ঢাকা, ২৪ মে ২০২২, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কলকাতা কথকতা

বিবেকানন্দ, নেতাজি, বিধান রায় এর স্মৃতিধন্য চাচার হোটেল বন্ধ হয়ে গেল চিরতরে

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

(১ সপ্তাহ আগে) ১১ মে ২০২২, বুধবার, ৯:৪৩ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩২ অপরাহ্ন

ফাইল ফটো

বয়স হয়েছিল ১৪৭। চিরতরে বন্ধ হয়ে গেল কলকাতার ঐতিহ্যবাহী চাচার হোটেল। উত্তর কলকাতার একটি ল্যান্ডমার্ক চিরতরে মুছে গেল। এই চাচার হোটেলে স্বামী বিবেকানন্দ খেতে আসতেন ফাউল কাটলেট, নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর অত্যন্ত পছন্দ ছিল চাচার হোটেলের মাটন শিক কাবাব, আধুনিক বাংলার রূপকার বিধান চন্দ্র রায় প্রায়ই খেতে আসতেন চাচায়। না, প্রোমোটারের থাবা কিংবা শরিকি দ্বন্দ্ব নয়, চাচা বন্ধ হচ্ছে দেখাশোনা করার লোকের অভাবে আর লগ্নিকারীর রেঁস্তোরা ব্যবসায় আগ্রহ হারানোয়। অন্যতম মালিক অনুজ কুমার পাত্র জানান, তাঁর দাদা স্বাস্থ্যর কারণে আর ব্যবসায় বসতে চান না। নিজের স্ত্রী গোপাকে ২০১৮ সালে হারানোর পর তিনি নিজেও ব্যবসায় অনাগ্রহী। ছেলে চাকরি সূত্রে বাইরে থাকে পরিবারের কেউই রেঁস্তোরা ব্যবসায় আগ্রহী নয়। এই অবস্থায় চাচার হোটেল বন্ধ করা ছাড়া অন্য কোনও উপায় নেই। ১৮৭৫ সালে অনুজ পাত্রর প্রপিতামহ গোসাঁইদাস পাত্র এই হোটেল শুরু করেন

বিজ্ঞাপন
চাচা নামে এক চা বিক্রেতার কাছ থেকে জমিটা কিনেছিলেন বলে হোটেলের নাম রাখেন চাচাস। এখানকার ফিশ ফ্রাই, ফাউল কাটলেট, মাটন শিক কাবাব এর স্বাদ মনীষীরা নিতে আসতেন। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চাচার হোটেলে ইদানিং পাওয়া যেত চাইনিজ। সব ইতিহাসের গর্ভে চলে গেল। কলকাতার অন্যতম এই ল্যান্ডমার্ক চিরতরে হারিয়ে গেল।     

পাঠকের মতামত

জয়ন্ত বাবুকে অনেক ধন্যবাদ জানায়, এইরূপ একটি খবর গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনার জন্য। কারণ শহর কলকাতার ঐতিহ্য এই দোকানের সাথে জড়িয়ে আছে। প্লিজ ঠিকানাটা একটু দেবেন। উনার পরিবারের কারোর সাথে দয়াকরে যদি একটু আপনার মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারতাম খুবই উপকৃত হতাম। এইরূপ ঐতিহ্যবাহী কোন দোকানের সাথে আমিও কাজ করতে চাই। ব্যবসা এগিয়ে নিয়েজেতে চাই। আমি উনাদের সাথে ব্যবসা করতে চাই। দয়া করে এই সহযোগিতা করে ব্যধিত করবেন।

Pintu Das
১১ মে ২০২২, বুধবার, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com