ঢাকা, ১৪ জুলাই ২০২৪, রবিবার, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

মত-মতান্তর

গোলাম সাকলায়েনদের ‘অনৈতিক সম্পর্ক’ এবং গাছ বাবার সন্ধানে!

যুক্তরাজ্য থেকে ডাঃ আলী জাহান

(২ সপ্তাহ আগে) ২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯:১৭ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৩:০৫ অপরাহ্ন

mzamin

লেখক

১. চিত্রনায়িকা পরীমনির সাথে ‘অনৈতিক সম্পর্ক রাখার কারণে’ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনকে বাধ্যতামূলক অবসর দেয়ার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। এ সম্পর্কে কিছু বলার আগে এই সপ্তাহে ঘটে যাওয়া ‘গাছ বাবার’ মাজার সম্পর্কিত খবরটি একটু জেনে নেয়া যাক।


২.গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গজিনা গ্রামে শনিবার (২২.০৬.২৪) এক ‘অলৌকিক’ কাণ্ড ঘটেছে। শত শত মহিলা, পুরুষ দলবেঁধে গ্রামে হাজির। উদ্দেশ্য একটাই। সেখানে যে অলৌকিক গাছের খবর বেরিয়েছে সে গাছের  কথা শোনার জন্য পুরুষ, মহিলা, যুবক, বৃদ্ধ, শিশু-কিশোর সবাই দলবেঁধে গজিনা গ্রামে দৌড়ে আসছেন। গাছের সাথে কান লাগিয়ে তার দুঃখ বোঝার চেষ্টা করছেন। কেউ একজন নাকি গাছের কান্না শুনতে পেয়েছে। তারপর আর যায় কোথায়। বাতাসের বেগে সে উদ্ভট কথা ছড়িয়ে পড়ে। গাছের কথা শোনার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন ‘ঐতিহাসিক’সে গ্রামে হাজির হতে থাকে।

বিজ্ঞাপন
মিডিয়ায় খবর রটে যায়। বেড়া দিয়ে মাজার বানানোর প্রস্তুতি চলে। শেষমেষ পুলিশের তদারকিতে গাছটি কেটে ফেলা হয়। গাছ বাবার মাজারের এখানেই সমাপ্তি। খবরটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে প্রচারিত হলে প্রশাসন বাগড়া দিয়েছে। কিন্তু কথা হচ্ছে, গাছের কথা শোনার জন্য যারা এসেছিলেন তারা কেন এলেন?


 

গজিনা গ্রামে গাছের কথা শোনার চেষ্টা!


৩.ইংল্যান্ডে আমি এক ছেলেকে জানি যে পাখির সাথে কথা বলে। গাছের পাতার সাথে কথা বলে। ছেলেটি উড়তে পারে না। তাই পাখির সাথে সহমর্মিতা জানাতে সে তার চুলে এবং নাকের ছিদ্রে পাখির পেখম লাগিয়ে ঘুরাঘুরি করে। গাছের পাতা দিয়ে তৈরি টুপি ব্যবহার করে। আমি নিজের চোখেই তাকে বাগানে পাখির সাথে কথা বলতে দেখেছি, গাছের সঙ্গে গল্প করতে দেখেছি। এই ছেলের পরিচয় একটু পরে দেব। তার সাথে আমার পরিচয় কীভাবে হলো তার বিস্তারিত বলবো।


৪. বিবিসি বাংলার খবর অনুসারে গোলাম সাকলায়েন ও চিত্রনায়িকা পরীমনির মধ্যে ‘অনৈতিক প্রেমের সম্পর্ক ছিল এবং তিনি নিয়মিত পরীমনির বাসায় রাত্রিযাপন শুরু করেন’। খবর অনুসারে পুলিশের এ কর্মকর্তা বিবাহিত এবং এক সন্তানের জনক। বিবাহবহির্ভূত এ সম্পর্ককে আইনের ভাষায় ‘adultery’ বলা হয়। বাংলাদেশি আইনে এটি একটি ফৌজদারি অপরাধ। শাস্তি হচ্ছে ৫ বছরের কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ড। বাধ্যতামূলক অবসরে যাবার কথা বলা হচ্ছে, কিন্তু ফৌজদারি অপরাধের কী হবে? ৫ বছরের
কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ড কিছুই হবে না? ভালো কথা, গোলাম সাকলায়েনই কি সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে প্রথম এ অপরাধটি করলেন? এর আগে কেউ করেননি? তাদের ব্যাপারে কী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল?  প্রশাসনিক ব্যবস্থা মাঝেমধ্যে নেয়া হয়েছে, কিন্তু ফৌজদারি অপরাধের কী হলো?


৫. সরকারি চাকুরীরত অবস্থায়  ব্যভিচারে লিপ্ত হওয়া ব্যক্তিদের তালিকা খুব ছোট নয়। সে তালিকা থেকে আমি মাত্র দুটি উদাহরণ দেব।


৬. আগস্ট ২০২২। বাসায় মাদকদ্রব্য রাখার অভিযোগে এবং ‘অনৈতিকভাবে নাইজেরিয়ান বয়ফ্রেন্ডের সাথে লিভ টুগেদার করার কারণে’ ইন্দোনেশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন কাজী আনারকলিকে নিয়ে ইন্দোনেশিয়া সরকার অভিযোগ উত্থাপন করে। বাংলাদেশ সরকার বাধ্য হয়ে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনে। কূটনৈতিক সুরক্ষা আইন থাকার কারণে জাকার্তা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেনি, তবে বাসা রেইড করে। তৎকালীন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম মিডিয়াকে বলেছিলেন ‘তদন্ত চলছে এবং তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে তাকে কঠিন শাস্তি মোকাবেলা করতে হবে’। ‘চৌকস’ এ নারী  কর্মকর্তাকে এর আগেও যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে প্রত্যাহার করে দেশ আনা হয়েছিল। গৃহকর্মী নিখোঁজের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ ছিল। প্রায় দুই বছর হয়ে গেল! জাকার্তা মিশনের তদন্তের খবর কী? উনি কি দোষী ছিলেন, না ফেরেশতা ছিলেন? কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল তাঁর বিরুদ্ধে? কোনো খবর নেই। সেগুনবাগিচায় অবস্থিত পররাষ্ট্র দপ্তরের অফিস এখানে বড্ড নীরব!


৭. ২২ আগস্ট ২০২১। তৎকালীন জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবিরকে এক মহিলার সাথে সরকারি অফিসে আপত্তিকর অবস্থায় পাওয়ার ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। মিডিয়ায় প্রচণ্ড প্রতিক্রিয়া হয়। বাধ্য হয়ে সরকার তৎকালীন জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে তদন্তে নামে। মার্চ ২০২১ সালে কবির সাহেবের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়। আর সে শাস্তি হচ্ছে ওএসডি  থেকে এক ধাপ নামিয়ে উপসচিব পর্যায়ে নিয়ে আসা। পরবর্তী জীবনে আর কোনো পদোন্নতি না পাওয়া। ব্যাস, এখানেই গল্পের সমাপ্তি।


৮. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাজী আনারকলির বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা না নেয়া (অন্তত এ খবর মিডিয়ায় আসেনি) এবং জামালপুরের তৎকালীন জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে ‘হালকা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার’ কোনো ব্যাখ্যা নেই। কেন এ দুজনের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারি (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা অনুযায়ী চূড়ান্ত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়নি? ভালো কথা, ব্যভিচারের যে বিচারের কথা বাংলাদেশের আইনে বলা হয়েছে তা কি উনাদের ওপর প্রয়োগ হয়েছে? প্রয়োগ না হবার কারণ? নাকি সরকারি কর্মকর্তা হলে বাংলাদেশের ফৌজদারী আইন তাদের ক্ষেত্রে কার্যকর
নয়?


৯. গোলাম সাকলায়েনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থার ব্যাপারে পুলিশের যে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত তা পিএসসি অনুমোদন করতে পারে নাও করতে পারে। নিকট অতীত অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি যে পিএসসি তা অনুমোদন করলেও আইন আদালতের মারপ্যাঁচে পুলিশের এ অভিযুক্ত কর্মকর্তার ফেরেশতা হয়ে বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা প্রবল। শুধুমাত্র কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। ‘প্রেমকে’ এখনই কবরে পাঠিয়ে দেয়া ঠিক হবে না!


১০. আমার মনে হচ্ছে যে, গোলাম সাকলায়েনের সাথে চিত্রনায়িকার ঘনিষ্ঠতার ভিডিও প্রকাশ না পেলে তার কিছুই হতো না। ভিডিও প্রকাশটাই তার জন্য কিছুটা কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। পর্দার অন্তরালে এবং প্রকাশ্যে আধুনিকতার নামে কেউ কেউ ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে adultery কে সমর্থন করলেও তাদেরকে
থামানোর কেউ নেই। সে হিসেবে গোলাম সাকলায়েনের ঘটনাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা মনে করার কোনো কারণ নেই।


১১. ইংল্যান্ডে আমি যে ছেলেটির কথা বললাম সে কিন্তু আমার রোগী। মানসিকভাবে অসুস্থ। মেডিকেলের ভাষায় সে সিজোফ্রেনিয়া রোগে আক্রান্ত। কাজেই সে যখন পাখির সাথে, গাছের সাথে কথা বলে আমরা অবাক হই না। আমরা জানি যে সে বাস্তব জগৎ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এক কাল্পনিক জগতে আছে। তার চিকিৎসা দরকার। সে আমার হাসপাতালে রোগী।  


১২. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাজী আনারকলি, জামালপুরের সাবেক ডিসি আর পরীমনি কাণ্ডের নায়ক পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনের ব্যাপারটি পর্যালোচনা করে আমি বুঝতে পারি মানুষ কেন গাছের কথা শুনতে চায়। গাছের সাথে কথা বলতে চায়। গাছের সুখ-দুঃখের কাহিনী জানতে চায়। মানুষের ওপর থেকে তারা বিশ্বাস হারিয়েছে। ক্ষমতাসীনদের বয়ান আর শুনতে চায় না। বিশ্বাস করতে চায় না। সে কারণেই তারা ‘Schizophrenia’ রোগীর মতো আচরণ করতেও ভয় পাচ্ছে না।


১৩. আইনের অপ-প্রয়োগ দেখে মানুষের ওপর থেকে কি মানুষ বিশ্বাস হারিয়েছে? বর্তমান রাজনৈতিক ব্যবস্থা মানুষের মনে বদ্ধমূল ধারণা দিয়েছে যে ক্ষমতাসীনদের কথা শুনতে নেই। বিশ্বাস করতে নেই। আর সে কারণেই হয়তো গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গজিনা গ্রামে গাছ কথা বলছে একথা শোনার
সঙ্গে সঙ্গে মানুষ পঙ্গপালের মতো ঐদিকে দৌড়িয়েছে। এবং সামনেও দৌড়াবে।


১৪. বাংলাদেশের সমাজের কিছু অংশ কি আসলেই P S Y C H O T I C? মানুষ যখন প্রচলিত সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ভিন্নভাবে বিশ্বাস ও ব্যবহার শুরু করে এবং তাদের কোনো অবস্থাতেই কোনো ব্যাখ্যা দিয়ে বোঝানো যায় না, তখন তাকে আমরা বলি psychosis. প্রশ্ন হচ্ছে আসল সাইকোটিক লোক কারা?

 

লেখক- 

ডাঃ আলী জাহান

কনসালট্যান্ট সাইকিয়াট্রিস্ট, যুক্তরাজ্য

সাবেক পুলিশ সার্জেন, যুক্তরাজ্য পুলিশ

সাবেক সরকারি ( বিসিএস) কর্মকর্তা, বাংলাদেশ।

[email protected]

 

পাঠকের মতামত

এই এক মহা সমস্যা আমাদের দেশে। আপনি যে সিদ্ধান্তই নিবেন, তার পক্ষে- বিপক্ষে যুক্তি দাড় করিয়ে বিভিন্ন গল্প ফাদা হবেই।

Mohsin
২৯ জুন ২০২৪, শনিবার, ৫:৪৮ পূর্বাহ্ন

বাস্তবধর্মী লেখা। কিন্তু কি হবে লিখিয়া! সব সম্ভবের দেশ আমার এই বাংলাদেশ!!

Harun Rashid
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৮:৩৯ অপরাহ্ন

অনেক সুন্দর বাস্তবধর্মী সমসাময়িক প্রসঙ্গ ।আরো বেশি বেশি লিখবেন । Md Maniruzzaman Sarker ২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, 0803 অপরাহ্ন

MD.Maniruzzaman Sark
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৮:০৫ অপরাহ্ন

অনেক সুন্দর বাস্তবধর্মী সমসাময়িক প্রসঙ্গ ।আরো বেশি বেশি লিখবেন ।

Md Mojibur Rahman
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৫:৪৬ অপরাহ্ন

ধন্যবাদ প্রবন্ধকার সাহেব । গাছ বাবার অনুসন্ধান ততক্ষণই চলবে যতক্ষন না অপরাধ (infection) ছড়ানোর ও তৈরির বিষ বৃক্ষ সমূলে উৎপাটিত হবে ।

zakiul Islam
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ২:০৬ অপরাহ্ন

আপনার সর্বশেষ প্রশ্ন “আসল সাইকোটিক লোক কে, কারা?”, উত্তর মনে হয়: সাধারণ মানুষ, আম জনতা, যারা সত্য কথা বলার অধিকার ও সাহস দুটুই হারিয়েছে!! ভাল থাকবেন

aman
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১২:৩০ অপরাহ্ন

এই দেশো সবই সম্ভব!

রহমান
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

ন্যায় বিচারের অভাবে অপরাধ ক্রমশ বাড়ছে । দিনে শুধু বড়িছে দেনা শোধিতে হবে ঋণ । তা কখন হবে কেউ জানিনা ।

Kazi
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:৪৯ পূর্বাহ্ন

পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়ন যে অপরাধ করেছেন একই অপরাধে অপরাধী নায়িকা পরীমনিও কারণ সে তার বাসায় স্বইচ্ছায় গোলাম সাকলায়েন কে স্বাগতম জানিয়েছে।

Shahid Uddin
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

আমাদের চারপাশে সামাজিক এবং রাজনৈতিক এত বিশৃঙ্খলা দেখে আমরা সাধারণ মানুষ সত্যি দিশাহীন। ছোট ছোট অন্যায়কে মেনে নিলেও সব সময় ভয় থাকি যেন আমাদের সাথে বড় ধরনের কোন অন্যায় কেউ না করে। কেননা এর বিচার তো আমরা পাবই না বরং জীবনের সমস্ত কিছু ওলটপালট হয়ে যাবে।

Sayed
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন

খুব ভালো লাগলো। সব সময় লিখবেন আশা করি। ভালো থাকবেন।

Abu sayed Mahmud
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন

Excellent

Md Chowdhury
২৭ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

মত-মতান্তর থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

মত-মতান্তর সর্বাধিক পঠিত

নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সবদলই সরকার সমর্থিত / ভোটের মাঠে নেই সরকারি দলের প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো বিরোধীদল

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status