ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১১ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

আপন আলোয় মানবজমিন

মানবজমিন আমার টার্নিং পয়েন্ট

শাহিন কাওসার, প্রধান আলোকচিত্রী, দৈনিক মানবজমিন
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, রবিবার
mzamin

সময় ২০০৮ সাল। একজন তরুণ ফটোগ্রাফার হিসেবে দৈনিক মানবজমিনে কাজ করার সুযোগ আসে। দৈনিক মানবজমিনের প্রধান আলোকচিত্রি কাজী বোরহান উদ্দিন, তার হাত ধরে। তিনি ছিলেন একজন অত্যন্ত দক্ষ ও চাঞ্চল্য সৃষ্টিকারী ফটোগ্রাফার। সময়টা ছিল ফটোগ্রাফির জন্য একটি চ্যালেঞ্জিং টাইম। পত্রিকায় কাজ করতে এসে তার কাছ থেকে অনেক কিছুই শিখতে পেরেছি। বাংলা মোটরে অফিস যখন আমার বাসা ছিল আজিমপুরে। সেখান থেকে প্রতিদিন সকালে এসে এসাইনমেন্ট খাতা দেখে বেরিয়ে পড়তাম ছবি তোলার কাজে। অভিজ্ঞতা বলতে শুধু ক্যামেরা চালাতেই জানতাম। কীভাবে এসাইনমেন্ট কভার করতে হয় কীভাবে ভালো ছবি তুলতে হয়, কোন ফ্রেমিংয়ে কতোটা কাছ থেকে ছবি তুললে ভালো হয় এ সমস্ত বিষয়গুলো যখন একটা ভুল ছবি তুলে নিয়ে আসতাম তখন অফিসে এসে খুঁটিনাটি বুঝিয়ে দিতেন আমাদেরকে।

বিজ্ঞাপন
গত ১৫ বছরে উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে পুলিশ কর্তৃক দিগম্বর হওয়া টেক্সিক্যাব ড্রাইভারের ছবিটা বাংলাদেশের সকল মিডিয়ায় আলোচনায় এসেছিল। ফলশ্রুতিতে টেক্সিক্যাব রিক্যুইজিশন বন্ধ করে দিয়েছে। এটা ছিল আমার জীবনে একটা টার্নিং পয়েন্ট। মিডিয়া জগতে ছড়িয়ে পড়লো আমার নাম। অনেক ভালো ভালো জায়গা থেকে চাকরির অফার আসতে থাকে। পাশাপাশি পুলিশ ডিপার্টমেন্টের বিরুদ্ধে ছবিটি হওয়ায় পুলিশের কাছ থেকে আসতে থাকে বিভিন্ন রকমের হুমকি। এমতাবস্থায় আমার শ্রদ্ধাভাজন এডিটর আমাকে সাহস যুগিয়েছেন। বলেছেন এই অবস্থায় মন খারাপ করার কিছুই নেই। সাংবাদিকতা মানেই চ্যালেঞ্জিং। আপনি যদি সত্যের উপরে থাকেন আপনার কিছুই হবে না। সেই সাহসিকতার কথা আজও আমার কাজের স্পৃহা জোগায়। তারপরে কতো চ্যালেঞ্জিং কাজ এসেছে যেমন ২০০৫ সালে ১৩ই জানুয়ারি শাপলা চত্বরে হেফাজতের আন্দোলন। সারারাত একটা যুদ্ধ ক্ষেত্রে ছিলাম। জীবনকে বাজি রেখে কাজ করতে হয়েছে। কাজ করেছি পিলখানা ট্রাজেডির মতো ভয়াবহ ঘটনার সময়ও। কাজ করেছি হলি আর্টিজানসহ জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানের সঙ্গে। পত্রিকার জন্য একটা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব ভালো ছবি উপস্থাপনা করা। আজ প্রায় দীর্ঘ ১৫ বৎসর যাবৎ মানবজমিনকে আমার সাধ্যমতো প্রথম স্থানে রাখার চেষ্টা করেছি। জানি না কতোটুকু পেরেছি। আর মানবজমিনে আমার ১৫ বছর চলছে। এই কর্মচলার পথে আমার শ্রদ্ধাভাজন প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী সহ সাহায্য করেছেন যুগ্ম শামীমুল হক। সম্পাদক প্রধান বার্তা সম্পাদক সাজেদুল হক, বার্তা সম্পাদক কাজল ঘোষ, নগর সম্পাদক লুৎফর রহমানসহ অনেক সহকর্মী। তাহাদের বিভিন্ন সময় সাহায্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে আমার এই কর্মজীবন। আমি রজতজয়ন্তীতে মানবজমিনের সাফল্য কামনা করছি। মানবজমিন যাতে বাংলাদেশের প্রথম স্তরের ট্যাবলয়েড পত্রিকা হিসেবে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে প্রশংসা পায় সেই কামনা করি।

আপন আলোয় মানবজমিন থেকে আরও পড়ুন

   

আপন আলোয় মানবজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status