ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১০ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

প্রসিকিউশনের বক্তব্য

যুক্তরাষ্ট্রে শিখ নেতা হত্যা পরিকল্পনা করেন ভারতীয় কর্মকর্তা

মানবজমিন ডেস্ক

(২ মাস আগে) ৩০ নভেম্বর ২০২৩, বৃহস্পতিবার, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:০৪ পূর্বাহ্ন

mzamin

যুক্তরাষ্ট্রে শিখ নেতা গুরপাতওয়ান্ত সিং পান্নুন’কে হত্যার পরিকল্পনা সাজান ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার একজন কর্মকর্তা। তিনি এ জন্য নিখিল গুপ্ত (৫২) নামে ভারতীয় নাগরিক এক ব্যক্তিকে এ কাজে নিয়োজিত করেন। নিখিল এ সময় নিজেকে একজন পাচারকারী হিসেবে পরিচয় দেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী নিখিল অন্য এক ‘ক্রিমিনাল’কে ভাড়া করেন গুরপাতওয়ান্ত সিং পান্নুন’কে হত্যা করতে। এ জন্য এক লাখ ডলার দেয়ার চুক্তি হয়। আসলে নিখিল যাকে ‘ক্রিমিনাল’ হিসেবে হত্যা মিশনে দায়িত্ব দেন তিনি প্রকৃতপক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের ছদ্মবেশধারী একজন গোয়েন্দা এজেন্ট। তার ফাঁদে পা দিয়েই ধরা পড়ে যান নিখিল গুপ্ত। আস্তে আস্তে বেরিয়ে আসে গুরপাতওয়ান্ত সিং পান্নুন’কে হত্যা পরিকল্পনা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রসিকিউটররা এসব তথ্য দিয়েছেন বুধবার। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এই হত্যা পরিকল্পনায় সরাসরি ভারত জড়িত।

বিজ্ঞাপন
এর আগে ভারতের বিরুদ্ধে একই রকম অভিযোগ তোলে কানাডা। সেখানে শিখ নেতা হরদিপ সিং নিজারকে হত্যা করা হয় জুনে। এর সঙ্গে ভারতের সরাসরি যুক্ত বলে অভিযোগ করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কে মারাত্মক উত্তেজনা দেখা দেয়। এবার যুক্তরাষ্ট্রের এ ঘটনার পর কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো আবারও কানাডায় নিজার হত্যার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা। 

বুধবার ম্যানহাটানে ফেডারেল শীর্ষ প্রসিকিউটর ডামিয়েন উইলিয়াম বলেছেন, নিউ ইয়র্ক সিটিতে ভারতীয় বংশোদ্ভূত একজন মার্কিন নাগরিককে হত্যায় ভারত থেকে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। যাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে তিনি প্রকাশ্যে ভারতে শিখদের জন্য একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করছেন। প্রসিকিউশন থেকে তার নাম প্রকাশ করা না হলেও কর্মকর্তারা বলছেন, ওই শিখ নেতার নাম হলো গুরপাতওয়ান্ত সিং পান্নুন। মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে এই শিখ নেতাকে হত্যা পরিকল্পনায় সরাসরি জড়িত ভারত সরকারের একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা ও নিরাপত্তাকর্মী। এ বিষয়ে নিখিল গুপ্ত নামে এক ভারতীয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে প্রসিকিউশন। 

আল জাজিরা লিখেছে, যুক্তরাষ্ট্রে শিখ নেতা হত্যা পরিকল্পনায় নিখিল গুপ্ত ভারত সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থা ও  নিরাপত্তাকর্মীর সঙ্গে কাজ করছিলেন। তার গোপন উদ্দেশ্য ছিল নিউ ইয়র্কে একজন শিখ নেতাকে হত্যা করা। প্রসিকিউশন থেকে ভারতীয় এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ভারতীয় কর্মকর্তা বা টার্গেটের নাম প্রকাশ করেনি। তবে টার্গেটে থাকা ব্যক্তিকে ভারত সরকারের একজন সমালোচক এবং পাঞ্জাব রাজ্যে শিখদের স্বাধীন রাষ্ট্র আন্দোলনের একজন নেতা বলে বর্ণনা করেছে। এ বছর জুনে চেক কর্তৃপক্ষ নিখিল গুপ্তকে গ্রেপ্তার করে। শীর্ষ প্রসিকিউটর ডামিয়েন উইলিয়ামস বলেছেন, এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করতে এক লাখ ডলার দেয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন নিখিল গুপ্ত। 

এক সপ্তাহ আগে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানান যুক্তরাষ্ট্রে একজন শিখ স্বাধীনতাকামীকে হত্যা পরিকল্পনা ভণ্ডুল করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর দু’মাস আগে কানাডা সরকার অভিযোগ করে যে, সেখানে একজন শিখ নেতা নিজারকে হত্যায় ভারত সরকার জড়িত। ওদিকে কানাডায় শিখ নেতা হরদিপ সিং নিজার হত্যায় জড়িত থাকার কথা জোর দিয়ে প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত। কিন্তু কানাডা কর্তৃপক্ষ অভিযোগের বিষয়ে অটল। এ নিয়ে উত্তেজনায় কানাডা কয়েক ডজন কূটনীতিককে প্রত্যাহার করে নেয় ভারত থেকে। বুধবার অটোয়াতে সাংবাদিকদের কাছে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন টুডো বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র থেকে যে খবর পাওয়া যাচ্ছে তা আরো জোরালো করে তুলেছে- আমরা শুরু থেকেই এটা নিয়ে কথা বলছি। তা হলো এ ব্যাপারকে গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত ভারতের। 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রসিকিউটররা বলছেন, ভারতীয় একজন কর্মকর্তা এ বছর মে মাসে নিখিল গুপ্তকে হত্যাকাণ্ড ঘটাতে নিয়োগ করে। এর আগে ওই কর্মকর্তাকে নিখিল গুপ্ত বলেছেন তিনি মাদক ও অস্ত্র পাচারের সঙ্গে যুক্ত। এরপর ‘হিটম্যান’ হিসেবে সাহায্য করবে এমন বিশ্বাসে একজন ‘অপরাধী’র সঙ্গে কথা বলেন নিখিল। ওই অপরাধী প্রকৃতপক্ষে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট এডমিনিস্ট্রেশনের (ডিইএ) ছদ্মবেশধারী এজেন্ট। কানাডায় শিখ নেতা নিজার হত্যার পরের দিন ডিইএর এই এজেন্টের কাছে নিখিল গুপ্ত লিখে পাঠান যে, নিজারও তাদের টার্গেট ছিলেন। ‘আমাদের আরও অনেক টার্গেট আছে’। মার্ডার-ফর-হায়ার এবং মার্ডার-ফর-হায়ার ষড়যন্ত্রের দুটি অভিযোগের মুখোমুখি নিখিল গুপ্ত। যদি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয় তাহলে সর্বোচ্চ ২০ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে তার। 

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status