ঢাকা, ২৫ জুন ২০২২, শনিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

অনলাইন

ইউক্রেনীয় বন্দরে রাশিয়ার অবরোধে বিশ্বব্যাপী খাদ্যঘাটতি, যা যুদ্ধাপরাধের শামিল: ইইউ পররাষ্ট্র প্রধান

মানবজমিন ডিজিটাল

(৩ দিন আগে) ২২ জুন ২০২২, বুধবার, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:২৯ পূর্বাহ্ন

ইউক্রেনীয় বন্দরগুলোতে রুশ বাহিনীর অবরোধ “যুদ্ধাপরাধের” শামিল বলে মন্তব্য করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এর পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান জোসেপ বরেল। তার মতে, ওইসব বন্দরগুলোতে লাখ লাখ টন গম আটকা পড়ে রয়েছে, যার কারণে বিশ্বব্যাপী খাদ্যঘাটতির সৃষ্টি হচ্ছে।

এনএইচকে ওয়ার্ল্ড এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়ঃ সোমবার ইইউ’র পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা লুক্সেমবার্গে পররাষ্ট্র বিষয়ক কাউন্সিলের এক বৈঠকে মিলিত হন যেখানে বরেল ওই মন্তব্য করেন। নেতাদের আলোচনা ইউক্রেন ও খাদ্য নিরাপত্তার উপর কেন্দ্রীভূত ছিল।

ইইউ নেতাগণ কৃষ্ণসাগরের মধ্য দিয়ে আটকে পড়া শস্য চালান করার উপায় খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন। বিশেষ করে আফ্রিকাতে বড় ধরনের দুর্ভিক্ষের জন্য সতর্ক করে দিয়ে বরেল রুশ নেতাদের প্রতি অবরোধ তুলে নেয়ার আহ্বান জানান। তবে, রুশ বাহিনীর ভাষ্যানুযায়ী, বন্দরগুলো থেকে মাইন সরিয়ে নিতে ইউক্রেনীয়রাই ব্যর্থ হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়ঃ জাতিসংঘের কর্মকর্তারা আলোচনার মাধ্যমে একটি সমুদ্রপথ চালু করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া জার্মানি, পোল্যান্ড ও রোমানিয়ার নেতাগণ রেল ও অন্যান্য স্থলপথের মাধ্যমে নতুন শস্যের কিছু পরিবহনের চেষ্টা করছেন।

বরেল জানিয়েছেন, তিনি আফ্রিকার সকল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এই লিখে পত্র পাঠাচ্ছেন যে, রাশিয়ার প্রতি ইইউ’র নিষেধাজ্ঞার কারণে এই সংকটের সূত্রপাত হয়নি। ইইউ নেতাগণ কখনোই রাশিয়ার খাদ্য ও সার রপ্তানির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেনি। কিন্তু, তা সত্ত্বেও এসব দ্রব্যগুলোর মূল্য বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে।

ওদিকে, আফ্রিকান ইউনিয়নের নেতাগণ এ সকল দ্রব্যের সরবরাহ মুক্ত করার জন্য রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছেন।

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মতামত

মার্কিনারা কোথায়!

Mohiuddin molla
২২ জুন ২০২২, বুধবার, ৬:১৬ পূর্বাহ্ন

রাশিয়ার প্রতি ইইউ’র নিষেধাজ্ঞার কারণে এই সংকটের সূত্রপাত হয়নি--গুরুত্বপুর্ন দায়িত্বে পলন করা অবস্থায একজন মানুষ সচেতনভাবে এরকম মিথ্যাচার করলে তা অন্যদের জন্য আতঙ্কের ব্যাপার হয়! সুনির্দিষ্টভাবে খাদ্যদ্রব্যের রপ্তানির উপরে বিধি নিষেধ না দিলেও অন্যান্য জিনিসের উপরে বিধি নিষেধ আরোপ করার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াই এই খাদ্য রপ্তানির স্থবিরতা। এটা বিশ্ব জানলেও শুধুমাত্র মিস্টার বরেল জানেন না!The crisis was not triggered by EU sanctions on Russia----When a person consciously tells such a lie while fulfilling important responsibilities, it is a matter of panic for others! The stagnation of these food exports is a side effect of imposing restrictions on other things, even if it does not specifically ban food exports. Even if the world knows it, only Mr. Borel doesn't know it!

Amir
২১ জুন ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:২৫ অপরাহ্ন

জোসেফ বোরেল দালালি করেন সীমাহীন দালালি করার মাধ্যমে ইউরোপের পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রধান হতে ফেরেছেন বলেই অতিরিক্ত রাশিয়া বিরোধী বক্তব্য দিয়ে শতার ক্ষমতা পাকাপোক্ত করেছেন। খাডাস সে

সুলতান
২১ জুন ২০২২, মঙ্গলবার, ৮:২৯ অপরাহ্ন

মায়াকান্না শুরু মাত্র হলো

M. Kamruzzaman
২১ জুন ২০২২, মঙ্গলবার, ৭:৪৪ অপরাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

অনলাইন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com