ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

খেলা

মুশফিকের সুইপে আপত্তি নেই ডমিঙ্গোর, তবে...

স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে
১৪ মে ২০২২, শনিবার

চট্টগ্রামে সাকিব আল হাসান ছাড়াও আলোচনার অন্যতম নাম মুশফিকুর রহীম। জাতীয় দলের এই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে অবসরের গুঞ্জন টেস্ট সিরিজেও দারুণভাবে ছড়াচ্ছে। সেই সঙ্গে তার রিভার্স সুইং, ব্যাটিং ফর্মে না থাকা নিয়েও চলছে নানা কথোপকথন। যদিও এই সবকিছুতে কান দেয়ার পাত্র নন তিনি। নিজের মতোই ঘণ্টার পর ঘণ্টা করে যাচ্ছেন ব্যাটিং অনুশীলন। দল মাঠে আসার আগে চলে আসেন তিনি। আবার দল চলে গেলেও নেট বোলারদের নিয়ে তিনি ব্যস্ত থাকেন। গতকাল দেখা গেল তিনি দলের লেজের ব্যাটসম্যানদের শেখাচ্ছেন ব্যাটিংও। কোচের মতোই ছিল তার আচরণ। তবে প্রশ্ন দু’টি থেকেই যাচ্ছে তিনি কি ফিরবেন ফর্মে! আর তার আত্মঘাতী সুইপ শট কি ছাড়তে পারবেন এই সিরিজে! অন্যদিকে সব শেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে দলের ব্যাটিং ধস এখনো দুঃস্বপ্নের নাম

বিজ্ঞাপন
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের আগে সাগরিকার সংবাদ সম্মেলনে টাইগারদের প্রধান কোচ এই সব বিষয় নিয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেন। বিশেষ করে মুশফিকের সুইপে তার আপত্তি নেই বলেই জানান। তবে সেটি কখন খেলতে হবে সেটি ঠিক করতে বললেন এই ব্যাটসম্যানকেই। তিনি বলেন, ‘রিভার্স সুইপে মুশফিক দুর্দান্ত, অতীতে এই শটে অনেক রানও করেছেন। এই শট নিয়ে অনেক আত্মবিশ্বাসীও তিনি। স্রেফ সময়টা গুরুত্বপূর্ণ, কখন এই শট খেলবেন। কাভার ড্রাইভও যেমন, খুব সুন্দর শট। কিন্তু বাঁহাতি ব্যাটসম্যান হলে প্রথম ২০-৩০ বলের মধ্যে কাভার ড্রাইভ খেলতে গেলে ঝুঁকি থাকবে। ৫০-৬০ বল খেলার পর কাভার ড্রাইভে সমস্যা নেই। ব্যাপারটি তাই হলো, কখন শটটি খেলছে।’ তবে কেন প্রধান কোচ ডমিঙ্গো মুশফিককে এই শট খেলতে বাধা দিতে চান না তাও জানিয়েছেন অকপটে। তিনি বলেন, ‘ধরুন, ওপেনিং ব্যাটসম্যান কাভার ড্রাইভ করতে গিয়ে আউট হলো বা মিড উইকেটের দিকে খেলতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হলো, এটা খেলা বন্ধ করতে বলবেন? কোনো শট নিয়ে যদি কারও আত্মবিশ্বাস থাকে, আস্থা থাকে এবং যদি সে মনে করে এটা ভালো বিকল্প, সেই শট খেলায় সমস্যা থাকতে পারে না। আমার মতে, শট খেলার সময়টা গুরুত্বপূর্ণ, কখন শটটি খেলা উচিত এবং কেন ওই শট খেলা প্রয়োজন।’ অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই টেস্টে ব্যাট হাতে দারুণ ভাবে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ দল। দুই ম্যাচের দু’টি ইনিংসে টাইগাররা অলআউট হয়েছেন একশ’ রানের নিচে। তবে প্রধান কোচ মনে করেন এমন পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি হবে না শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। তার মতে প্রায় এক মাস পেরিয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যাটিং বিপর্যয়ে তাই এর প্রভাব পড়বে না চট্টগ্রাম টেস্টে।
অন্যদিকে সাকিব আল হাসান দলে খেলবেন কিনা তা এখনো নিশ্চিত নয়। তার পরিবর্তে একাদশ জানানোর পরিকল্পনাও করে ফেলেছেন প্রধান কোচ ডমিঙ্গো। তিনি বলেন,  ‘বোলিং করতে পারে এমন কাউকে আমাদের বিবেচনা করতে হবে (সাকিব না খেললে)। আমাদের জন্য এটা চ্যালেঞ্জিং। ইয়াসির রাব্বি যেমন দারুণ কয়েকটি ইনিংস খেলেছে। কিন্তু আমাদের এমন কাউকে প্রয়োজন যে কিনা ১৫-২০ ওভার বোলিং করতে পারে। মুমিনুলের ১০-১৫ ওভার বোলিং করার আত্মবিশ্বাস আছে কিনা, নিশ্চিত নই। শান্তও বোলিং করছে, কিন্তু দিনে ৬-৭ ওভার করার মতো নয়।’ এছাড়াও  ৬ ও ৭ নম্বরে ব্যাট করতে পারেন এমন কাউকেই একাদশে রাখার পরিকল্পনা কোচের।  তার মানে তিনি চাইছেন দলে একজন অলরাউন্ডার যেন সাকিব না খেললেও তার অভাব কিছুটা হলেও পূরণ করা সম্ভব হয়। তিনি বলেন, ‘৬-৭ নম্বরে ব্যাটিং এবং ১০-১৫ ওভার বোলিং করতে পারে, এমন কাউকে আমরা বছর দুয়েক ধরেই খুঁজছি। এরকম কেউ যে দলে আছে, তারা খুব ভারসাম্যপূর্ণ প্রতিপক্ষকে অলআউট করার জন্য। আমরা এখনও এমন কাউকে খুঁজছি, সাকিব না থাকলে যে কাজটি করতে পারবে। সাকিব থাকলে কাজটা সহজ। কিন্তু সাকিবকে খুব বেশি সময় পাওয়া যায় না।’ এছাড়াও ডমিঙ্গো জানিয়েছেন, সাকিব খেলতে না পারলে একাদশের বিবেচনায় প্রবলভাবেই রাখা হবে মোসাদ্দেক হোসেনকে। প্রধান কোচ বলেন, ‘সে (মোসাদ্দেক) অবশ্যই আমাদের ভাবনায় আছে। বোলিংয়ে সে দলকে কিছু দিতে পারে। সাকিব খেলতে না পারলে মোসাদ্দেক খেলার জন্য ভালোভাবেই বিবেচনায় আছে।’

 

খেলা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com