ঢাকা, ২৪ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বাংলারজমিন

বান্দরবানে পুকুর ভরাট করে দোকানঘর নির্মাণ

বান্দরবান প্রতিনিধি
১৪ মে ২০২২, শনিবার

বান্দরবান শহরের প্রাণকেন্দ্র সেগুনবাগিচা এলাকায় একটি বিশাল পুকুর ভরাট করছে প্রভাবশালী এক ব্যক্তি। রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে তিনি পুকুরটি মাটি দিয়ে ভরাট করে দোকানঘর নির্মাণ করছেন। এতে করে স্থানীয় লোকজনের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। এদিকে এ বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সরজমিন ওই এলাকা পরিদর্শন করে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে স্থানীয় পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
অভিযোগ ওঠেছে, কোনো কিছু তোয়াক্কা না করেই জেলা কৃষক লীগের ভুমি ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক মনির আহাম্মদ চৌধুরী নামে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি দিনে-রাতে অন্য জায়গা থেকে ট্রাকে-পিকআপে করে মাটি এনে পুকুর ভরাট করে দোকানঘর নির্মাণ অব্যাহত রেখেছেন। ঈদের বন্ধের সুযোগ নিয়ে মনির আহম্মেদ চৌধুরী বান্দরবান পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্র সেগুনবাগিচা এলাকায় বিশাল পুকুর মাটি দিয়ে ভরাটের কাজ শুরু করেন। পুকুরটি এতদিন সাধারণ মানুষ সরকারি খাস জায়গা বলে জেনে এলেও মনির আহম্মেদ চৌধুরী পুকুরটিকে তাদের পারিবারিক সম্পত্তি দাবি করেন। তিনি বলেন, নিজেদের প্রয়োজনে তাদের ‘মালিকানাধীন’ পুকুরটির কিছু অংশ মাটি ভরাট করে সেখানে দোকানঘর নির্মাণ করছেন।
তবে স্থানীয় লোকজন জানান, পুকুরটি শহরের মধ্যেই বিশাল এলাকাজুড়ে। আগে লোকজন এই পুকুরে গোসল করতেন এবং ব্যবহারের পানি নিয়ে যেতেন। কিন্তু কয়েক বছর ধরে পুকুরটি মজা পুকুরে পরিণত হয়। গোসল ও ব্যবহার অনুপযোগী রাখা হয়

বিজ্ঞাপন
স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ পুকুরটি মনির আহম্মেদ চৌধুরী ভরাটের উদ্দেশ্যেই ব্যবহার অনুপযোগী করে রাখেন। আর সুকৌশলে তিনি ঈদের ছুটিতে মাটি দিয়ে ভরাট করে সেখানে দোকানঘর নির্মাণ করছেন।
সরজমিন সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, পুকুরটি বান্দরবান পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডেও সেগুন বাগিচা এলাকায় প্রধান সড়কের পাশে অবস্থিত। সেখানে উত্তর অংশে মনির আহম্মেদ চৌধুরী অন্য এলাকা থেকে মাটি এনে পুকুর ভরাটের কাজ করছেন। এবং উক্ত এলাকায় অন্তত ৫টি দোকানঘর নির্মাণের কাঠামো দাঁড় করেছেন। টিন, কাঠ ও বাঁশ দিয়ে তৈরি করা দোকানগুলো যেকোনো সময় চালু করা হবে। এ বিষয়ে মনির আহম্মেদ চৌধুরী বলেন, আমি কোনো পাহাড় কাটছি না, পুকুরও ভরাট করছি না। পুকুরটি আমাদের পারিবারিক সম্পত্তি। পুকুরের কিছু অংশ মাটি দিয়ে ভরাট করে কয়েকটি দোকানঘর নির্মাণ করছি। এতে কার কি! এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর বান্দরবান কার্যালয়ের কর্মকর্তা মো. আবদুস সালাম বলেন, পুকুর মাটি দিয়ে ভরাটের খবর পেয়ে তিনি সরেজমিন সেগুনবাগিচা এলাকায় গিয়ে দেখেন পুকুরের উত্তর অংশ মাটি দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে, সেখানে স্থাপনা নির্মাণের কাজ চলছে। তিনি পুকুর ভরাটের বিষয়ে প্রতিবেদন তৈরি করে পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম কার্যালয়ে প্রেরণ করেছেন। আবদুস সালাম বলেন, পুকুর বা জলাশয় চাইলেই ভরাট করা যায় না। এটি কারো পারিবারিক/ব্যক্তিগত সম্পত্তি হলেও জলাশয় বা পুকুর ভরাট করা যায় না।

 

বাংলারজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com