এফডিসির শ্রমিক ইউনিয়নে তিন ভাগ, ঢুকে পড়েছে রাজনীতি

মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন | ২০১৪-০২-১৯ ৭:৫৯
তিন ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে চলচ্চিত্র নির্মাণে একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) কলাকুশলী ও কর্মচারী ইউনিয়ন। এফডিসিকে সচল রাখার পাশাপাশি শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে ৩৭ বছর অতিক্রম করার পর কেবল রাজনৈতিক কারণে ইউনিয়নটি ভেঙে এখন তিন ভাগ হয়েছে। একটি হচ্ছে মূল সংগঠন, এফডিসি কলাকুশলী ও কর্মচারী ইউনিয়ন। অন্য দুটি হচ্ছে এফডিসি কলাকুশলী ও কর্মচারী লীগ এবং জাতীয়তাবাদী এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন। একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিব্রত করার জন্যই একটি মহল ইউনিয়নকে বিভক্ত করে জাতীয়তাবাদী এমপ্লয়িজ ইউনিয়নকে রেজিস্ট্রেশন পেতে সহায়তা করে। পাশাপাশি অন্য একটি মহল দাবি করেছে, এফডিসি এমডির পরোক্ষ মদদেই ইউনিয়ন বিভক্ত হয়েছে, যাতে কলাকুশলী কর্মচারীরা ঐক্যবদ্ধ থাকতে না পারেন। তাদের মধ্যে বিভক্তি হলেই এফডিসির দুর্নীতিবাজ-কর্মকর্তাদের অবৈধ কাজগুলো করতে সহজ হবে। এই বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে এফডিসি কলাকুশলী ও কর্মচারী ইউনিয়নের দীর্ঘ ৮ বারের সাধারণ সম্পাদক বর্তমান জাতীয় শ্রমিক লীগের তেজগাঁও আঞ্চলিক শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. নূরুন্নবী মানবজমিনকে বলেন, ১৯৭৬ সালে গড়া ইউনিয়ন দীর্ঘ ৩৭ বছর পর বিভক্ত হয়ে যাওয়ায় খুবই খারাপ লাগছে। কিন্তু মানুষ নিজেদের নেতা বানানোর জন্য ইউনিয়নকে এবং শ্রমিকদের একতাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। বিষয়টি আমার কাছে খুবই কষ্টদায়ক। তিনি বলেন, ইউনিয়ন তিন ভাগে ভাগ হয়ে যাওয়ায় শ্রমিকদের পক্ষে যেমন কোন কাজ হচ্ছে না, তেমনি এফডিসি এবং চলচ্চিত্রের উন্নয়নেও কাজ হচ্ছে না। নুরুন্নবী বলেন, আমরা শুধু শ্রমিকদের দাবি আদায়েই কাজ করেছি, এফডিসিকে সচল রাখার জন্যও কাজ করেছি। আমরা আন্দোলন করে এফডিসিতে যন্ত্রপাতি কিনেছি, মেরামত করেছি। কিন্তু এখন কোন কিছুই হচ্ছে না। তিনি বলেন, আমি বিভক্ত উভয়পক্ষকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছি। এতে এফডিসি এবং কলাকুশলী কর্মচারী সবারই ক্ষতি হয়েছে। সেই সঙ্গে একতা না থাকায় দুর্নীতিবাজদের পক্ষে তাদের স্বার্থসিদ্ধির পথ বাধামুক্ত হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন কলাকুশলী ও কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃত্বে রয়েছেন সভাপতি শামসুল ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম শামীম, এফডিসি কলাকুশলী ও কর্মচারী লীগের সভাপতি মশিউল আলম এবং সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন। নবগঠিত জাতীয়তাবাদী এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি হচ্ছেন হান্নান মজুমদার এবং সাধারণ সম্পাদক জিএম সাঈদ। তিনটি সংগঠনই এফডিসির অভ্যন্তরে কার্যালয় বানিয়ে তাদের অবস্থান সুসংহত করার চেষ্টা চালাচ্ছে, যা সাধারণ কলাকুশলী ও কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করেছে। এফডিসি কলাকুশলী ও কর্মচারী ইউনিয়নের তিন ভাগের নেতাদের সঙ্গে সংগঠন নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তারা আপাতত এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি।


DMCA.com Protection Status