ঢাকা, ১৮ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

বিশ্বজমিন

জাওয়াহিরি হত্যার বদলায় মরিয়া জঙ্গিরা, বিশ্বজুড়ে মার্কিন নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহ্বান

মানবজমিন ডেস্ক

(২ সপ্তাহ আগে) ৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:৩৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৫:৩২ অপরাহ্ন

বিদেশে থাকা নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আল-কায়দা প্রধান আয়মান আল-জাওয়াহিরিকে হত্যার ফলে সংগঠনটি মার্কিনিদের টার্গেট করে হামলা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা করছে দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাওয়াহিরির মৃত্যু আল-কায়দা সমর্থক এবং সংশ্লিষ্ট অন্য সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে মার্কিন ঘাটি ও সেনাদের টার্গেট করে হামলায় উৎসাহিত করতে পারে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

খবরে জানানো হয়, রোববার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে মার্কিন ড্রোন হামলায় ৭১ বছর বয়স্ক জাওয়াহিরি নিহত হন। পরদিন সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জাওয়াহিরিকে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে আল-কায়েদার সন্ত্রাসী হামলায় জাওয়াহিরির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল বলে মনে করা হয়। এ হামলায় তিন হাজারের বেশি মানুষ নিহত হন। এছাড়া ১৯৯৮ সালে কেনিয়া ও তানজানিয়ায় মার্কিন দূতাবাসে বোমা হামলায় ভূমিকার জন্যও জাওয়াহিরিকে অভিযুক্ত করা হয়। এতে ২২৩ জন নিহত হয়েছিলেন। ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় থাকা জাওয়াহিরির মাথার জন্য ২৫ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।

বিজ্ঞাপন
২০১১ সালে ওসামা বিন লাদেন নিহত হওয়ার পর আল-কায়েদার প্রধান হন জাওয়াহিরি। তার আগে তিনি আল-কায়েদার মূল সংগঠক ও কৌশল নির্ধারণকারী ছিলেন। 

বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলেন, ৩১শে জুলাই জাওয়াহিরিকে হত্যার পর বিশ্বজুড়ে মার্কিনবিরোধী সহিংসতা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য বলছে, সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে থাকা মার্কিন স্বার্থে আঘাত হানার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আত্মঘাতী হামলা, গুপ্তহত্যা, অপহরণ, ছিনতাই কিংবা বোমা হামলার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। তাই মার্কিন নাগরিকদের উচ্চ পর্যায়ের সতর্কতা এবং পরিস্থিতি সম্পর্কে দারুণ ধারণা নেয়ার বিষয়ে উৎসাহিত করা হচ্ছে। 

আল-কায়দা একসময় অল্প কিছু এলাকায় কার্যক্রম চালালেও এখন তারা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। মূলত যেসব দেশে আইনের শাসন অনুপস্থিত সেসব দেশকে আস্তানা গড়তে কাজে লাগাচ্ছে জঙ্গি সংগঠনটি। সোমালিয়ায় ভয়ংকর হয়ে উঠেছে জিহাদি দল আল-শাবাব, যা আল-কায়দারই একটি অংশ। আফ্রিকার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় দেশগুলো জিহাদিদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। আল-কায়দার পাশাপাশি, ইসলামিক স্টেটও সেখানে ক্যান্সারের মতো ছড়িয়ে পড়ছে।
 

পাঠকের মতামত

হেডলাইন এরকম হলে মন্দ হতোনা; "প্রতিশোধে মরিয়া বল কায়েদা" প্রতিশোধ নিতে গেলে জঙ্গি হবে আর যারা গুপ্ত হত্যা করে তারা জঙ্গি হবে না তা বড়ই বেমানান।

Yasin Khan
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:০৬ অপরাহ্ন

হত্যার বদলে হত্যা কোন সমস্যার সমাধান নয় এতে প্রতিশোধ পরায়ণতা বাড়ে, পুনরায় হত্যার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। তার ধারাবাহিকতা পক্ষ প্রতিপক্ষ জিঘাংসায় ভোগে। বরং প্রতিটা অপরাধীকে বিচারের আওতায় এনে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিয়ে মূলঘটনার মূল উৎঘাটন করে দায়ীদের শাস্তি দিলে বা শাস্তি রহিত করলে জিঘাংসার তীব্রতা কমে কিংবা বিলীন হয়, ন্যায় অন্যায় সম্পর্কে মানুষ অবহিত হয়, তাতে মানুষ অন্যায়কে অন্যায় আর ন্যায়কে ন্যায় বলে নিজেদের সংশোধনের সুযোগ পায়। কিন্ত অতর্কিত হামলায় কোন হত্যার ন্যায় অন্যায়ের পার্থক্য ধামাচাপা পরে প্রতিপক্ষে ক্ষোভের রক্তক্ষরণ চলতে চলতে আবারো নৃশংসতার ঘটনা চলমান ভাবে ঘটতে থাকে। আমেরিকা শক্তিশালী দেশ তারা যদি ন্যায়বিচারকে লালন করে তাহলে সমগ্র বিশ্ব তা অনুসরণ করবে। নয়তো হিতে হবে বিপরীত।

আলমগীর
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১:৪৬ পূর্বাহ্ন

আলকায়দার নিজস্ব একটি আদর্শ আছে। আমাদের পছন্দ নয় তেমনি আমেরিকার পছন্দ নয়। আমেরিকার একটি নিজস্ব আদর্শ হল মুসলিম হত্যা যা মুসলিম বিশ্বের পছন্দ নয় । নিজে হত্যা করছে, ইসরায়েলিদের দিয়ে ও হত্যা করাচ্ছে - ফিলিস্তিনিদের। কোন সংগঠনের শীর্ষ নেতা হত্যা করে আদর্শ দমানো যায় না । নতুন নেতা স্থলাভিষিক্ত হয় । বরং হত্যার প্রতিশোধ নিতে ঐ সংগঠনের কর্মীরা মরিয়া হয়ে উঠে । আমেরিকা নিজেও তা বুঝে ।সতর্কতা ও জারি করেছে । তাই আমার পরামর্শ হল কারণ দূর করা । মুসলিম হত্যা বন্ধ করা ।

Kazi
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

বিশ্বজমিন থেকে সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশি আরও ৪ এজেন্সিকে অনুমোদনের সুপারিশ/ মালয়েশিয়ার মন্ত্রী বললেন- প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধেও কাজ হবে না

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status