ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কলকাতা কথকতা

কলকাতা কথকতা

শহরের ঘড়িবাবু সংবর্ধনা পেলেন, টিক টক শব্দ না শুনলে ঘুমই আসে না

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

(১ মাস আগে) ১৯ এপ্রিল ২০২২, মঙ্গলবার, ৩:১২ অপরাহ্ন

তার পরিচয় তিনি কলকাতার ঘড়িবাবু। কয়েক দশক ধরে অ্যান্টিক ক্লক সারিয়ে আর বিক্রি করে দিন গুজরান করছেন তিনি। মোহাম্মদ মাসুদ আলমের বয়স ষাট। এখনো তিনি গার্ডেনরিচ থেকে আড়াইঘণ্টা পায়ে হেঁটে মহাত্মা গান্ধী রোড আর সেন্ট্রাল এভিনিউয়ের সংযোগস্থলে নিজের দোকানে পৌঁছান ঘড়ির কাঁটা ধরে। কলকাতার নাগরিকরা তাদের ঘড়িবাবুকে সংবর্ধনা দিল। হাতে তুলে দেয়া হলো মানপত্র, নতুন জামাকাপড় আর পাঁচ হাজার টাকার সম্মানি।  অভিভূত ঘড়িবাবু বললেন, দশ বছর বয়সে আমার বাবা আমাকে কাজ শিখিয়েছিলেন। বলেছিলেন, কাস্টমারদের কাছে সৎ থাকতে। তার সেই উপদেশ আজও আমি অক্ষরে অক্ষরে পালন করি।

 

পালন যে করেন তার প্রমাণ সারা ভারত থেকে অ্যান্টিক ঘড়ি সারাতে মাসুদ আলমের কাছে অর্ডার আসে। এখনো তিনি বিক্রি করেন অ্যান্টিক ঘড়ি। তার দোকানে গেলে চোখে পড়ে  ফ্রেঞ্চ, জাপানিজ, আমেরিকান, জার্মান ঘড়ি

বিজ্ঞাপন
ভারতীয় ঘড়িও আছে। দাম সাত হাজার থেকে শুরু করে পঞ্চাশ হাজার পর্যন্ত। ঘড়িবাবু নিজের কাজ করে চলেন সকলের অজান্তে। সংবর্ধনা পেয়ে বড় কুন্ঠিত আলম সাহেব। ষাট বছরের মানুষটি বললেন, কি আর এমন করেছি, ঘড়ি সারাই ছাড়া আর কিছু তো জানি না।  সময়কে যে বশে রেখেছেন মোহাম্মদ মাসুদ আলম তা তিনি নিজেই জানেন না।

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com