প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড ও লাশ প্রদর্শন নিষিদ্ধ করেছে তালেবানরা

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) অক্টোবর ১৬, ২০২১, শনিবার, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৮:০০ অপরাহ্ন

দেশের সর্বোচ্চ আদালত নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অপরাধীদের প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড নিষিদ্ধ করেছে আফগানিস্তানে তালেবানদের অন্তর্বর্তী সরকার। বৃহস্পতিবার রাতে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মিটিংয়ের পর তালেবান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, শাস্তি কার্যকর প্রকাশ্যে প্রদর্শনের প্রয়োজন নেই। বিশেষ করে আদালত যতক্ষণ প্রকাশ্যে শাস্তি দেয়ার নির্দেশ না দেয়, ততক্ষণ কোনো মৃত্যুদণ্ড প্রকাশ্যে দেয়া যাবে না। তিনি আরো বলেন, সুপ্রিম কোর্ট যদি প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড ও লাশ ঝুলিয়ে রাখার নির্দেশ না দেয়, তাহলে এই শাস্তি এভাবে দেয়া যাবে না। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এক্সপ্রেস ট্রিবিউন। তালেবানের এই মুখপাত্র আরো বলেন, যেসব অপরাধীকে শাস্তি দেয়া হবে, তাদের অপরাধের বিষয়টি জনসমক্ষে ব্যাখ্যা করতে হবে, যাতে মানুষজন ওই অপরাধ সম্পর্কে সচেতন হতে পারে। উল্লেখ্য, অপহরণের অভিযোগে গত মাসে আফগানিস্তানের হেরাতে গুলি করে হত্যা করা হয় চারজনকে।
এরপর ক্রেন থেকে তাদের লাশ প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে রাখে তালেবানরা। হেরাত প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর মৌলভী শীর আহমেদ মুহাজির বলেছেন, অপহরণকে সহ্য করা হবে না। এই শিক্ষা দেয়ার জন্য একই দিনে এসব হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয় এবং মৃতদের লাশ বিভিন্ন স্থানে প্রদর্শিত হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে ভয়াবহ ছবি ছড়িয়ে পড়ে, তাতে দেখা যায়, একটি পিকআপে মৃতদের লাশ। এ সময় একটি ক্রেন থেকে একজনের লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তা দেখতে লোকজনের ভিড় জমে যায়। তাদেরকে সামাল দিতে যানটির চারপাশে সশস্ত্র তালেবান যোদ্ধাদের অবস্থান লক্ষ্য করা যায়। আরেকটি ভিডিওতে দেখা যায়, হেরাতের একটি বড় ক্রসিংয়ে একটি ক্রেন থেকে একজনের লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তার বুকের ওপর লেখা- অপহরণকারীদের এভাবেই শাস্তি পেতে হবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

mesbah

২০২১-১০-১৬ ০৬:৫৭:৪১

ইসলামী শাসন ব্যবস্থার পুর্নাঙ্গ প্রয়োগ করতে হবে। অন্যথায় তা কখনো কোনো অঞ্চলের মুসলিমদের উপকারে আসবে না। পশ্চিমা বা বহির্বিশ্বের সাথে সম্পর্ক গড়ার জন্য যদি ইসলামের নির্দেশিত পথ চলা থেকে ছাড় দেয়া হয় তাহলে তা কখনোই প্রকৃত সাফল্য আনবে না।

Kazi

২০২১-১০-১৫ ২২:২৮:২৩

যদিও এসব প্রদর্শন অমানবিক মনে হয়, কিন্ত লাখ লাখ অপরাধ প্রবণ মানুষের জন্য সাবধান বার্তা এগুলি। যা সত্যিকার ভাবে দেশে অপরাধ বন্ধ করতে সহায়ক। সভ্য সমাজ অবশ্য এর বিরোধীতা করে, কিন্ত প্রকারান্তরে মানবাধিকার সংস্থা গুলি ক্ষতিগ্রস্ত victims ব্যক্তির পক্ষ না নিয়ে অপরাধীদের পক্ষ নেয়, ফলে দিন দিন সভ্য সমাজে অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

আরেক তাজমহল!

২৯ নভেম্বর ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status