বাংলারজমিন

সাড়ে ৫ হাজার রাবার গাছ কেটে ফেললো দুর্বৃত্তরা

ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

১৮ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:০১ অপরাহ্ন

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার সন্তোষপুর রাবার বাগানের সাড়ে ৫ হাজার চারা গাছ রাতের অন্ধকারে কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (১৫ জানুয়ারী) দিবাগত গভীর রাতের কোন এক সময় রাবার গাছগুলো দুর্বৃত্তরা কেটে ফেলে বলে জানিয়েছেন রাবার বাগান ম্যানেজার হারুন অর রশিদ।

রাবার কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসী জানায়, সন্তোষপুর রাবার বাগানে ১ হাজার ৭৬ একর জমিতে রাবার গাছ রয়েছে। বশিউক ইতিপূর্বে প্রায় ১৫০ একর জমি থেকে অনউৎপাদনশীল রাবার গাছ কেটে তাতে সাথী ফসল আবাদের জন্য স্থানীয়দের মৌখিক অনুমতি দেন। নতুন করে ৩২ একর জমি তিন বছরের জন্য ৫৮ লাখ টাকায় স্থানীয়দের লিজ দেন বশিউক। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে দুগ্রুপের সৃষ্টি হয়।

লিজ বঞ্চিতদের দাবি যারা লিজ নিয়েছেন তারাই রাবার গাছ কেটে সময় বৃদ্ধির চেষ্টা করছেন। লিজ গ্রহিতাদের দাবী, যারা লিজ পায় নাই তারাই রাবার গাছ কেটে ফেলেছে।
স্থানীয় ইউপি মেম্বার নূরুল ইসলাম জানান, তিনি ৫ একর জমি তিন বছরের জন্য বশিউক থেকে ৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা দিয়ে লিজ নিয়েছেন। তার দাবী যারা লিজ বঞ্চিত তারাই রাবার গাছ কেটে ফেলতে পারে। একই দাবি ৫ প্লট ৩৩ লাখ টাকা দিয়ে লিজ নেয়া দিদারুল হোসেন রুবেলের।

সন্তোষপুরের আবুল হোসেন জানান, ‘রাবার বাগানে ফসল আবাদ করলে লাভবান হন প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারী। ক্ষতিগ্রস্ত হয় বাগান। আন্ত ফসল করতে গিয়ে বাগানের চারা ভেঙে ফেলার অভিযোগ নতুন নয়। এর আগেও ২০১৯ সালে ১৪শ রাবার গাছ কেটে ফেলা হয়ে ছিল। যারা জমি লিজ নিয়েছে তারাই সময় বৃদ্ধি করতে রাবার গাছ কেটে ফেলেছে বলে অভিযোগ তার।

স্থানীয় চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন মোজা জানান, ৩ বছরের জন্য যে টাকা দিয়ে লিজ নেয়া হয়েছে তাতে লিজ গৃহীতারা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই তারা রাবার গাছ কেটে সময় বৃদ্ধির চেষ্টা করছে।
রাবার বাগান ম্যানেজার হারুন অর রশিদ মানবজমিনকে জানান, ৩২ একর জমিতে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে রাবার গাছ লাগানো হয়। ঐ বাগানের ৫ হাজার ৫শ ৬১ টি রাবার গাছ দুর্বৃত্তরা শনিবার (১৫ জানুয়ারী) দিবাগত গভীর রাতে কেটে ফেলেছে। রাবার গাছ যেই কাটুক বাগানের ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা জাকির হোসেন জানান, রাবার বাগানের মাঠ তত্ত্বাবধায়ক আইন উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com