দুই ছবি নিয়ে ফিরছেন কে এম আর মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার | ২০১৫-০৬-২৮ ৮:১১
শর্টকাটে বড়লোক’ ও ‘তেজস্বিনী’- এ দুই ছবি নিয়ে বেশ কিছুদিন বিরতির পর আবার প্রযোজক পরিবেশক হিসেবে ফিরে আসছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সাবেক সভাপতি কে এম আর মঞ্জুর। নারগিস আক্তার পরিচালিত ‘শর্টকাটে বড়লোক’ ছবিটি তিনি ইতিমধ্যে ছাড়পত্রের জন্য বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে জমা দিয়েছেন। পপি, মাহফুজ আহমেদ ও ময়ূরী অভিনীত ‘শর্টকাটে বড়লোক’ এবং ময়ূরী অভিনীত ও জামশেদুর রহমান পরিচালিত লেডি অ্যাকশন ছবি ‘তেজস্বিনী’- দুটি ছবিই নির্মিত হয়েছে কে এম আর মঞ্জুরের নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা সংলাপচিত্রের ব্যানারে। দুটি ছবিই চলতি বছরে মুক্তি দেবেন বলে জানিয়েছেন কে এম আর মঞ্জুর নিজেই। তিনি বলেন, এ দুটি ছবি মুক্তি দিয়ে ভারতের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণ করবো। তিনি বলেন, আমি শুধু প্রযোজক পরিবেশকই নই, একজন প্রদর্শকও। সে হিসেবে আমি মনে করি, প্রেক্ষাগৃহ সচল রাখার জন্য ভাল মানের ছবি প্রয়োজন। ভাল ছবি না হলে দর্শক ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে না। তিনি বলেন, আগেও আমি ভাল ছবি বানিয়েছি। দর্শক সেই ছবিগুলো দেখেছে। ‘এক্সিডেন্ট’, ‘সিপাহী’, ‘দাঙ্গা’, ‘ননদ ভাবী’, আমার প্রেম আমার অহংকার’, ‘উত্তর ফাল্গুনী’, ‘সাক্ষী প্রমাণ’, ‘আবদার’সহ অনেক ভাল ভাল ছবি নির্মাণ করেছি। আমার ‘শর্টকাটে বড়লোক’ এবং ‘তেজস্বিনী’ও ভাল ছবি। সুন্দর গল্পের সুনির্মিত ছবি। আমার বিশ্বাস ছবিগুলো দর্শক দেখবেন। প্রেক্ষাগৃহ সচল হবে এবং আমি নিয়মিত ছবি প্রযোজনা করবো।
 কে এম আর মঞ্জুর বলেন, এখন গল্প নিয়ে গল্পের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে শিল্পী নিয়ে দর্শক রুচিকে প্রাধান্য দিয়ে সিনেমা নির্মাণ করতে হবে। শুধু মুখে মুখে বড় বড় কথা বললে হবে না। অত্যাধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তিকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে দর্শকদের জন্য সিনেমা নির্মাণ করতে হবে। আর এটা সম্ভব হলেই চলচ্চিত্র শিল্প আবার জেগে উঠবে বলে আমার বিশ্বাস। কে এম আর মঞ্জুর বলেন, ভাল ছবির দর্শক সব সময় ছিল, এখনও আছে। তাই চলচ্চিত্র শিল্পকে রক্ষা করার জন্য সবাইকে ভাল ছবি নির্মাণ করতে হবে। পাশাপাশি চলচ্চিত্র শিল্পকে ভালবেসে প্রযোজক পরিচালক, শিল্পী, কলাকুশলী, পরিবেশক, প্রদর্শক, সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। তাহলেই চলচ্চিত্র শিল্প আবার তার হারানো গৌরব ফিরে পাবে।



DMCA.com Protection Status