ঢাকা, ২৭ জুন ২০২২, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

অর্থ-বাণিজ্য

ডলারের দামে সেঞ্চুরি, বিক্রি হচ্ছে ১০২ টাকায়

স্টাফ রিপোর্টার

(১ মাস আগে) ১৭ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ৬:৩৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন

দেশের বাজারে মার্কিন ডলারের দাম হু হু করে বাড়ছে। মাত্র এক দিনের ব্যবধানে আজ (মঙ্গলবার) খোলা বাজারে মার্কিন ডলারের দাম ৪ টাকা বেড়ে ১০২ টাকা হয়েছে। তারপরও পর্যাপ্ত ডলার সরবরাহ করতে পারছে না মানি এক্সচেঞ্জগুলো। 

রাজধানীতে গতকালও প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য ছিল ৯৮ টাকা। এক দিনের ব্যবধানে মানি এক্সচেঞ্জে প্রতি ডলার ১০১ থেকে ১০২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

চাহিদা বৃদ্ধি ও সংকটের কারণে এক সপ্তাহের ব্যবধানে বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমায় ৮০ পয়সা। প্রতি মার্কিন ডলারের বিনিময়মূল্য ৮০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়। 

গত জানুয়ারি মাসের শুরুতে ডলারের বিনিময়মূল্য ২০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা করেছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আর ২৩শে মার্চ তা আবার ২০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা ২০ পয়সা করা হয়েছিল। গত ২৭শে এপ্রিল বাড়ানো হয় ২৫ পয়সা। সর্বশেষ ৯ই মে ডলারের বিনিময়মূল্য ২৫ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা ৭০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়।
 

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মতামত

Country supposedly reaching the peak and almost touching Everest. How come the currency of the country is having a free fall? Is it the beginning?

nasir uddin
১৮ মে ২০২২, বুধবার, ২:৫৫ পূর্বাহ্ন

This is the beginning of the end!

Nam Nai
১৭ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ৮:০৭ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশ কি গভির সংকটের দিকে দ্রত হাটছে না দৌড়াচ্ছে ? আমরা কেউই এই জনবহুল প্রিয় মাত্রিভূমির অবস্তা শিরিলংকার মতো হোক তা কোন ভাবেই চাই না।কারন চুয়াত্তর এর দূরভিক্ষ্যে আমরা যারা একবেলা ভাত খেয়ে অন্যবেলা ছাতু বা রুটি খেয়েছি তারা Food Crisis কি তা ভালোকরে মনে করতে পারি। এখনই নিত্য পরয়জনিয় পন্য ছাড়া সমস্ত বিলাশ দ্রব্য আমদানী নিষিদ্ধ করা হোক। সামগিরিক বিশ্ব পরিসতিতিতে যে অস্তিরতার শুরু হয়েছে সেখানে আমরাও এর বাইরে নই ।কাজেই আমাদের বুঝতে হবে বাংলাদেশের পঁচাত্তর ভাগ মানুষ ভিশন কষ্টের মধ্যে তিন বেলা খাবার এর জোগান দিতে হিমশিম খাচ্ছে ।নিত্য পরয়জনিয় খাদ্য পন্যের ভয়াবহ মূল্য বাড়ার কারনে প্রতিদিনই নিরব হাহাকার চলছে।সরকারের উচিত এখুনি জনরোষ এবং চরম অসন্তুষ থেকে দেশ বাঁচাতে অর্থনৈতিক পরিকল্পনা ঢেলে সাজানো এবং সমস্ত খরুচে প্রজেক্টগুলিকে অনতিবিলম্ব বন্ধ করা এবং বৈদেশিক মূদ্রার উপযুক্ত ব্যাবহার নিশ্চিত করা।জনগন অলরেডি ব্যায় সংকোচন এই সংকটে নিজেরাই শুরু করেছেন এখন সরকারকে দেশের এই পরিস্তিতি সামাল দিতে না পারলে মেট্র রেলের চাকা ধুয়ে বা রুপপুরের তারা ভরা আকাশ দেখিয়ে পেটের ক্ষুদা নিবারন করতে পারবেন না। জাতিসংঘ এখুনি দশটি দেশ কে বিশেষ নজরদারিতে নিয়েছে এবং হুঁশিয়ার করে দিয়েছে যদি উপযুক্ত ব্যাবসতা নিতে ব্যার্থ হয় তা হলে সে সমস্ত দেশগুলিতে বিশরিংক্ষলা এবং দূরভিক্ষ্য দেখা দিতে পারে এবং চরমপন্থিরা সেই সুযোগ নিয়ে পরিস্তিতি আরো খারাপ করবে।দুর্ভাগ্যজনক ভাবে সেই দশটি রাস্ট্রের তালিকায় বাংলাদেশও আছে।(আর্জেন্টিনা,ব্রাজিল ,মিশর,লেবানন,তিউনিসিয়া,সেনেগাল,কেনিয়া,পাকিস্তান ,বাংলাদেশ ও ফিলিপিনস)সূত্র জাতিসংঘ ম্যাপলকরফট রিপোর্ট।চামচা পরিবেশটিত মন্ত্রিসভার সুপারিশে যেন আর অপরয়জনিয়ো কোন প্রজেক্ট হাতে নেওয়া না হয়। এটাকে একটা জরুরী অবস্তা বিবেচনায় না নিলে আমাদের দশা শিরিলংকা , পাকিস্তানের টাকার মান যে পর্যায়ে ১৯৪ রুপি এক ডলারে পৌঁছেছে সেখানে যেতে বেশি দেরি হবে না।

Mustafa Ahsan
১৭ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ৭:৫৩ পূর্বাহ্ন

অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে আমরা ডুবে যাচ্ছি।

মো হেদায়েত উল্লাহ
১৭ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ৭:৪৫ পূর্বাহ্ন

অর্থ-বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

অর্থ-বাণিজ্য থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com