ঢাকা, ১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

খেলা

নিজের সেরা টাইমিংও করতে পারলেন না ইমরানুর

সামন হোসেন, বার্মিংহাম (যুক্তরাজ্য) থেকে
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার

গেমসের মাদার ইভেন্ট দেখতে সকাল থেকেই আলেকজান্ডার স্টেডিয়ামের গ্যালারি পরিপূর্ণ। যেখানে আধিপত্য ছিলো জ্যামাইকা ও কেনিয়ার। সকাল থেকে আলেকজান্ডারে শুরু হয় লং-জাম্প, হাইজাম্প, মেয়েদের ডিসকাস থ্রো, শটপুট। তবে এসব ছাপিয়ে সকলের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলো ১০০ মিটার স্প্রিন্ট। যেখানে ৯টি হিটে অংশ নেয় ৭০জন স্প্রিন্টার। ১০০ মিটারে অংশ নেয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের দুই স্প্রিন্টারের। কোভিডের কারণে আগেই ছিঁটকে গেছেন রাকিবুল হাসান। ট্র্যাকে নামার সুযোগ পেয়েছিলেন বিলেত প্রবাসী স্প্রিন্টার ইমরানুর রহমান। তবে জন্মস্থান বিলেতের বার্মিংহামে অনুষ্ঠিত এবারের কমনওয়েলথ গেমসে নিজের ক্যারিয়ার সেরা টাইমিংও করতে পারলেন না ইমরান। সাত নম্বর হিটে অংশ নিয়ে ইমরান তৃতীয় হন।

বিজ্ঞাপন
১০.৪৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে দৌড় শেষ করেন সবশেষ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে জাতীয় রেকর্ড গড়া এই স্প্রিন্টার। ৭০ জনের মধ্যে হন ৩৩তম। যুক্তরাষ্ট্রে চলতি মাসে অনুষ্ঠিত ওর্য়াল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে ১০.৪৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে বাছাইপর্ব উতরে ছিলেন ইমরান। তবে দুটি আসরের কোনটিতেই নিজের সেরা টাইমিং করতে পারেননি তিনি।  কমনওয়েলথ গেমসের তথ্যমতে ইমরানের ক্যারিয়ার সেরা টাইমিং ১০.৩২। এটা পারলেও প্রথমবারের মতো কমনওয়েলথ গেমসের সেমিফাইনালে দৌড়াতে পারতেন ২২ বছরের পুরানো জাতীয় রেকর্ড ভাঙা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৮ বছরের এই অ্যাথলেট। বাংলাদেশের কোনো অ্যাথলেট সেমিতে খেলতে না পারলেও ১০০ মিটারে পদকের আশা করছে শ্রীলঙ্কা। ছয় নম্বর হিটে ১০.০৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে প্রথম হয়েছেন লঙ্কার ২৭ বয়সী স্প্রিন্টার উপুন আবেকুন। তাকে ঘিরেই পদকের আশা করছে শ্রীলঙ্কা। কারণ, শ্রীলঙ্কার এই স্প্রিন্টারের ক্যারিয়ার সেরা টাইমিং ৯.৯০ সেকেন্ড। ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপেও ১০ সেকেন্ডের নিচে দৌড় শেষ করেছেন সবশেষ এসএ গেমসে স্বর্ণ জয়ী এই অ্যাথলেট। সেমিফাইনাল কোয়ালিফাই করতে না পারলেও ইমরানের চেয়ে কম সময়ে দৌড় শেষ করেছেন পাকিস্তানের সাজের আব্বাস। তিনি সময় নিয়েছেন ১০.৩৭ সেকেন্ড। আগামী সপ্তাহে তুরস্কের কোনিয়াতে  শুরু হবে ইসলামি সলিডারিটি গেমস। যেখানে ইমরানের সঙ্গে দৌড়াবেন এই আব্বাস।   তবুও খুশি সুমাইয়া এদিকে মেয়েদের স্প্রিন্টে তিন নম্বর হিটে ছিলেন সুমাইয়া দেওয়ান। সাত জন প্রতিযোগীর মধ্যে সবশেষে দৌড় শেষ করেও তৃপ্ত ১৭ বছর বয়সী বিকেএসপির এই অ্যাথলেট। ৪৬ জনের মধ্যে ৪২তম হন সুমাইয়া। কমনওয়েলথ গেমসের মতো বড় মঞ্চে দৌড়াতে পেরে খুশি সুমাইয়া বলেন, ‘এটা আমার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয়  আন্তর্জাতিক আসর। আর আগে এমি কেবল কেনিয়ার নাইরোবিতে জুনিয়র অ্যাথলেটিক্স চ্যাস্পিয়নশিপে অংশ নিয়েছি। তবে সেটা এতো বড় আসর ছিল না’। অলিম্পিকের পর কমনওয়েলথ গেমস অ্যাথলেটদের পরীক্ষার অন্যতম বড় মঞ্চ। এই মঞ্চে অংশ নেন পৃথিবীর বিখ্যাত স্প্রিন্টাররা। সুমাইয়ার সঙ্গেও ছিলেন যুক্তরাজ্যের ডারোল নিতা। তিন নম্বর হিটে প্রথম হওয়া এই স্প্রিন্টারের ঝুলিতে আছে টোকিও অলিম্পিকের ব্রোঞ্চ পদক। এসব কারণে রোমাঞ্চিত সুমাইয়া মিক্সড জোনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘এখানে এসে আমি বুঝতে পারছি আমার কোথায় কোথায় উন্নতি করতে হবে। আসলে যেভাবে স্প্রিন্ট শুরু করতে হয় তাই আমার ঠিক নাই। এভাবে অনেক জায়গা নোটিশ করেছি। এগুলো নিয়ে কাজ করতে হবে। তাহলে আমি এই লেভেলে যেতে না পারলেও সাউথ এশিয়ানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবো।

খেলা থেকে আরও পড়ুন

খেলা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status