শেষের পাতা

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন

বিভিন্ন স্থানে সহিংসতায় বিজিবি সদস্যসহ নিহত ৯

বাংলারজমিন ডেস্ক

৩০ নভেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ৯:২১ অপরাহ্ন

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও দেশজুড়ে সহিংসতা ছড়িয়েছে। নির্বাচনের ঘোষিত ফল প্রত্যাখ্যান করে কেন্দ্রেই পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বিজিবি সদস্যকে। ব্যালট ছিনতাই, পুলিশের গাড়িতে হামলা, প্রার্থী সমর্থকদের সংঘর্ষে ৫ জেলায় অন্তত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, প্রিজাইডিং অফিসারসহ আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্টে-

নীলফামারী প্রতিনিধি জানান, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতায় রুবেল ইসলাম নামে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) এক সদস্য নিহত হয়েছেন। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গাড়াগ্রাম ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম দলিরাম মাঝপাড়া ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রুবেল ইসলাম বিজিবি’র নায়েক ছিলেন। রাত ১১টার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করে ওই ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ললিত চন্দ্র রায় জানান, ভোট গণনা শেষে গাড়াগ্রাম ইউপিতে রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী জোনাব আলীকে জয়ী ঘোষণা করা হয়। সেই ফল প্রত্যাখান করেন জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মারুফ হোসেন অন্তিকের সমর্থকরা। কেন্দ্র থেকে ব্যালটসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে উপজেলা সদরে রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তরে যাওয়ার সময় কর্মকর্তাদের ওপর লাটিসোটা নিয়ে হামলা চালান তারা। ওই সময় আত্মরক্ষায় বিজিবি সদস্য রুবেল কেন্দ্রের একটি কক্ষে আশ্রয় নেয়। বিক্ষুব্ধরা সেখানে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে। এ সময় পুলিশের গাড়ি ও ভোটকেন্দ্রে অগ্নিসংযোগের চেষ্টাও চলানো হয়। আত্মরক্ষায় কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। কর্তব্যরত একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেসসহ নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত ২৫ থেকে ৩০ জন আহত হয়েছেন।

স্টাফ রিপোর্টার, ঠাকুরগাঁও ও পীরগঞ্জ থেকে জানান, ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় রোববার সন্ধ্যায় ভোট গণনার সময় বিজিবির গুলিবষর্ণে ৩ জন নিহত ও ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকার অজ্ঞাতনামা ৭শ’ জনের বিরুদ্ধে পীরগঞ্জ থানায়  মামলা করেছে পুলিশ। ৩নং খনগাঁও ইউনিয়নের ৮নং ঘিডোব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা সরকারি বণিক বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. জামাল উদ্দিন জানান, ভোটগ্রহণ ও গণনা শেষে কিছু মানুষ ভোটে কারচুপির অভিযোগ তোলেন। বিষয়টি মুহূর্তের মধ্যে চাউর হয়ে গেলে এলাকার বিক্ষুব্ধ লোকজন ভোটকেন্দ্র ঘেরাও করে স্লোগান দিতে থাকে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতনদের জানানো হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ স্ট্রাইকিং ফোর্সের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। এ সময় স্ট্রাইকিং ফোর্সের মাইক্রোবাস ভাঙচুর করে উত্তেজিত জনতা। নিজেদের জানমাল ও সরকারি সম্পদ রক্ষার স্বার্থে কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেট এর হুকুমে নায়েক সুবেদার আজাহার আলীসহ ১৪ জন বিজিবি সদস্য সেখানে ৪৭ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। বিজিবির গুলিতে এলাকার শাহাবুদ্দিন ওরফে সাহাবুলি (৩২), মো. মুজা (৩৮) ও পরাগ আলী (২২) ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এ ছাড়া আরও ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ থেকে জানান, মুন্সীগঞ্জের বাংলাবাজারে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দুই মহিলা মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে শাকিল মোল্লা নামের ১ জন নিহত হয়েছেন। গত রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বাংলাবাজারের ৯নং ওয়ার্ডের বানিয়াল উত্তর ভূকৈলাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাকিল শরীয়তপুরের সখিপুর কাঁচিকাটা এলাকার হারুন মোল্লার ছেলে। এদিকে রোববার রাত ৮টার দিকে পঞ্চসার ইউনিয়নে নির্বাচনী সংঘর্ষে মো. রিয়াজুল শেখ (৬৫) নামে আরও এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। রিয়াজুল মুক্তারপুর গোসাইবাগ এলাকার প্রয়াত আলতাব উদ্দিনের ছেলে। নিহতের ভাই মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদের টেলিফোন প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নরসিংদী প্রতিনিধি জানান, নরসিংদীর রায়পুরায় পুলিশের গাড়িতে হামলা করে ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে ২ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় ৩ পুলিশ সদস্যসহ আরও ২২ জন আহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে রায়পুরা উপজেলার চান্দেরকান্দি ও উত্তর বাঘারনগর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- আরিফ (৩২) ও উত্তর বাখরনগরে ফরিদ মিয়া (৩২)। আরিফ শিবপুর যোশর জাঙ্গারটেক গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে। পেশায় তিনি সিএনজিচালক ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের দাইরের পার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনার পর ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বারপ্রার্থী আব্দুল ওহাবের পরাজিত হওয়ার পর তার ছেলে অর্ধশতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের গাড়িতে হামলা চালান। তখন পুলিশ সদস্য শাহিনুর ইসলাম সরকারি মালামাল ও ব্যালট বাক্স রক্ষায় পরপর ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করেন। এ সময় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও এলোপাতাড়ি গুলিতে পুলিশের রিকুইজিশন করা সিএনজিচালক আরিফ নিহত হন। অন্যদিকে এদিকে উপজেলার উত্তর বাখরনগরে ইউপিতে নির্বাচনী সহিংসতায় ফরিদ মিয়া (৩২) নামের একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বলেন, রায়পুরায় নির্বাচনী সহিংসতায় দু’জন নিহতের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। রোববার দিবাগত রাতে রায়পুরা থানায় এই মামলা করেন চান্দেরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উত্তর বাখরনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দুই প্রিজাইডিং অফিসার।

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা জানান, লক্ষ্মীপুরে রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সজিব হোসেন নিহত হয়েছে। রোববার নির্বাচন চলাকালীন সময় বিকাল পৌনে চারটার দিকে ওই ইউনিয়নের নয়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহেনাজ আক্তার ও বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রাথী আমির হোসেন খানের সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ছাত্রলীগ নেতা সজিব হোসেন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহেনাজ আক্তারের সমর্থক ছিলেন। রামগঞ্জ থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status