বিনোদন

ইমনের কড়া জবাব

বিনোদন ডেস্ক

১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ৮:০৪ অপরাহ্ন

ফের বিতর্কে ইমন চক্রবর্তী। ফের কটাক্ষের শিকার তার শিক্ষার্থীরা। জি বাংলার ‘সারেগামাপা’-য় অর্কদীপ মিশ্র সেরা হওয়ার পরে ইমনের পক্ষপাতিত্ব নিয়ে জোর তরজা বেঁধেছিল। এবারো ঘটনা প্রায় সে রকমই। সম্প্রতি ছোট পর্দায় একটি গানের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন শিল্পী। গুরু-শিষ্য পরম্পরামূলক এই অনুষ্ঠানে ইমনের সঙ্গে গাইতে দেখা গিয়েছে তার শিক্ষার্থীদের। আকাশ আট চ্যানেলের প্রভাতী অনুষ্ঠানের পরেই কটাক্ষের বন্যা চ্যানেলের ফ্যানপেজে। কিছু শ্রোতার ক্ষোভ, ইমনের ছাত্রছাত্রী বলেই এরা বেসুরো গেয়েও চ্যানেলে গান গাওয়ার সুযোগ পেয়েছেন! তাদের দাবি, দিদিমণি একটা সুযোগ করে দিলেন! নইলে এত বেসুরো শিল্পীদের চ্যানেল কি করে সুযোগ দেয়? আসল ঘটনা কি? জাতীয় পুরস্কার পাওয়া শিল্পীর জবাব, এর আগে এই ধরনের অনুষ্ঠানে তিনি তার গুরুদের সঙ্গে গান গেয়েছিলেন। এবার তার শিষ্যরা গাওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। তাই নিয়েই কটাক্ষ শুরু। ইমনের দাবি, ভীষণ সত্যি কথা। আমার শিক্ষার্থী বলেই ওরা বিশেষ অনুষ্ঠানে গাওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। কারণ, অনুষ্ঠানটি গুরু-শিষ্যদের নিয়েই। সেখানে কি অন্যরা গাওয়ার সুযোগ পাবেন! তার আরও দাবি, সবাই তাদের সেরাটা দিয়েছেন। কারও যদি কোনো খামতি থাকে, সেটা শিক্ষকের। শিক্ষার্থীর নয়। সদ্য করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ইমন। প্রথম দিকে তাই পাত্তা দেননি। তবে শিক্ষার্থীদের খারাপ লাগা তাকে ছুঁয়ে গিয়েছে। ইমনের যুক্তি, আমি কটাক্ষের শিকার হতে হতে অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছি। গানের জীবনের শুরুতে এভাবে আমাকেও বলা হতো। অনেক কথা শুনতে হয়েছে। ওরা নতুন! সবে শিল্পী জীবন শুরু ওদের। এসব দেখে খুব ভেঙে পড়েছে। কটাক্ষকারীর উদ্দেশ্যে তার প্রশ্ন, আমার শিক্ষার্থীরা বেসুরো গায় তার বিচার করার আপনি কে? পাল্টা কটাক্ষও ছুড়েছেন, নিজের পরিবারের ছেলেমেয়েদের গান শিখিয়ে বরং ওই মঞ্চে পাঠানোর চেষ্টা করুন না! তা তো পারবেন না! তারপরেই তার পরামর্শ, নতুনদের জায়গা ছেড়ে দিতে হবে। সেই সময় এসেছে। তাই নবীনদের উৎসাহিত করাই অভিজ্ঞ শিল্পীদের প্রথম এবং প্রধান কাজ। একই সঙ্গে আন্তরিক অনুরোধ, কাউকে যদি জায়গা ছেড়ে দিতে না পারেন তা হলে অকারণে তার ক্ষতি করে দেবেন না!
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com