ঢাকা, ২৫ জুন ২০২২, শনিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

অনলাইন

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে খালেদা জিয়া হবেন প্রধানমন্ত্রী: ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার

(৩ দিন আগে) ২২ জুন ২০২২, বুধবার, ৭:১১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১০:২৪ পূর্বাহ্ন

ক্ষমতায় গেলে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী হবেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, যিনি সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তার অবর্তমানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রধানমন্ত্রী হবেন। বুধবার বিকালে গুলশানস্থ বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপিতে নেতৃত্বের সংকট নেই।  বরং আওয়ামী লীগে নেতৃত্বের সংকট রয়েছে।  আওয়ামী লীগে শেখ হাসিনা ছাড়া কেউ নেই।  শেখ হাসিনা চলে গেলে কি যুদ্ধ হবে তা কেবল তারাই (আওয়ামী লীগ) বলতে পারবে।   

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে দেশে আর কোন নির্বাচন হবে না। তাকে সরে যেতে হবে। পরে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে।

বিজ্ঞাপন
তখনই না কেবল প্রশ্ন আসবে বিএনপি ক্ষমতায় গেলে কে প্রধানমন্ত্রী হবেন।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপি যাবে না জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, যারা মানুষ হত্যা করে, বিশিষ্টদের চুবিয়ে মারতে চায়, তাদের আমন্ত্রণে বিএনপি নেতাকর্মীরা যাবেন না।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

 

পাঠকের মতামত

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী হবেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, যিনি সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তার অবর্তমানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রধানমন্ত্রী হবেন। কথা তো স্পষ্ট। সমস্যা কি? কথাটা সত্যি যে এ দেশের বেশির ভাগ রাজনীতিক নিজের পরিবারের কাওকেই দলের সেকেন্ড ইন কমান্ড করে গড়ে তুলে যেতে চান। তবে, তার জ্বলজ্যান্ত ব্যতিক্রম হচ্ছেন জিয়াউর রহমান, যিনি পরিবারকে নিজের রাজনীতি থেকে যোজন যোজন দূরে রেখেছিলেন। তাঁর অস্বাভাবিক প্রস্থানের পর দলের অন্যান্য নেতারা একরকম জোর করেই বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনীতিতে এনেছিলেন। তারপর তিনি সফলতার স্বাক্ষর রেখেছিলেন। নিজের যোগ্যতা দিয়েই দলকে শুধু একাট্টাই রাখেননি, রাজপথে বিকশিত হয়ে স্বৈরাচারের হাত থেকে গনতন্ত্রের নীলপদ্মকে ছিনিয়ে এনে আজ বাংলাদেশে জনতন্ত্রের জননীর খেতাব পেয়েছেন। এই যোগ্য পিতামাতার সন্তান তারেক রহমান আপন যোগ্যতা বলেই বিএনপির কান্ডারী হয়েছেন। অথচঃ, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অত্যন্ত শক্তিশালী ও অনেকাংশে সফল propaganda করা হয়েছে। জনগন এইসব অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হলে কিন্তু তার চড়া মূল্য পরিশোধ করতে হবে। কাজেই, সাবধান হওয়ার এখনই সময়।

Mortuza Huq
২২ জুন ২০২২, বুধবার, ১২:৩৬ অপরাহ্ন

BNP must oust Tariq Rahman in order to move forward. Tariq Rahman is a corrupt person and an ineffective leader. In 2006-2007, he ran a government within a government from Hawa Bhaban, which is totally unacceptable. It was one of the reasons why corrupt and power-hungry Moyeen U. Ahmed got the opportunity to grab power. Since then, we all know the ensuing politics and the fate of Bangladesh. Therefore, Tariq Rahman is indirectly responsible for changing the quality of politics of Bangladesh in 2007.

Nam Ni
২২ জুন ২০২২, বুধবার, ৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

Thanks for your brave comment

Azad
২২ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:৪০ পূর্বাহ্ন

তারেক রহমানের নাম মুখে আনা মানে ভোট হারানো। মানুষ জানে সে প্রধানমন্ত্রি হওয়ার যোগ্যতা রাখেনা।

sattar
২২ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:৩৯ পূর্বাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

অনলাইন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com