শরীর ও মন

অভারিয়ান সিস্ট বা ডিম্বাশয়ের সিস্ট কি, লক্ষন ও চিকিৎসা

মেহবুবা রহমান

৪ অক্টোবর ২০২১, সোমবার, ৮:৩৭ অপরাহ্ন

ডিম্বাশয়ের সিস্ট হলো পানি ভর্তি বেলুনের মত এর ভিতর তরল পদার্থ থাকে। এগুলি সাধারণত মাসিক চক্রে যাওয়া মেয়ে বা মহিলা অথবা যারা এখনো মেনোপজের মধ্য দিয়ে যাননি তাদের হয়ে থাকে,এগুলো ব্যথাহীন এবং নিরীহ। আপনি আপনার মাসিক চক্রের অংশ হিসাবে প্রতি মাসে একটি করে সিস্ট পেতে পারেন এবং তা আপনি কখনই জানতে পারবেন না। তারা সাধারণত বিনা চিকিৎসায় চলে যায়।

একটি সিস্ট একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় যখন এটি সরে যায় না বা বড় হয়ে যায়। এটি বেদনাদায়ক হতে পারে।এর থেকে ক্যান্সারের সম্ভাবনাও রয়েছে, তবে এটি বিরল। বয়স বাড়ার সাথে সাথে জটিলতার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
ডিম্বাশয়ের সিস্টকে দুটি প্রধান গ্রুপে ভাগ করা যায়

*বিনাইন ফাংশনাল সিস্ট
*বিনাইন নন-ফাংশনাল সিস্ট।

লক্ষনঃ
বেশিরভাগ ডিম্বাশয় সিস্ট ছোট এবং তাদের কোন উপসর্গ নেই।
যদি কোন সিস্ট উপসর্গ থাকে তবে তা হলোঃ
*সিস্টের পাশে তলপেটে চাপ, ফুলে যাওয়া, ফোলা বা ব্যথা অনুভব
*একটি সিস্ট ফেটে যাওয়ার ফলে এটি হঠাৎ, তীব্র ব্যথা হতে পারে।
*একটি সিস্ট একটি ডিম্বাশয় (টর্সন) মোচড় দিতে পারে, এবং যদি এটি ঘটে, ব্যথা অনুভূত হবে, বমি বমি ভাব এবং এমনকি বমি বমি ভাব সহ।
ডিম্বাশয়ের সিস্টের কারণঃ
ডিম্বাশয়ের সিস্টের প্রধান কারণগুলির মধ্যে
*হরমোন ভারসাম্যহীনতা,
*গর্ভাবস্থা,
*এন্ডোমেট্রিওসিস
*এবং শ্রোণী সংক্রমণ অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে।
ডিম্বাশয়ের সিস্ট হল তরল পদার্থ যা ডিম্বাশয় বা তার পৃষ্ঠে হয়। মহিলাদের দুটি ডিম্বাশয় রয়েছে যা জরায়ুর উভয় পাশে অবস্থিত।ডিম্বাশয়ের সিস্ট উভয় পাশে হতে পারে।

ডিম্বাশয় সিস্ট কতটা ক্ষতিকরঃ
বেশিরভাগ ডিম্বাশয়ের সিস্ট কোন অস্বস্তি বা ক্ষতিকর নয়। সংখ্যাগরিষ্ঠ কয়েক মাসের মধ্যেই চিকিত্সা ছাড়াই অদৃশ্য হয়ে যায়।সাধারনত যেগুলি ফেটে গেছে অথবা যারা মেনোপজের মধ্যে রয়েছে তাদের জন্য ঝুকিপূর্ন এমন কি ক্যান্সারও হতে পারে।
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com