ঢাকা, ২৫ মে ২০২৪, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বকাপ ম্যাগাজিন

মেসি-রোনালদো এবং ওরা

পিন্টু আনোয়ার, স্পোর্টস রিপোর্টার, মানবজমিন

(১ বছর আগে) ১৪ নভেম্বর ২০২২, সোমবার, ৭:৪৫ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৩:৫৯ অপরাহ্ন

mzamin

দরজায় কড়া নাড়ছে ফিফা বিশ্বকাপ। ফুরাচ্ছে প্রায় সাড়ে চার বছরের অপেক্ষা। প্রথমবারের মতো আরব দেশে বসছে ফুটবলের মহা আসর ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’। সগর্বে বর্ণিল আয়োজনে সাজসাজ রব পুরো কাতারজুড়ে। ফুটবলের এ মহোৎসবে পছন্দের দলের সমর্থনে টেলিভিশনের সামনে বসেও গলা ফাটাবেন বিশ্বজুড়ে কোটি কোটি দর্শক। চোখ থাকবে প্রিয় তারকাদের ওপর। এবারের বিশ্বকাপের বড় তারকাদের এক নজরে দেখে নেয়া যাক-

 

লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা)
ম্যাচ: ১৬৪ গোল: ৯০
তাকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার মানেন অনেকেই। তবে এবারের বিশ্বকাপে অমরত্ব লাভের সুযোগ তার সামনে। ‘ফুটবল বিশ্বের সবাই চায় মেসি বিশ্বকাপ জিতুক। এবার সে বিশ্বকাপ জিতলে সত্যিই খুশি হবো’- এমন মন্তব্য বিশ্বজয়ী দুই সাবেক তারকা ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান ও আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার।

বিজ্ঞাপন
ক্যারিয়ারে পঞ্চম বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। দীর্ঘ পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে সব শিরোপাই জিতেছেন তিনি। কিন্তু বিশ্বকাপটা এখনও ছুঁয়ে দেখা হয়নি ৩৫ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকরের। ২০১৪’র বিশ্বকাপে দলকে ফাইনালে তুলেছিলেন সেবারের সেরা খেলোয়াড়ের ‘গোল্ডেন বল’ পুরস্কারজয়ী তারকা। কিন্তু জার্মানির বিপক্ষে ফাইনালের অতিরিক্ত সময়ের শেষদিকে গোল হজম করে স্বপ্ন ভাঙে মেসিদের। সঙ্গে হৃদয় ভাঙে বিশ্বজুড়ে শতকোটি মেসি ভক্তের। এবার আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ের সম্ভাবনা দেখছেন বোদ্ধা বিশ্লেষকরাও। রেকর্ড গড়ে টানা ৩৫ ম্যাচ অপরাজিত রয়েছে আর্জেন্টিনা। আর কাতারে চ্যাম্পিয়ন হতে হলে আর্জেন্টিনার দরকার অধিনায়ক মেসির ‘ক্যারিশমা’। চলতি মৌসুম  বল পায়ে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন লিওনেল মেসি। ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের হয়ে ১৭ ম্যাচে পেয়েছেন ১২ গোল। মেসির রয়েছে সর্বাধিক ১১টি অ্যাসিস্ট। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে শেষ ১০ ম্যাচে ১১ গোল পেয়েছেন তিনি। আর জাতীয় দলের হয়ে চলতি বছর ৬ ম্যাচে ১০ গোল রয়েছে তার। এর এক ম্যাচেই ৫ গোল করেন রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা ব্যালন ডি অ’র পুরস্কারজয়ী ফুটবলার। এস্তোনিয়ার বিপক্ষে ওই প্রীতি ম্যাচে ৫-০ গোলে জয় পায় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে সুদীর্ঘ ৮০ বছরে এক ম্যাচে ৫ গোলের নজির ছিল না কারও। 

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো (পর্তুগাল)
ম্যাচ: ১৯১ গোল: ১১৭
তার বয়স ৩৮ ছুঁই ছুঁই। কিন্তু বল পায়ে ক্ষিপ্রতা ও গোল ক্ষুধা অম্লান এখনও। এবারের অন্যতম ফেভারিট হিসেবেই কাতারে যাচ্ছে পর্তুগাল। আর যাকে ঘিরে পর্তুগিজরা স্বপ্ন দেখছে, পরিকল্পনা সাজাচ্ছে তিনি আর কেউ নন, পাঁচবারের ব্যালন ডি অ’র জয়ী ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সন্দেহ নেই, সর্বকালের অন্যতম সেরা এ ফুটবলারের এটিই শেষ বিশ্বকাপ। ক্যারিয়ারে পঞ্চম বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন তিনি। পর্তুগাল দলে তারকা ফুটবলারের হাট। তবে আলাদাভাবে রোনালদোর দিকে থাকবে সবার নজর। পর্তুগালের জার্সি গায়ে ১১৭ গোল রয়েছে তার। জাতীয় দলের হয়ে সর্বাধিক গোলের রেকর্ড এটি। বিশ্বকাপে ১৭ ম্যাচে করেছেন ৭ গোল। যদিও চলতি মৌসুমে খুব একটা ফর্মে নেই তিনি। ক্লাব ফুটবলে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ১৪ ম্যাচে মাত্রই ৩ গোল পেয়েছেন সিআরসেভেন খ্যাত স্ট্রাইকার। আর চলতি বছর জাতীয় দলের জার্সি গায়ে পেয়েছেন ৭ ম্যাচে দুই গোল। অবশ্য কোচ এরিক টেন হাগের সঙ্গে বনিবনার অভাবে ম্যানইউ’র ম্যাচে বেশির ভাগ সময়ই শুরুর একাদশের বাইরে থাকতে দেখা গেছে তাকে। পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে রোনালদোও জিতেছেন প্রায় সব শিরোপা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ, স্প্যানিশ লা লিগা, ইতালিয়ান সিরি ‘আ’ শিরোপার সঙ্গে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ জিতেছেন একাধিকবার। পর্তুগালের হয়ে তিনি নিয়েছেন ২০১৬ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ শিরোপার স্বাদ। আর রোনালদো বড় মঞ্চে অদম্য স্পৃহা ও শৈল্পীক ফুটবল নৈপুণ্য দিয়ে এবারও বিশ্বকে বুঁদ রাখবেন তা বলাই যায়।

করিম বেনজেমা (ফ্রান্স)
ম্যাচ: ৯৭ গোল: ৩৭
তাকে জাতীয় দলের বাইরে রাখা হয়েছিল দীর্ঘ পাঁচ বছর। ব্ল্যাকমেইল সংক্রান্ত এক মামলায় তার নাম ওঠায় ফ্রান্স দলে ব্রাত্য হয়ে পড়েছিলেন করিম বেনজেমা। গত বছর ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের আগে বেনজেমাকে দলে ডাকেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম। আর ২০২১-২২ এ কাটান তিনি দুর্দান্ত এক মৌসুম। উয়েফা ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে চার গোল করেন ফ্রান্সের আলজেরিয়ান বংশোদ্ভূত স্ট্রাইকার। তুখোড় ফর্ম দেখান ক্লাব ফুটবলেও। ২০২১-২২ মৌসুমে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৪৬ ম্যাচে ৪৪ গোল করেন বেনজেমা। গত বছর জাতীয় দলের হয়ে করেন ১৩ ম্যাচে ৯ গোল। মৌসুম শেষে বেনজেমা জিতে নেন বর্ষসেরা ফুটবলারের মর্যাদাকর পুরস্কার ব্যালন ডি অ’র।  ইনজুরির কারণে কিছুদিন মাঠের বাইরে কাটলেও নৈপুণ্য জারি রয়েছে তার। চলতি মৌসুমে রিয়ালের জার্সি গায়ে ১২ ম্যাচে ৬ গোল পেয়েছেন বয়স ৩৫ ছুঁই ছুঁই ফুটবলার। জাতীয় দলের হয়ে তিন ম্যাচে করেছেন এক গোল। 

কিলিয়ান এমবাপ্পে (ফ্রান্স)
ম্যাচ: ৫৯ গোল: ২৮
মাত্র ১৯ বছর বয়সেই বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পেয়েছেন তিনি। এবার ফরাসিদের বড় ভরসার নাম কিলিয়ান এমবাপ্পে। বোদ্ধা-বিশ্লেষকরা ক্ষিপ্র গতির এ স্ট্রাইকারের হাতে দেখছেন কাতারে এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার। ২৩ বছর বয়সী এমবাপ্পের সাম্প্রতিক ফর্মটাও এর পক্ষে। চলতি মৌসুম ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের জার্সি গায়ে ১৮ ম্যাচে ১৮ গোল পেয়েছেন এমবাপ্পে। ২০২২ সালে জাতীয় দলের হয়ে করেছেন ৬ ম্যাচে চার গোল। রাশিয়ায় ২০১৮ বিশ্বকাপে সেরা উদীয়মান ফুটবলারের পুরস্কার কুড়ান এমবাপ্পে। ফাইনালে গোল নিয়ে ফুটবল কিংবদন্তি পেলের পাশে নাম ওঠে তার। পেলের পর বিশ্বকাপের ফাইনালে গোল পাওয়া দ্বিতীয় বয়োকনিষ্ঠ ফুটবলার তিনি। এরপর আর পিছে ফিরে দেখেননি এমবাপ্পে। 

ম্যানুয়েল নয়্যার (জার্মানি)
ম্যাচ: ১১৩
এমনিতে ফুটবল বিশ্বে ‘ফাইটার’ হিসেবে পরিচিত সুইপার-গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়্যার। এবার ‘অন্যযুদ্ধ’ জয়ী নয়্যারে আলাদা চোখ থাকবে ভক্তদের। বিশ্বকাপ শুরুর  মাত্র ১৭ দিন আগে জার্মান গোলরক্ষক জানান তিনি স্কিন ক্যান্সারে আক্রান্ত। সম্প্রতি তার মুখের ত্বকে তিনবার অস্ত্রোপচার করা হয়। তবে নয়্যার এও জানিয়েছেন কাতার বিশ্বকাপে যথারীতি খেলতে দেখা যাবে তাকে। ব্রাজিলে ২০১৪ বিশ্বকাপে শিরোপার স্বাদ নেয়া নয়্যার সেবার জিতে নেন সেরা গোলরক্ষকের ‘গোল্ডেন গ্লাভস’ পুরস্কারও। শালকা জিরো ফোর ও বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে পেশাদার ক্যারিয়ারে ৭১৪ ম্যাচের অভিজ্ঞতালব্ধ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ১১৩ ম্যাচ। এটি নয়্যারের টানা চতুর্থ বিশ্বকাপ।

নেইমার জুনিয়র (ব্রাজিল)
ম্যাচ: ১২১ গোল: ৭৫
প্রতিবারের মতো কাতারেই ফেভারিটের মর্যাদা পাচ্ছে ব্রাজিল। রেকর্ড পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়েও রয়েছে এক নম্বরে। আর এবারের বিশ্বকাপে ব্রাজিলের মূল ভরসার নাম নেইমার জুনিয়র। জাতীয় দলের হয়ে ১২৩ ম্যাচে ৭৫ গোল নিয়ে ফুটবল লিজেন্ড পেলের রেকর্ড ভেঙে দেয়ার অপেক্ষায় তিনি। ব্রাজিলের হয়ে সর্বাধিক ৭৭ গোল রয়েছে ফুটবলের ‘কালো মানিক’ পেলের। বিশ্বকাপ আসর সামনে রেখে তুখোড় ফর্মে রয়েছেন নেইমার। ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের হয়ে চলতি মৌসুমে ১৮ ম্যাচে ১৪ গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। বল পায়ে তার রয়েছে তৃতীয় সর্বাধিক ৮টি অ্যাসিস্ট। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে নেইমার চলতি বছর পাঁচ ম্যাচে করেছেন ৫ গোল। নিজ দেশে আয়োজিত ২০১৪’র আসরে সর্বশেষ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলেছে ‘অলটাইম ফেভারিট’ ব্রাজিল। কিন্তু চোটের কারণে জার্মানির বিপক্ষে ওই ম্যাচের বাইরে ছিলেন প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ মঞ্চে পা রাখা নেইমার। আর গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলের সেরা তারকাকে হারিয়ে হতোদ্যম ব্রাজিল জার্মানির কাছে হেরে যায় অবিশ্বাস্য ৭-১ গোলের ব্যবধানে। গত বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে পরাজিত হয় ব্রাজিল। কাতারে ক্যারিয়ারের তৃতীয় বিশ্বকাপ  খেলতে যাচ্ছেন নেইমার। আগের দুই আসরে ১০ ম্যাচ খেলে ৬ গোল করেছেন তিনি। এমনিতে তারকাবহুল শক্তিধর একটি দল নিয়ে কাতারে যাচ্ছে ব্রাজিল। আর নেইমার সেখানে তার সেরাটা দিতে পারলে সাম্বার দেশের দলটির জন্য তা হবে ‘সোনায় সোহাগা’।

সার্জিও বুসকেটস  (স্পেন)
ম্যাচ: ১৩৯ গোল: ২
আধুনিক ফুটবলের সেরা মিডফিল্ডারদের একজন তিনি। ফুটবল জ্ঞান, কৌশলগত সামর্থ্য নিয়ে অনন্য। তিনি এমন একজন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার যে, দলের আক্রমণেও জোরালো ভূমিকা রাখে। স্প্যানিয়ার্ডরা বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পেয়েছে একবারই। দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০১০ বিশ্বকাপে স্পেনের শিরোপা জয়ের অন্যতম নায়ক সার্জিও বুসকেটস। সেই দলের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে কাতারে খেলতে যাচ্ছেন তিনি। এবার তিনি নেতৃত্ব দেবেন  ‘লা রোহা’ দলের। আর বিশ্বকাপ সামনে রেখে তিনি বলেন, পেদ্রি-গাভিদের নিয়ে গড়া তারুণ্য নির্ভর এবারের দলটি আবারও আশা দেখাচ্ছে তাকে।  স্পেন জাতীয় দলের হয়ে ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে বুসকেটস খেলে নিয়েছেন ১৩৯ ম্যাচ। তিনি পেশাদার ফুটবলে ৭১৯ ম্যাচ খেলেছেন বার্সেলোনা ক্লাবের হয়ে । 

হ্যারি কেইন (ইংল্যান্ড)
ম্যাচ: ৭৫ গোল: ৫১
২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরুর আগ মুহূর্তে ইংল্যান্ড দলের নেতৃত্ব পান হ্যারি কেইন। দলকে তোলেন সেমিফাইনালে। বিশ্বকাপে ১৯৯০ সালের পর যা ইংল্যান্ডের সেরা সাফল্য। রাশিয়া বিশ্বকাপে ৬ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারও কুড়ান এ ইংলিশ স্ট্রাইকার। ২০২০-এ উয়েফা ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছে কেইনের দল। ১৯৬৬ বিশ্বকাপের পর বড় কোনো টুর্নামেন্টে ইংলিশদের ওটা ছিল প্রথম ফাইনাল। ইংল্যান্ড উয়েফা নেশনস লীগের দ্বিতীয় সারিতে নেমে গেলেও অধিনায়ক কেইনের ব্যক্তিগত নৈপুণ্য উজ্জ্বল। চলতি মৌসুম টটেনহ্যাম হটস্পারের জার্সি গায়ে ১৯ ম্যাচে ১১ গোল পেয়েছেন হ্যারি কেইন। ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে ৮ ম্যাচে তিন গোল রয়েছে  তার। তবে ২০২১-এ কেইন করেন ১৬ ম্যাচে ১৬ গোল।

লুকা মদরিচ (ক্রোয়েশিয়া)
ম্যাচ: ১৫৪ গোল: ২৩
সর্বশেষ বিশ্বকাপের ‘গোল্ডেন বল’ পুরস্কার জয়ী আসরসেরা খেলোয়াড় তিনি। বাঘাবাঘা প্রতিপক্ষদের ঘায়েল করে ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তোলেন অধিনায়ক লুকা মদরিচ। কাতারেও ৩৭ বছর বয়সী তারকার ওপর ভরসা ভক্ত-সমর্থকদের। চলতি উয়েফা নেশন্স লীগেও উজ্জ্বল নৈপুণ্য দেখান মদরিচরা। শিরোপাধারী ও বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স এবং অপর দুই শক্তিধর দল ডেনমার্ক-অস্ট্রিয়াকে পেছনে ফেলে এবারের সেমিফাইনালের টিকিট কেটেছে ক্রোয়েশিয়া। পেশাদার ফুটবলে অভিজ্ঞতার কমতি নেই মদরিচের। দিনামো জাগরেব, টটেনহ্যাম হটস্পার, রিয়াল মাদ্রিদের জার্সি গায়ে ক্যারিয়ারে এরই মধ্যে খেলে নিয়েছেন ৭৮৩ ম্যাচ। জাতীয় দলের হয়েও ১৫৪ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। 

ভার্জিল ভ্যান ডাইক  (নেদারল্যান্ডস)
ম্যাচ: ৪৯ গোল: ৬
বিশ্বের সেরা ডিফেন্ডারদের একজন। ভার্জিল ভ্যান ডাইক তার শক্তিমত্তা,  হেডে দক্ষতার জন্য পরিচিত। উয়েফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কারজয়ী (২০১৮-১৯) একমাত্র ডিফেন্ডার তিনি। নেদারল্যান্ডস দলের অধিনায়ক চলতি মৌসুমে ক্লাব ফুটবলেও রয়েছেন তুখোড় ফর্মে। ২০২২-২৩ মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ৮২% ট্যাকল জয়ের রেকর্ড লিভারপুলের এ ডিফেন্ডারের। সফল ড্রিবলিংয়ে (১০১) ডিফেন্ডারদের মধ্যে শীর্ষে তিনি। সর্বোচ্চ ১৫০টি ওয়ান টাচ্ পাস। ২০১৫ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হলেও এবারই প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন ভ্যান ডাইক। ২০১৮ বিশ্বকাপের বাইরে ছিল নেদারল্যান্ডস। 

কেভিন ডি ব্রুইনা (বেলজিয়াম)
ম্যাচ: ৯৩  গোল: ২৫
এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা প্লেমেকার। গোল করতেও দক্ষ। তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ খেলছেন কেভিন ডি ব্রুইনা। রাশিয়ায় ২০১৮ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে হট ফেভারিট ব্রাজিলকে হারায় বেলজিয়াম। সেমিফাইনালে ফ্রান্সের কাছে হারলেও স্থান নির্ধারণী ম্যাচে আরেক ফেভারিট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বেলজিয়াম কুড়ায় তৃতীয় সেরা দলের খেতাব। এবারও নিজেদের ‘গোল্ডেন জেনারেশন’ নিয়ে বড় স্বপ্ন বেলজিয়ানদের। আর এ স্বপ্নে বড় আশা ডি ব্রুইনাকে ঘিরে।  ২০২১-২২ মৌসুমে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির  হয়ে ৪৪ ম্যাচে ১৯ গোল করেন এ অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। চলতি মৌসুমেও নৈপুণ্য ধরে রেখেছেন ডি ব্রুইনা। সিটির হয়ে নিজে তিন গোল করার পাশাপাশি দ্বিতীয় সর্বাধিক ৯টি অ্যাসিস্ট তার।  

সন হিউং মিন (দক্ষিণ কোরিয়া)
ম্যাচ: ১০৪ গোল: ৩৫
এই মুহূর্তে এশিয়ার সেরা ফুটবলার। বিশ্বকাপে কোরিয়ানদের ভরসা। সন হিউং মিনের এটি টানা তৃতীয় বিশ্বকাপ। উড়ন্ত ফর্ম নিয়ে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পারের জার্সি গায়ে ২০২১-২২ মৌসুমে ৪৫ ম্যাচে ২৪ গোল করেন দক্ষিণ কোরিয়ার এই স্ট্রাইকার। চলতি মৌসুমে চোটের কারণে খুব বেশি খেলতে পারেননি। স্পারদের হয়ে ১৯ ম্যাচে করেছেন ৫ গোল। চলতি বছর জাতীয় দলের হয়ে উজ্জ্বল তার নৈপুণ্য। ৮ ম্যাচে করেছেন ৫ গোল। তবে বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র ১৮ দিন আগে সনের চোট নিয়ে শঙ্কায় পড়েন ভক্তরা। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ম্যাচে শূন্যে বল দখলের লড়াইয়ে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের মাথার আঘাতে চিড় ধরে সনের অক্ষিকোটরে।

লুইস সুয়ারেজ (উরুগুয়ে)
ম্যাচ: ১৩৪ গোল: ৬৮
এবারের বিশ্বকাপে শিরোপা জিততে পারে উরুগুয়ে- এমন বিশ্বাস লুইস সুয়ারেজের। আর তা বাস্তবায়নে দলের চার ইন ফর্ম ফুটবলার ফেদেরিকো ভালভার্দে, ডারউইন নুনেজ, রোনাল্ড আরাউহো এবং রদ্রি বেন্টানকুরদের সঙ্গে নিয়ে কাতারে নিজেকে নিংড়ে দিতে চান অন্যতম বিশ্বসেরা স্ট্রাইকার। এটি ক্যারিয়ারের চতুর্থ বিশ্বকাপ সুয়ারেজের। ইতিহাসের প্রথম বিশ্বকাপের শিরোপাজয়ী উরুগুয়ে সবশেষ সেমিফাইনালে খেলে ২০২১’র আসরে। সেবার কোয়ার্টার ফাইনালে ঘানার বিপক্ষে ম্যাচে গোললাইন থেকে হাত দিয়ে বল রুখে লাল কার্ড দেখেন সুয়ারেজ। নিশ্চিত গোল থেকে বঞ্চিত হওয়ার পর পেনাল্টি মিস করে বসে ঘানা। আর ১২০ মিনিট সমতা শেষে টাইব্রেকারে জয় পায় উরুগুয়ে। ইউরোপিয়ান জায়ান্ট বার্সেলোনা, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে সফল ক্যারিয়ার শেষে চলতি বছর স্বদেশি ক্লাব ন্যাসিওনালে যোগ দেন সুয়ারেজ। ফর্ম ধরে রাখা এ ফরোয়ার্ড চলতি বছর ১৬ ম্যাচে করেছেন ৮ গোল।

বিশ্বকাপ ম্যাগাজিন থেকে আরও পড়ুন

   

বিশ্বকাপ ম্যাগাজিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status