অর্থনৈতিক উন্নয়নে আইসিটি’র বিকল্প নেই

নবাবগঞ্জ ও দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি

শেষের পাতা ১০ অক্টোবর ২০২১, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১:০৯ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা এবং ঢাকা-১ আসনের এমপি সালমান ফজলুর রহমান বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে আইসিটি’র উন্নয়নের বিকল্প নেই। বর্তমানে উন্নত দেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে আইসিটির উন্নয়ন করতে হবে। তৃণমূলে উন্নয়ন ও জনগণের নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হলে আইসিটির উন্নয়ন। সরকার সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বিশ্ববিখ্যাত আইসিটি কোম্পানি এখন বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। বাংলাদেশ আজ যে উন্নয়নের গতিতে এগিয়ে চলছে এর প্রধান শক্তি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতা, বিশ্বাস, সততা, সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ। বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি করায় মানুষ লোডশেডিং ভুলে গেছে।  বাংলাদেশে আজ বিভিন্ন সেক্টরে যেভাবে উন্নয়ন হয়েছে তার কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। কৃষিখাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে, যোগাযোগ ব্যবস্থা, পোশাক শিল্পের উন্নয়নে আজকের বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতির নেতৃত্বে চলে এসেছে।
বিশেষ করে মহামারি করোনা প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দ্রুত নিয়ন্ত্রণ- বিশ্ব রাজনীতির নেতৃত্বে নতুন অধ্যায় সূচনা করেন। ইনফো সরকার (৩য় পর্যায়)-এর আওতায় নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার ২২টি ইউনিয়নের কানেক্টিভিটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও আইটি বিশেষজ্ঞ এবং উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান এসব কথা বলেন। গতকাল শনিবার দুপুরে নবাবগঞ্জ উপজেলার আব্দুল ওয়াছেক মিলনায়তনে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন- ঢাকা জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম।
নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার এইচএম সালাহউদ্দীন মনজুর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে তথ্য- প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে আপ্রাণ চেষ্টা চলছে। আজ  গ্রাম পর্যায়ে তথ্য-প্রযুক্তির সকল সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। তিনি বলেন, বিশ বছর আগে যা কল্পনা করতে পারিনি আজ তা আমাদের হাতের মুঠোয়। কেবলমাত্র সজীব ওয়াজেদ জয় ভাইয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশে আইসিটিতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের অভিভাবক সালমান এফ রহমান মহোদয় জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়নের নতুন দিগন্তের সূচনা করছে। বিশেষ করে বেসরকারি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে তিনি যে অবদান রেখে যাচ্ছেন। তিনি তার মেধা, যোগ্যতা,  পরিশ্রম ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের মাধ্যমে বেসরকারি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে একটি বিশেষ স্থানে নিয়ে গেছেন।
তিনি বলেন, ওয়ান-ইলেভেনের সময় অনেক নেতা ব্যবসায়ীরা নেত্রীকে একা ফেলে চলে গেছেন। গা-ঢাকা দিয়েছিলেন, কিন্তু সালমান এফ রহমান সাহেব কখনোই নেত্রীর কাছ থেকে সরে যাননি। সেইদিন তিনি নিজের জীবন বাজি রেখে ব্যবসা-বাণিজ্য এমনকি নিজের জীবনকে তুচ্ছ মনে করে নেত্রীর পাশে ছিলেন। আজও তিনি আছেন, তাই তিনি নেত্রীর পরিবারের একজন হিসেবে বাংলাদেশ বিনির্মাণে বিশ্বস্ত সহযোগী হিসেবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, দোহার ও নবাবগঞ্জবাসী তার মতো একজন অভিভাবক পাওয়ায় ভাগ্যবান। কারণ তিনি শুধু বাংলাদেশ নয়, আন্তর্জাতিক ব্যবসায়িক পরিমণ্ডলে অত্যন্ত সুপরিচিত।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন-স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হুমায়ুন তৌফিক, নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু, দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেন, দোহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএফএম ফিরুজ মাহমুদ। এই সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপদেষ্টার একান্ত সচিব মো. জাহিদুল ইসলাম ভূঞা, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণ, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ মোয়াজ্জেম হোসেন, মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনার কলি পুতুল,  নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া কিসমত,  ঢাকা  জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক হালিমা আক্তার লাবন্য, দোহার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আহসান খোকন, নবাবগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি অরুণ কৃষ্ণ পাল, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক দেওয়ান আওলাদ হোসেন, এডভোকেট শাফিল উদ্দিন মিয়া, ইঞ্জিনিয়ার আরিফুর রহমান সিকদার, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন জালাল, ফজলুর রহমান ফাউন্ডেশনের পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ মোল্লা। পরে সালমান এফ রহমান ও জুনায়েদ আহমেদ পলক বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, আইসিটি  উদ্যোক্তা, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানগণকে নিয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলায় শেখ কামাল আইটি পার্ক এর জন্য প্রস্তাবিত ভূমি ও হাইটেক পার্ক স্থাপনের নিমিত্তে উপযুক্ত স্থান পরিদর্শন করেন। যন্ত্রাইল ইউনিয়নে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, নবাবগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবন, দোহার উপজেলা পরিষদের ডরমিটরি উদ্বোধন করেন। এছাড়া দোহার উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত দোহার-নবাবগঞ্জ উপজেলার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে মতবিনিময় সভা ও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেন।

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

রাহাত খুন

বেপরোয়া ‘ঘাতক’ সাদী

২৩ অক্টোবর ২০২১

দেড় বছরে সর্বনিম্ন ৪ জনের মৃত্যু

২৩ অক্টোবর ২০২১

একদিনে করোনার শনাক্তের হার ও মৃত্যু  আরও  কমেছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারা ...

টিআইবি’র গবেষণা

প্রান্তিক জনগোষ্ঠী নানা বৈষম্যের শিকার

২২ অক্টোবর ২০২১



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status