৫ ঘণ্টা পর চট্টগ্রামে নালায় পড়ে যাওয়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে

অনলাইন (৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১, মঙ্গলবার, ১০:২০ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৫৪ অপরাহ্ন

গত ২৫শে আগস্ট চট্টগ্রাম নগরের মুরাদপুর এলাকায় নালায় পানিতে পড়ে তলিয়ে যান সালেহ আহমদ নামে এক দোকানি। গেলো একমাসেও তার কোন হদিস মেলেনি। ঠিক এক মাস ব্যবধানে সোমবার রাতে নগরীতে এবার নালায় পড়ে সেহরিন মাহবুব সাদিয়া (২০) নামে এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী নিখোঁজ হন। তবে এবার প্রায় ৫ ঘণ্টা পর তল্লাশি শেষে নালা থেকে ওই শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) আগ্রাবাদের বাদামতলী মোড়ে রাত ১০টার দিকে হাঁটতে গিয়ে নালায় পড়ে যান ওই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী। এরপর ব্যাপক তল্লাশি শেষে রাত ৩টা ১০ মিনিটে ওই ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
নিহত শিক্ষার্থী সাদিয়া নগরীর হালিশহর থানার বড়পুল মইন্যা পাড়া শুক্কুর মেম্বারের বাড়ির মোহাম্মদ আলীর মেয়ে। দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সবার বড় সাদিয়া চট্টগ্রামের আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।


জানা যায়, সাদিয়া তার মামার সাথে আগ্রাবাদের চশমা মার্কেট থেকে চশমা কিনে বাড়ি ফিরছিলেন। তবে ফেরার পথে বাদামতলী মোড়ে হঠাৎ নালায় পড়ে যান তিনি।
এরপর সঙ্গে থাকা তার মামাও সঙ্গে সঙ্গে ড্রেনে ঝাঁপ দিয়ে তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে আগ্রবাদ ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এসে ঘটনাস্থলে তাকে উদ্ধারে অভিযান শুরু করে। ফায়ার সার্ভিসের পাশাপাশি স্থানীয়রাও উদ্ধার অভিযান চালায়। শেষ পর্যন্ত রাত ৩টা ১০ মিনিটে ঘটনাস্থল থেকে ৩০ গজ দূর থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।
এই বিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপপরিচালক নিউটন দাশ বলেন, রাত ১০ টার দিকে সাদিয়া নামে এক তরুণী নালায় পড়ে যায়। ঘটনার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিস এসে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। প্রায় ৫ ঘণ্টা উদ্ধার অভিযান শেষে আমরা তার মৃতদেহ উদ্ধার করি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জাহাঙ্গীর

২০২১-০৯-২৮ ০৯:২৪:০৪

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ঐ দু'টি ঘটনার জন্য দু'টি আলাদা হত্যা মামলা করা উচিত।

জামশেদ পাটোয়ারী

২০২১-০৯-২৮ ১২:০০:৩২

এক্সক্লুসিভলী মনোনীত চট্টগ্রামের মেয়র সাহেব কি জীবিত আছেন না পরপারে চলে গেছেন তা কেবল উনিই বলতে পারেন। উনাকে জনসম্মুখে এসে প্রমাণ করতে হবে যে উচি মহান আল্লাহর রহমতে বেঁচে আছেন। খুব সম্ভবত এক বছরের বেশী সময় হয়ে গেল উনি নগর পিতার দ্বায়িত্ব পেয়েছেন, কিন্তু উনি পর্দানসীন হওয়াতে উনাকে এখনো নগরের খুব বেশী মানুষের দেখার সৌভাগ্য হয়নি। সুবিধা(?) অসুবিধায় উনার কথা মনে পড়লে পোষ্টারে দেখা ছবি মনে করার চেষ্টা করা ছাড়া আর কিছু করার নাই। উল্লেখিত মর্মান্তিক ঘটনাগুলো ঘটলো ফুটপাতে স্লেভ না থাকার কারণে যা সিটি কর্পোরেশনের কাজ।

Emon

২০২১-০৯-২৭ ২২:৩০:৩৬

এগুলো দেখা আমাদের রাজনীতিবিদ যারা দেশ চলাই তাদের দেখার দরকার নাই কারণ তাদের ছেলে মেয়েরা রাস্তা দিয়ে হাটে না তারা তো দামি গাড়িতে চড়ে । নালার পাশ দিয়ে হাঁটা লাগে আমাদের মতন সাধারন যারা তাদেরই।

OVI DAS

২০২১-০৯-২৮ ১০:৪৪:২৭

এই দেশে এরকম হওয়াটাই স্বাভাবিক,,, যে দেশে রদ্নে রদ্নে দূর্ণীতিবাজ বসে আছে!!!

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

ওয়ালটন কারখানা পরিদর্শনে সালমান এফ রহমান

ইলেকট্রনিক্স শিল্প গার্মেন্টসকে ওভারটেক করবে

২৩ অক্টোবর ২০২১

শনাক্তের হার ১.৮৫

করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু

২৩ অক্টোবর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



বাইডেন মনোনীত বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত

২০২৩ সালের নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক অংশগ্রহণে কাজ করবো

DMCA.com Protection Status