ইকবালের ‘দোষ স্বীকার’, মোটিভ নিয়ে নানা আলোচনা

জাহিদ হাসান, কুমিল্লা থেকে

প্রথম পাতা ২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫১ অপরাহ্ন

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার দায় স্বীকার করেছে ইকবাল। গতকাল দুপুরে তাকে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনা হয়। কুমিল্লা পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইকবাল দায় স্বীকার করে। নগরীর নানুয়া দীঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রেখে অবমাননার ঘটনার মূলহোতা ইকবাল হোসেনকে গত বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার সুগন্ধা বিচ এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। কক্সবাজার থেকে কড়া পুলিশ পাহারায় তাকে কুমিল্লায় নিয়ে আসা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম. তানভীর আহমেদ উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, আমরা ইকবাল হোসেনকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর প্রেস ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানাবো। পুলিশের অপর একটি সূত্র জানায়, ইকবালকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হতে পারে।
ইকবালকে দুপুর ১২টা ৫ মিনিটের দিকে কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে আসা হয়। সেখানে শুধু ফটো সেশনের জন্য তাকে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হয়। এ সময় জেলা পুলিশের একজন পদস্থ কর্মকর্তা কুমিল্লায় পূজামণ্ডপের ঘটনায় সিসি টিভির ফুটেজে ধরা পড়া ব্যক্তিই কক্সবাজারে আটক হওয়া ইকবাল হোসেন বলে নিশ্চিত করেন। দুপুর থেকেই পুলিশ-গোয়েন্দা সংস্থার চৌকস টিম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল। কক্সবাজার জেলা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, কুমিল্লা থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর বৃহস্পতিবার দিনভর ইকবাল কক্সবাজারের সুগন্ধা বীচে এলোমেলোভাবে ঘোরাফেরা করে। নোয়াখালী থেকে সুগন্ধা বীচে বেড়াতে যাওয়া তিন যুবক ইকবালকে সন্দেহ করে তারা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। খবর পেয়ে রাতেই কক্সবাজার পৌঁছে কুমিল্লা জেলা পুলিশের একটি দল। কুমিল্লা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান, কক্সবাজারে গ্রেপ্তার ইকবাল হোসেনই কুমিল্লার পূজামণ্ডপকাণ্ডে সিসি টিভি ফুটেজে ধরা পড়া সেই ইকবাল। তদন্তের স্বার্থে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শনিবার এ বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং করা হবে বলেও তিনি জানান।

পূজামণ্ডপে হামলার সময় আহত এক ব্যক্তির মৃত্যু: কুমিল্লায় সহিংসতার সময় ইটের আঘাতে আহত দিলীপ কুমার দাস বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। ১৩ই অক্টোবর তিনি নগরীর মনোহরপুর এলাকার রাজ রাজেশ্বরী কালীবাড়ি মন্দিরের ফটকে ইটের আঘাতে আহত হন। দিলীপের বাসা নগরীর কোতোয়ালি মডেল থানাসংলগ্ন পানপট্টি এলাকায়। তিনি ওই এলাকার বাসিন্দা বিষু লাল দাসের ছেলে। নিহত দিলীপ কুমার দাসের ভাতিজা শান্ত কুমার দাস জানান, দুই দফা অস্ত্রোপচারের পরও তার চাচাকে বাঁচানো যায়নি। গতকাল দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার ময়নাতদন্ত হয়। তিনি এ ঘটনার বিচার দাবি করেন। সন্ধ্যায় কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম বলেন, ঢাকায় একজন মারা গেছে বলে শুনেছি। তবে অভিযোগ পাইনি।
 
আলোচনায় সিসিটিভি ফুটেজ: বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা জেলা পুলিশের ডিআইও (জেলা গোয়েন্দা কর্মকর্তা) মনির আহম্মদ সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ গণমাধ্যমে পাঠান। ১৬ মিনিট ৫২ সেকেন্ডের ফুটেজ ও এর বর্ণনায় উল্লেখ আছে, ইকবাল প্রায়ই মাজারে যাতায়াত করতো। ঘটনার আগের দিনও ১২ই অক্টোবর দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টা ৪২ মিনিটে তাকে দারোগাবাড়ি মাজারে দেখা গেছে। ফুটেজে দেখা গেছে, মাজারের খেদমতকারী ফয়সল ও হাফেজ হুমায়ুন মসজিদে প্রবেশ করেন। এরপর ইকবাল মসজিদে প্রবেশ করে। ইকবাল তাদের পাশে বসে। এরপর মাজারের উত্তর দিকে চলে যায়। হাফেজ হুমায়ুন ছিলেন সাদা পায়জামা-পাঞ্জাবি পরা। তিনি আগে মাজার থেকে বের হয়ে যান। পরে খাদেম (কালো পোশাক পরা) ফয়সল বের হন। পরে ইকবাল দানবাক্সের ওপর থেকে কোরআন শরীফ নিয়ে মেঝেতে বসে। এরপর কোরআন শরীফ হাতে নিয়ে মাজারের উত্তর পাশের সড়ক দিয়ে চলে যায়।
পরে ইকবাল চকবাজার স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক ও পূবালী ব্যাংক মোড় ঘুরে পূজামণ্ডপের দিকে রওনা হয়। এ সময় তার সঙ্গে দু’জন নৈশপ্রহরীর দেখা হয়। তাদের সঙ্গে ইকবালের কথাও হয়। এরপর ইকবাল কোরআন হাতে নিয়ে ডিগাম্বরীতলা সড়ক দিয়ে নানুয়া দীঘির পূজামণ্ডপে প্রবেশ করে। পরে মূল পূজামণ্ডপের বাইরে সড়কের পাশে থাকা ফুটপাথের ওপর সিতার তিনটি প্রতিমার পাশে থাকা হনুমানের প্রতিমার পায়ের ওপর পবিত্র কোরআন শরীফ রাখে। এরপর হনুমানের হাতে থাকা গদা কাঁধে নিয়ে চলে যায়। পুলিশ বলছে, ইকবাল দারোগাবাড়ি মসজিদ ও মাজার থেকে কোরআন হাতে নিয়ে নগরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তারপর পূজামণ্ডপে রাখে।

যেভাবে ধরা পড়ে ইকবাল: নোয়াখালীর চৌমুহনী এসএ কলেজের তিন ছাত্র অনার্স পরীক্ষা শেষ করে বেরিয়ে পড়েন ‘ঘোরাঘুরিতে’। শুরুতে তিনজন মিলে যান কক্সবাজারে। বুধবার কক্সবাজারের কলাতলী সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে যান তিন বন্ধু। সেখানেই ঘটে ঘটনা। কিছুটা উদ্ভ্রান্ত, আচার-আচরণও অন্যরকম এক ব্যক্তির দিকে চোখ যায় তাদের। চেনাচেনাও লাগছিল। সেদিন বিষয়টি তারা সেভাবে খেয়াল করেনি।  পরদিন বৃহস্পতিবার আবারো ওই ব্যক্তির সামনে পড়েন। এবার সুগন্ধা সমুদ্র সৈকতে। লোকটির অদ্ভুত আচরণ, ঘোরাঘুরি অনেকের মতো তিন বন্ধুর কাছেও ধরা পড়ে। একপর্যায়ে তিনজনের একজন সাজেদুর রহমানের কাছে লোকটিকে চেনাচেনা মনে হয়। সংবাদমাধ্যমে তার ছবি দেখেছেন বলে মনে হচ্ছিল তার। এরপর মোবাইল ফোনে গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়া ছবির সঙ্গে ওই ব্যক্তির ছবি মেলাতে শুরু করেন তারা। সাজেদুর রহমান বলেন, আমাদের কাছে মনে হচ্ছিল কুমিল্লার পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরীফ রেখে আসা ইকবাল হোসেনই এই ব্যক্তি। কিন্তু পুরোপুরি নিশ্চিত হতে পারছিলাম না। এরপর নোয়াখালীর সহকারী পুলিশ সুপারের (এএসপি) নম্বরে ফোন করি। তিনি ফোন ধরলে পুরো বিষয়টি তাকে জানাই। তিনি আমাদের ফোন নম্বর রাখেন। যোগাযোগ করবেন বলে জানান। পুলিশ সূত্র জানায়, পরে নোয়াখালীর এসপি পুরো বিষয়টি কুমিল্লার পুলিশ সুপারকে জানান। তিনি কুমিল্লার এসপিকে বলেন, কয়েকজন ছেলে বিষয়টি তাকে জানিয়েছেন। তবে ছেলেরা নিশ্চিত নন ইনিই ইকবাল কিনা। ছেলেরা বলেছেন, গণমাধ্যমে আসা ছবির সঙ্গে এই ব্যক্তির চেহারায় মিল আছে। কুমিল্লা জেলার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, নোয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার আমাকে জানান সমুদ্র সৈকত থেকে তাকে ফোন করে বলা হয়েছে ইকবালের মতো একজনকে দেখা যাচ্ছে। যারা ফোন করেছিলেন তাদের আমরা পুলিশ ঘটনাস্থলে না পৌঁছানো পর্যন্ত নজরদারিতে রাখতে বলি। পরে কক্সবাজার জেলার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ইকবালকে আটক করে।

মোটিভ নিয়ে আলোচনা: ইকবাল ঘটনার দায় স্বীকার করেছে। তবে এর পেছনে কি মোটিভ ছিল তা নিয়ে আলোচনা চলছে সর্বত্র। প্রশ্ন উঠেছে তার পেছনে কারা রয়েছে? ইতিমধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেও বলেছেন, ইকবাল কারো প্ররোচনা ছাড়া এ কাজ করেছেন বলে তিনি মনে করেন না। গতকাল বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদও এক সংবাদ সম্মেলনে নানা প্রশ্ন উত্থাপন করেন। কুমিল্লা পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, ঘটনার পেছনে কী মোটিভ ছিল তাও খুঁজে বের করা হচ্ছে।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

বাইডেনের গণতন্ত্র সম্মেলন আলী রীয়াজের মূল্যায়ন

চীন-রাশিয়া একদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও গণতান্ত্রিক শক্তিগুলো অন্যদিকে

৭ ডিসেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস

সম্পর্ক এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় দুই নেতার

৭ ডিসেম্বর ২০২১

করোনায় আরও চার জনের মৃত্যু

৭ ডিসেম্বর ২০২১

গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৮ হাজার ...

সাইবার ফরেনসিক ল্যাব

এক ক্লিকেই শনাক্ত হবে অপরাধী, থানায় থানায় বাজবে এলার্ম

৬ ডিসেম্বর ২০২১

শান্তি সম্মেলনের সমাপনীতে প্রধানমন্ত্রী

অস্ত্রের বদলে শান্তির জন্য প্রতিযোগিতা করুন

৬ ডিসেম্বর ২০২১

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা

‘আইনি সুযোগ খুঁজছে সরকার’

৬ ডিসেম্বর ২০২১

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দিতে সরকার আইনি সুযোগ খুঁজছে বলে ...

সব মহানগরে হাফ ভাড়া কার্যকর শনিবার থেকে

৬ ডিসেম্বর ২০২১

১১ই ডিসেম্বর থেকে চট্টগ্রামসহ দেশের সব মেট্রোপলিটন শহরে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়া কার্যকর হচ্ছে। গতকাল ...



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত



ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন, কফিন মিছিল আজ

লাল কার্ডে প্রতিবাদ

ঢাকায় শান্তি সম্মেলন উদ্বোধন প্রেসিডেন্টের

বিশ্বময় শান্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দেয়ার প্রত্যয়

বাইডেনের গণতন্ত্র সম্মেলন আলী রীয়াজের মূল্যায়ন

চীন-রাশিয়া একদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও গণতান্ত্রিক শক্তিগুলো অন্যদিকে

DMCA.com Protection Status