ঢাকা, ৭ ডিসেম্বর ২০২২, বুধবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

বিশ্বজমিন

বিশ্ব ব্যাংকের সতর্কতা

২০৩৫ সাল নাগাদ বাংলাদেশের জিডিপি ৪ শতাংশের নিচে নেমে আসতে পারে

মানবজমিন ডেস্ক

(২ মাস আগে) ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:৩৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৮ পূর্বাহ্ন

mzamin

যদি কোনো অর্থনৈতিক সংস্কার বাস্তবায়িত না হয়, তাহলে ২০৩৫ সাল নাগাদ বাংলাদেশের জিডিপি ৪ শতাংশের নিচে নেমে আসবে। এমন সতর্ক বানী দিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক। সংস্থাটি বলছে, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সংস্কারের পথে তিনটি বড় বাধা রয়েছে। এগুলো হচ্ছে, বাণিজ্য প্রতিযোগিতার হ্রাস, একটি দুর্বল ও অরক্ষিত আর্থিক খাত এবং ভারসাম্যহীন ও অপর্যাপ্ত নগরায়ন। যদি এই তিনটি প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করা যায়, তাহলে উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে এবং প্রবৃদ্ধি আরও টেকসই হবে। 

ফাইবারটুফ্যাশনের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ এখন বিশ্বের সবথেকে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির ১০ দেশের একটি। কিন্তু অর্থনৈতিক এই উন্নয়ন কোনো স্থায়ী বিষয় নয়। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্রুত উন্নয়নশীল দেশগুলোতে প্রবৃদ্ধি সবসময় উচ্চ ঝুঁকির মধ্যে থাকে। খুব কম দেশই দীর্ঘ সময়ের জন্য উচ্চ প্রবৃদ্ধি ধরে রেখেছে। শীর্ষ দশে থাকা দেশগুলোর মাত্র এক-তৃতীয়াংশই পরবর্তী দশকে উচ্চ প্রবৃদ্ধির ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছে।

অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে বিশ্বব্যাংক কিছু সুপারিশ করেছে। যেমন, রপ্তানির প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পণ্যে বৈচিত্র্য আনার বিষয়টি রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
এ ছাড়া বাংলাদেশের শুল্ক হার অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি, এ কারণে বাণিজ্য সক্ষমতা কমছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ব্যাংকিং খাত প্রসঙ্গে বিশ্বব্যাংক বলেছে, ভবিষ্যতে অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। গত চার দশকে আর্থিক খাতে উন্নতি হলেও তা এখনও পর্যাপ্ত নয়।

অন্যদিকে, বাংলাদেশের পরবর্তী উন্নয়ন পর্যায়ের জন্য নগরায়ন অপরিহার্য। ভারসাম্যপূর্ণ নগরায়নের দিকে মনোযোগ দেয়া উচিত বলে প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে। বাংলাদেশের পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক এবং আইএমএফ’র প্রাক্তন কর্মকর্তা আহসান এইচ মনসুর বলছেন, বিশ্বব্যাংক যা বলেছে তার সঙ্গে আমি সম্পূর্ণ একমত। আমাদের প্রথম প্রজন্মের সংস্কার করা হয়েছে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের সংস্কার করতে হবে। কিন্তু আমরা এখনও দ্বিতীয় প্রজন্মের সংস্কার শুরু করিনি। তিনি আরও বলেন, ভিয়েতনামসহ অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ ক্রমেই পিছিয়ে পড়ছে। বর্তমান নীতির মাধ্যমে আমদের মাথাপিছু আয় ১২ হাজার মার্কিন ডলারে নিয়ে যেতে পারি না। মানবসম্পদ উন্নয়নে আমাদের কোনো বিকল্প নেই।
 

পাঠকের মতামত

আমার কাছে ডিডিপির হিসাব শুধু একটা হিসাব মাত্র। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিষয়ঃ ১। বেকারত্বের সংখ্যা কত? কি হারে প্রতিবছর বেকারত্বের হার কমছে? ২। দেশের আইনের শাসনের কতটুকু উন্নতি হয়েছে? ৩। দেশের বিচার ব্যবস্থা কতটুকু উন্নতি হয়েছে? ৪। জবাবদিহিতা কতটুকু কাজ করছে? ৫। কথা বলার স্বাধীনতা, গণতন্ত্র, খাদ্য, শিক্ষা,চিকিতসা, বাসস্থান কতটুকু আছে এবং নিশ্চিত হয়েছে কিনা?

Fakhrul Islam
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, বুধবার, ৮:২৮ পূর্বাহ্ন

Development is not issue. Our govt is fully corrupted.They are looting money from common people . Big projects and handing over to India for their own interest . Very soon this country will be like Srilanka.

Tanweir
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, বুধবার, ১:২৮ পূর্বাহ্ন

পৃথিবীর আর কোন দেশের জনগণ এতো বেশি ভ্যাট, ট্যাক্স, চার্জ, ট্যারিফ, বিল, টোল দেয় কি না! আমার জানা নাই, আমাদের না খাইয়া থাকার দশা।

M Latiful Kabir
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, বুধবার, ১২:০১ পূর্বাহ্ন

টেঁকসই উন্নয়নের জন্য টেকসই রাষ্ট্র সরকারের দরকার যা গনতন্ত্রের মাধ্যমে অর্জিত হয়।

A R Sarkar
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ৭:৫৩ অপরাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status