ঢাকা, ২৫ জুন ২০২২, শনিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

কলকাতা কথকতা

বিজেপি নেতারা এ সি ঘরে বসে ফেসবুক রাজনীতি করেন- অর্জুন

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা

(১ মাস আগে) ২৩ মে ২০২২, সোমবার, ৯:৪৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১:১২ অপরাহ্ন

অভিষেক বন্দোপাধ্যায় এর কামাক স্ট্রিট অফিসে ফের তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর অর্জুন সিং এর পরিকল্পনা ছিল যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভাটপাড়ায় তাঁর নিজের এলাকায় ফিরে যাওয়া। কিন্তু, যাওয়া বললেই কি আর যাওয়া যায়। ৩৯ মাস পরে হারানিধি ফিরে পেয়ে বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের উৎসাহ ছিল দেখার মত। এলাকায় এলাকায় সম্বর্ধনা। শ্যামনগর তৃণমূল পার্টি অফিসে তো অর্জুন এর গাড়ির কনভয় আটকেই গেলো। এরই মধ্যে মানবজমিনকে টেলিফোন সাক্ষাৎকার দিয়ে অর্জুন জানালেন, বিজেপিতে দম বন্ধ হয়ে আসছিলো। ওই পার্টিতে বেশি ঠান্ডা ঘরে বসে ফেসবুক রাজনীতি হয়। ওটা আমার পোষায় না। আমি মাঠে ময়দানে রাজনীতি করার লোক। এটা বুঝতে ৩৯ মাস লেগে গেল? অর্জুন বললেন, না, ৩৯ মাস নয়, বিজেপির রাজনীতির সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছিলো।

বিজ্ঞাপন
পাটের নিয়ন্ত্রক মূল্য নিয়ে বিজেপি সরকার কিছু করেনি। আমি যে অঞ্চলে রাজনীতি করি সেখানে বেশিরভাগ জুট মিল। এরা শেষ হয়ে যাচ্ছিলো। আমার পক্ষে চুপ করে বসে দেখা সম্ভব ছিলোনা। মমতাদি ব্যাপারটা বুঝেছিলেন। এদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন।  আমি সেই কারণেই দিদির হাত শক্ত করতে তৃণমূলে ফিরলাম। অর্জুন জানান কদিনের মধ্যেই তাঁর পুত্র পবনও তৃণমূলে ফিরবে। বিজেপি সাংসদ পদ থেকে কি তিনি ইস্তফা দেবেন? জ্বলে উঠলেন অর্জুন --- আগে শিশির অধিকারী, দিব্যেন্দু অধিকারীদের তৃণমূল এর সাংসদ পদ ছাড়তে বলুন। ওঁরা ছাড়লে আমিও ছাড়ার কথা ভাববো। এই শিশির অধিকারী শুভেন্দু অধিকারীর বাবা, দিব্যেন্দু ভাই। শুভেন্দু একদিন আগেও অর্জুনের নেতা ছিলেন।  আজ তিনি প্রবল প্রতিপক্ষ। রাজনীতির পথ এতটাই সর্পিল।  

পাঠকের মতামত

copy (বিজেপি নেতারা এ সি ঘরে বসে ফেসবুক রাজনীতি করেন- অর্জুন) -paste from বিএনপি নেতারা এ সি ঘরে বসে ফেসবুক রাজনীতি করেন- বাংলাদেশের জনৈক ক্ষমতশীন দলের নেতা।

Raju
২৪ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ৩:৪৬ পূর্বাহ্ন

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

কলকাতা কথকতা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com