবাইকে নিজের মত ভাববেন না

Faisal
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৭:৪০ পূর্বাহ্ন

I am not agreed.

Md. Kabir Khan
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:৪৭ পূর্বাহ্ন

অর্থমন্ত্রী 100% সফল। উনার কথা ১০০% সঠিক।

Emon
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:৪১ পূর্বাহ্ন

He is 100% right because he is one of them.

Fateh Ali
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:২২ পূর্বাহ্ন

How do you know? You must have also built your house in Dhaka with illegal money. That's how you know. The comment applies to your colleagues as well.

Nam Nai
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:২১ পূর্বাহ্ন

৯৫% সত্য কথা বলেছেন মন্ত্রী স্যার

MD. ABDUL BAREK
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:০২ পূর্বাহ্ন

95% সত্য 5% জেনুইন আছে। সেই ১৯৭৮ সালে জায়গা কিনেছে বাবা ২০০৬ সালে এসে ছোট্ট একটা বাড়ি করেছি ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট এ ,বলতে পারবো সৎ পয়সায় করা তবে নিজে নয় ডেভেলাপার দিয়ে।

Jewel
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৫:৩৯ পূর্বাহ্ন

He has a High-rise at Nikunjo, 'Lotus Tower'. বাজেটের প্রকৃতি দেখে সরকার চেনা যায়। কথা দিয়ে মানুষকে বিচার করা যায়। ঢাকা শহরে অসংখ্য মানুষ আছে সারা জীবনের তিল তিল সঞ্চয় দিয়ে একটা ফ্ল্যাট কিনেছে। ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ভাঙতে পারে না, চোখের সামনে দিয়ে টাকা বনে গেলো ডলার, সেই ডলার চলে গেলো বিদেশে ঠেকানো গেলোনা। অনেক চেনা মুখ আছে বেগম পাড়ায় বউ-বাচ্চারা বসবাস করে তিনি দেশে থেকে টাকা পাচার করেন এসব তো দেখাই যায়। বেগম পাড়ার প্রাসাদে যাদের পরিবার থাকে তাদের অর্থের উৎস কি? এদের ধরা হচ্ছেনা কেনো? আমলা কামলা রাজনীতিক বলে? আহা! উপরের দিকে থুথু নিক্ষেপ করলে তো নিজের গায়েই পড়বে।

আবুল কাসেম
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৫:১৪ পূর্বাহ্ন

কালো টাকা উপার্জন কি বৈধ...? যদি কালো টাকা অবৈধ হয়, তাহলে দেশে অবস্থানকারী অবৈধ টাকার মালিকদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নিয়েছেন ? না কি, আপনারা অবৈধ টাকা উপার্জনকারীদের রক্ষক ও অংশীদার, দয়াকরে জাতিকে জানাবেন। না হয় এই ধরনের ফালতু কথা বলে জাতিকে হেয় করবেন না।

MD Emdadul Hoque
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৫:১১ পূর্বাহ্ন

এইরকম সত্য সবাই বলতে পারে না। ধন্যবাদ আপনাকে। যাদের বাড়ি-গাড়ি সম্পত্তি আছে তাদের ট্যাক্স এ ভিন্নতা আনুন।

WOW
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৪:৫৩ পূর্বাহ্ন

আপনি যদি সত্য বলেন, তাহলে ৯৯.৯৯% সরকারি চাকুরিজিবিরাই সকল জমি ও বাড়ির মালিক।

Rahman Moin
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৪:২৮ পূর্বাহ্ন

সারা চাকুরী জীবনে তিল তিল করে জমানো সঞ্চয় দিয়ে এঁদো গলিতে এক ফালি জমি কিনেছিলাম। কিসমত ভাল যে জীবন সায়াহ্নে এক জন ব্যবসায়ী পুঁজি খাটিয়ে ক'টা ফ্লাাট দিলেন। সরকারি ধার্য্য করা টেস্ক দেই। ভাড়া থেকে প্রাপ্ত অর্থ অবসরের সম্বল। ফাঁকা থাকলে ছুলায় বিড়াল ঘুমাবার মত অবস্থা। অর্থের রাজা বলছেন "সব কালো টাকার মালিক"। জয় রাজা মশাইয়ের জয়!-রশি ধরি দিল টান ..........................।

মোহাম্মদ হারুন আল রশ
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৩:৪০ পূর্বাহ্ন

আমরা জানি ঢাকার গুলশান, বনানীতে এই মন্ত্রী মশাই এর বাড়ি আছে, তাহলে উনিও কালো টাকার মালিক ?? একজন দায়িত্বশীল মন্ত্রীর এই ধরনের কথা বেমানান। ঢাকা শহরে বেশির ভাগ জায়গার মালিক ডেভলপার দিয়ে বাড়ি বানানো, তারা কিভাবে কালো টাকার মালিক হলেন ?? কেউ আছে বাবা, দাদারা স্বাধীনতার পূর্বে জায়গা কেনা ছিল, এখন তাদের সন্তানেরা ব্যাংক লোন নিয়ে বহুতল বাড়ি নির্মাণ করেছেন। তারাও কি কালো টাকার মালিক ?? সব পাগলের প্রলাপ।

Ahmud
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ৩:২৭ পূর্বাহ্ন

সারাদেশের ফ্লাট ও বাড়ীর মালিক দের তথ্য নিলে ৮০% সরকারী চাকুরী জীবি পাওয়া যাবে।

Raju
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:৫৬ পূর্বাহ্ন

আমার বাড়ি নাই ভাই বাইচা গেছি আমি কালো টাকার মালিক না। অর্থমন্ত্রী গুলো কি এভাবেই মাথা খারাপের মতো কথাবলে নাকি আওয়ামীলীগ এমন লোকদের নিয়োগ দিয়ে থাকে

obak
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:৪২ পূর্বাহ্ন

মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়কে জিজ্ঞেস করুন উনার গুলশানের বাড়ি কত দামে কিনেছিল আর রেজিষ্ট্রি হয়েছিল কত দামে।

আঃ সাত্তার
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:১৬ পূর্বাহ্ন

শুদ্ধি অভিযান চালান। সরকারি চাকরি জীবিদের বেতনে ঢাকায় বাড়িওয়ালা হওয়া মোটেই সম্ভব নয় । তথাপি কেউ কেউ তিন চারটা বাড়ির মালিক ।

Kazi
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:১৪ পূর্বাহ্ন

Ufffff...!!!!! Bhalo ekta kottha bolchen sir.

Nobody
১৫ জুন ২০২২, বুধবার, ২:০৩ পূর্বাহ্ন

অর্থ-বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

অর্থ-বাণিজ্য থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com