পতনের দ্বারপ্রান্তে আফগানিস্তানের ব্যাংকিং খাত

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৫১ অপরাহ্ন

পতনের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে আফগানিস্তানের ব্যাংকিং সিস্টেম। এমন সাবধান বার্তাই দিলেন আফগানিস্তানের সবথেকে বড় ব্যাংকগুলোর একটি 'ইসলামিক ব্যাংক অফ আফগানিস্তান'- এর প্রধান নির্বাহী সৈয়দ মূসা কালীম।
দুবাই থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, বর্তমানে ব্যাংকগুলো থেকে প্রচুর পরিমানে টাকা উত্তোলন করা হচ্ছে। সেখানে শুধু টাকা উত্তোলনই হচ্ছে কিন্তু জমা হচ্ছে না। ফলে বেশিরভাগ ব্যাংকই আসলে কার্যকর নেই এবং তারা কেউই পুরোপুরি সেবা দিতে পারছেনা। কাবুলে অস্থিতিশীলতার কারনে মূসা দুবাইতেই থাকছেন।
বিবিসির খবরে বলা হয়, তালেবান ক্ষমতা দখলের আগেও আফগানিস্তানের অর্থনীতি খাদের কিনারাতেই ছিল। দেশটি মূলত বহুদিন ধরেন বৈদেশিক সাহায্যের উপর নির্ভর করে টিকে আছে। এর জিডিপির ৪০ শতাংশই আসে বৈদেশিক সাহায্য থেকে। কিন্তু তালেবান ক্ষমতা দখলের পর পশ্চিমা দেশগুলো এই সাহায্য বন্ধ করে দিয়েছে।
ফলে বর্তমানে তালেবান চীন এবং রাশিয়ার দিকে ঝুঁকছে। মূসা বলেন, আমার ধারণা শীগগিরই তালেবান চীন ও রাশিয়া থেকে অর্থ পেতে সক্ষম হবে। চীনতো এরই মধ্যে আফগানিস্তানকে পুনরায় গড়ে তোলার জন্য সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তালেবানের সঙ্গেও কাজের আগ্রহ রয়েছে তাদের।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০২১-০৯-২৮ ০১:১৪:৩৯

শেষ পর্যন্ত অর্থনৈতিক সংকট তালিবানের পতন ঘটবে মনে হচ্ছে । অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড - খনিজ পদার্থ উত্তোলন দ্রুত করার বিকল্প নেই । বৈদেশিক অর্থ আর বৈদেশিক সামরিক সাহায্য নির্ভরতা তালিবানের বিনা যুদ্ধে আফগান জয় সহজ করেছিল । আফগানরা এত পরমুখাপেক্ষি হয়ে পড়েছিল তালিবানের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর মনোভাব ই ছিল না । তালিবানের ও যদি এক ই মনোবৃত্তি থাকে তবে আর্থিক ভাবে কখনো ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না । পূর্বসূরিদের মত অন্যের অধীনে যাবে ।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি

ইউরোপের দেশ লাতভিয়ায় আবার এক মাসের বিধিনিষেধ

২১ অক্টোবর ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status