ঢাকা, ১৮ জুলাই ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১১ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

খেলা

‘বুমরাহ জিনিয়াস, দলের অন্যদেরও কুর্নিশ’

স্পোর্টস ডেস্ক
১১ জুন ২০২৪, মঙ্গলবারmzamin

মাত্র ১২০ রানের টার্গেটে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ যখন পাকিস্তানের হাতে, নিজের তৃতীয় ওভারে মোড় ঘুরিয়ে দেন জসপ্রিত বুমরাহ। কোটার শেষ ওভারটি করতে এসেও তিনি ছিলেন দুর্দান্ত। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে শেষের নাটকীয়তায় পাকিস্তানকে ৬ রানে হারায় ভারত। দলের এমন পারফরম্যান্সে মুগ্ধ রোহিত শর্মা ম্যাচ শেষে বলেন, বুমরাহ জিনিয়াস, দলে অন্যদেরও কুর্নিশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রোববার অল্প রানের পুঁজি নিয়েও পাকিস্তানকে হারিয়ে দেয় ভারত। ১১৯ রান করে চির প্রতিদ্বন্দ্বীদের তারা থামিয়ে দেয় ১১৩ রানে। তবে রান তাড়ায় একটা সময় পর্যন্ত ম্যাচ ছিল পাকিস্তানেরই হাতে। দারুণ ব্যাটিংয়ে দলকে লক্ষ্যে এগিয়ে নিচ্ছিলেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। শেষ ৩৬ বলে তাদের প্রয়োজন ছিল ৪০ রান। কিন্তু পঞ্চদশ ওভারে আক্রমণে এসে প্রথমে বলেই ৩১ রান করা রিজওয়ানকে বোল্ড করে দৃশ্যপট বদলে দেন বুমরাহ।

বিজ্ঞাপন
ওই ওভারে দেন কেবল ৩ রান। শেষ দুই ওভারে যখন পাকিস্তানের চাই ২১ রান, বল হাতে নিজেকে আরেকবার মেলে ধরেন বুমরাহ। দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্রেফ ৩ রান দিয়ে এবার ফেরান তিনি ইফতিখার আহমেদকে। ম্যাচ শেষে তার বোলিং বিশ্লেষণ, ৪-০-১৪-৩। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতেন ডানহাতি এই পেসার। সতীর্থের এমন পারফরম্যান্স মন জয় করে নিয়েছে রোহিতের। তবে শুধু বুমরাহ নয়, দলের বাকি বোলারদেরও এই জয়ের কৃতিত্ব দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক। কারণ তাদের সৌজন্যেই টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে কম রান ডিফেন্ড করে জয়ের কীর্তি গড়ে তারা। এর আগে সবচেয়ে কম ১৩৮ রান ডিফেন্ড করেছিল তারা জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ২০১৬ সালে। রোহিতের মতে, বড় টুর্নামেন্টে এমন ম্যাচ জিততে এভাবেই সবাইকে রাখতে হবে অবদান। ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, “অবশ্যই! এই ধরনের টুর্নামেন্টে এটাই দরকার। আমরা চাই সবাই এগিয়ে আসুক। এই ছোট ছোট অবদানগুলো অনেক বড় পার্থক্য গড়ে দেয়। যে-ই বোলিং করেছে দলের জন্য অবদান রাখতে চেয়েছিল।” রোহিত বলেন, “বুমরাহ ভালো থেকে আরও ভালো হচ্ছে। আমরা তাকে বছরের পর বছর ধরে দেখেছি সে কী করতে পারে, আমি তাকে নিয়ে বেশি কথা বলবো না। আমরা চাই বিশ্বকাপের শেষ পর্যন্ত সে এমন মানসিকতার মধ্যে থাকুক। সে বল হাতে জিনিয়াস, আমরা সেটা জানি, কিন্তু অন্যদেরও কুর্নিশ।” রোহিত অবশ্য হতাশ নিজেদের ব্যাটিং নিয়ে। ইনিংসে মধ্যভাগ পর্যন্ত বেশ ভালো অবস্থানেই ছিল তারা। ১০ ওভার শেষে রান ছিল ৩ উইকেটে ৮১। কিন্তু সেখান থেকে নাটকীয় ব্যাটিং ধসে পুরো ২০ ওভারই খেলতে পারেনি দলটি। ৯ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে করে কেবল ৩৮ রান।
তবে বোলারদের ওপর আস্থা ছিল রোহিতের। আর অধিনায়ককে শেষ পর্যন্ত হতাশ করেননি তার বোলাররা। রোহিত বলেন, “আমরা যথেষ্ট ভালো ব্যাটিং করতে পারিনি। ইনিংসে মাঝপথে ভালো অবস্থায় ছিলাম, ৩ উইকেটে ৮০ (আসলে ৮১)। এখান থেকে আপনি বাকিদের জুটি গড়ার আশায় থাকবেন, কিন্তু আমরা প্রয়োজনীয় জুটি গড়তে পারিনি। ভেবেছিলাম, আমরা ১৫-২০ রান কম করেছি। এরকম পিচে প্রতিটি রান কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা নিয়ে আমরা কথা বলেছি। ১৪০ রানের দিকে তাকিয়ে ছিলাম, কিন্তু মনে হয়েছিল বোলাররা বাকি কাজটা করতে পারবে এবং করেছেও।”
 

খেলা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

খেলা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status