‘মুখ ও মুখোশ’-এর পরিচালক আবদুল জব্বার খানের ছেলের আক্ষেপ

স্টাফ রিপোর্টার | ২০১৫-১২-৩০ ৮:৪৯
বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাস জানতে হলে প্রথমেই জানতে হবে যে মানুষটির নাম তিনি আবদুল জব্বার খান।  ১৯৫৩ সালে নিজ উদ্যোগে পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম সবাক চলচ্চিত্র ‘মুখ ও মুখোশ’ নির্মাণ করেন তিনি। ১৯৯৩ সালে ২৮শে ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১২টা ১০ মিনিটে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে তিনি চলে যান। সেই পথিকৃৎ পরিচালকের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে সোমবার বিকালে এফডিসির ডিজিটাল ভবনের ফজলুল হক স্মৃতি মিলনায়তনে তার পরিবারের পক্ষ থেকে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া শেষে প্রয়াত আবদুল জব্বার খানের সেজো ছেলে নওশের হায়াত খান এ আয়োজন নিয়ে আক্ষেপ করে মানবজমিনকে বলেন, ‘মুখ ও মুখোশ’ নির্মাণের পরও পিতা প্রায় ৪০ বছর বেঁচেছিলেন। তার জীবদ্দশায় তার হাতে কোনো জাতীয় পুরস্কার, একুশে পদক তুলে দেয়া হয়নি। রাষ্ট্রের এ নিয়তি তিনি মেনে নিয়েছিলেন। কিন্তু তার মনে অনেক কষ্ট ছিল। শুধু তাই না, আজ তার প্রয়াণ দিবসে প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পী সমিতি কর্তৃক আয়োজন করা উচিত ছিল এ অনুষ্ঠানের।
তারা তো তা করল না। উল্লেখ্য, আবদুল জব্বার খানের স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ চলচ্চিত্রকার সি. বি. জামান, চলচ্চিত্র পরিচালক আবদুস সামাদ খোকন, পরিচালক সমিতির সহসভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, চিত্র প্রযোজক-পরিচালক খুরশিদ আলম খসরু, চিত্রপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন জেমী, চিত্রপরিচালক এস. এ. হক অলিক। অনুষ্ঠানে সোহানুর রহমান সোহান দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আবদুল জব্বার খান সে সময় চলচ্চিত্র নিয়ে না ভাবলে হয়তো আমাদের মতো অসংখ্য পরিচালক নিজের নাম নিয়ে গৌরব করতে পারতেন না। আমাদেরই নিজ উদ্যোগে তার স্মরণে অনুষ্ঠান করা উচিত ছিল।
আগামীতে এটা আমরা মিস করতে চাই না। চিত্রপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন জেমী বলেন, আমাদের ইতিহাস আজ মুছে যাচ্ছে। প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পীদের উচিত ছিল তার মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে অনুষ্ঠানের আয়োজন করার। আজ আমাদের ব্যর্থতার কারণে তাদের পরিবারের লোকজন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। আবদুল জব্বার খান পথ তৈরি করে দিয়ে গিয়েছেন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আবদুুল জব্বার খানের আট সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে ইসমত হায়াত খান, ছোট ছেলে জহির হায়াত খান এবং ছোট মেয়ে মালা খুররম। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন চিত্রপরিচালক শাহীন মাহমুদ। অনুষ্ঠানে আবদুল জব্বার খানের পরিবারের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়, আগামী বছর ১৬ই এপ্রিল ৬ দিনব্যাপী আবদুল জব্বার খানের জন্মশতবর্ষ উৎসব আড়ম্বরপূর্ণভাবে উদযাপন করা হবে।


DMCA.com Protection Status