ঢাকা, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

অনলাইন

বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিলো ভারত

অনলাইন ডেস্ক

(২ মাস আগে) ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, শুক্রবার, ১:৩০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:০৪ পূর্বাহ্ন

mzamin

নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার এবার বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। ভারতের রপ্তানিকারকরা আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত এই পেঁয়াজ বাংলাদেশে পাঠাতে পারবে। বৃহস্পতিবার ভারতের ভোক্তা বিষয়ক দপ্তরের সচিব রোহিত কুমার সিং নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশ ছাড়াও মরিশাসে ১ হাজার ২০০ টন, বাহরাইনে ৩ হাজার টন এবং ভুটানে ৫৬০ টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দেওয়ার কথা জানান তিনি। তিনি বলেন, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের এই পরিমাণ রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
নয়াদিল্লির ওই কর্মকর্তা বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুপারিশের ভিত্তিতে বাংলাদেশ এবং অন্য তিনটি দেশে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
বর্তমানে, ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভারতে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। অভ্যন্তরীণ সরবরাহ বাড়াতে এবং মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে গত বছরের ৮ ডিসেম্বর পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল ভারত।
ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করায় বাংলাদেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়ে যায়। মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম দুইশ টাকা ছাড়িয়ে যায়। এর পর ভরা মৌসুমেও দেশে পেঁয়াজের দাম কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় নামেনি।

 

 

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মতামত

কোন দরকারই ছিল না।

Faiz Ahmed
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, শুক্রবার, ৪:৫৬ পূর্বাহ্ন

ভারতের কৃষকদের নায্য মূল বা উৎপাদন খরচ উঠানোর জন্য পেঁয়াজ রপ্তানি দরকার । দেশে দাম কিছুটা বাড়লেও কৃষকদের স্বার্থে রপ্তানির প্রয়োজন রয়েছে । সব দেশের এই নীতি মেনে নিতে হবে কৃষক যাতে কিছু স্বস্তি পায় । তাই যে পণ্য বেশি উত্পাদন হয় রপ্তানি করে ভারসাম্য আনা। বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশ হিসেবে পরিবহন খরচ কম হওয়ায় ভারত বাংলাদেশ বাণিজ্য উভয় দেশের জন্য সুবিধাজনক ।

Kazi
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, শুক্রবার, ৩:২৩ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশে ২/৩ বছরের জন্য বিদশ থেকে পিয়াজ আমদানি বন্ধ করা হলে, গরুর মাংস উৎপাদনে স্বনির্ভরতা অর্জনের মত বাহিরের পিয়াজ আমদানির প্রয়োজন হবে না। পিয়াজের ঘাটতি মিটানর অন্য আমাদের দেশে শুধু প্রয়োজন পিয়াজ সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা করা। কাড়ন এদেশে চাহিদার চাইতেও বেশী পরিমাণ পিয়াজ উৎপন্ন হয়।

Akbar Ali
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, শুক্রবার, ১:২৩ পূর্বাহ্ন

No need to give permission. We can live without Indian onion.

Mir Ahmed
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১১:০০ অপরাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

অনলাইন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status