‘শিক্ষিত ক্রিকেট জাতির উচিত ভারতকে অনুসরণ না করা’

স্পোর্টস ডেস্ক

খেলা ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার

নিরাপত্তার প্রশ্ন তুলে শেষ মুহূর্তে পাকিস্তান সফর বাতিল করে দেশে ফিরে যায় নিউজিল্যান্ড। পাকিস্তান সফর না করার সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ডও। কিউই ক্রিকেট বোর্ড হামলার হুমকি কেমন ছিল তার বিস্তারিত জানায়নি। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ পাকিস্তানের ক্রিকেটাঙ্গন। পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা এ নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেছেন। সেই তালিকায় যুক্ত হলেন শহীদ আফ্রিদি। সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও আইসিসিকে ধুয়ে দিয়েছেন। টেনে এনেছেন পাকিস্তান-ভারতের ক্রিকেট ও রাজনৈতিক সম্পর্ক।
নিউজিল্যান্ড বোর্ড সফর বাতিলের কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানায়নি। তবে কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী দাবি করেন, ‘নিউজিল্যান্ড দলকে ই-মেইলের মাধ্যমে হামলার হুমকি দেয়া হয়েছিল। সেই ই-মেইলটি পাঠানো হয় ভারতের মুম্বই থেকে’। ভারত-পাকিস্তানের রাজনৈতিক বৈরিতার ইতিহাস পুরনো। এর প্রভাব পড়েছে দু’দেশের ক্রিকেট কূটনীতিতে। প্রায় ৮ বছর ধরে বন্ধ ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। ক্রিকেটে পাকিস্তানের ‘শত্রু’ তালিকায় এতদিন ছিল ভারত। এখন সেখানে যুক্ত হয়েছে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। ‘শত্রু’ তালিকায় সংখ্যাটা তিনে উন্নীত হওয়ার কথা সরাসরি উল্লেখ করেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) চেয়ারম্যান রমিজ রাজা। নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সফর বাতিলে সরাসরি ভারতকে দায়ী করেননি শহীদ আফ্রিদি। তবে আকারে-ইঙ্গিতে দায়টা ভারতের ওপরই চাপিয়েছেন সাবেক পাকিস্তান অলরাউন্ডার। তিনি বলেন, ‘আপনি যদি এটাকে বড় পরিসরে চিন্তা করেন সেক্ষেত্রে বুঝতে অসুবিধা হবে না এসবের পেছনে কে রয়েছে।’ আফ্রিদির চান না পাকিস্তানের ক্রিকেট কূটনীতিতে ‘শত্রু’ তালিকায় আর কারো নাম উঠুক। তিনি বলেন, ‘একটি ভূয়া ই-মেইলকে কখনই এতটা গুরুত্ব দেয়া উচিত নয়। কোনো শিক্ষিত ক্রিকেট জাতির উচিত ভারতের থেকে দূরে থাকা। কেননা ক্রিকেট সব সময় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে বিশ্বাসী।’ আফ্রিদি মনে করিয়ে দিলেন তার সময়কার একটি ঘটনা। তিনি বলেন, ‘কোনো এক ভারত সফরের আগে আমরাও হুমকি পেয়েছিলাম। আমাদের বোর্ড চেয়েছিল আমরা যেনো সফরে যাই এবং আমরা সেটাই করেছিলাম।’ নিউজিল্যান্ডের সফর বাতিলের সিদ্ধান্তের কারণে প্রশ্নের মুখে পড়েছে পাকিস্তানের নিরাপত্তা। নিউজিল্যান্ডের এই সিদ্ধান্তকে ক্ষমার অযোগ্য বলছেন আফ্রিদি, ‘নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা পাকিস্তানকে পছন্দ করে। কিন্তু তারা (নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট) যেটা করেছে তা ক্ষমার অযোগ্য। যদি সত্যিই হামলার কোনো হুমকি পেয়ে থাকে সেক্ষেত্রে তারা বিষয়টি পিসিবিকে জানাতে পারতো এবং পাকিস্তানের নিরপত্তা সংস্থার পর্যবেক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে পারতো।’ পরপর দুটি হোম সিরিজ বাতিলে নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পিসিবি। তবে এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। তাদের নীরব ভূমিকায় ক্ষুব্ধ আফ্রিদি, ‘দলগুলো কোনো রকম (হামলার) সত্যতা ছাড়াই সফর বাতিল করছে এবং এসব কারণে পিসিবি ভুগছে। এরকম অবস্থায় ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা কীভাবে নিশ্চুপ থাকে?’

আপনার মতামত দিন

খেলা অন্যান্য খবর

থার্ড পয়েন্ট

সাকিবদের ‘টেস্ট’ ব্যাটিংয়ের ব্যাখ্যা কি?

১৯ অক্টোবর ২০২১

দুই বছরের পরিকল্পনায় বাংলাদেশকে হারিয়েছে স্কটল্যান্ড

১৯ অক্টোবর ২০২১

বাংলাদেশের বিপক্ষে পাওয়া জয়টা দুই বছরের প্রস্তুতির ফসল- এমনটাই জানান স্কটল্যান্ড দলের অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার। ...

শ্রীলঙ্কায় যুবাদের টানা দ্বিতীয় হার

১৯ অক্টোবর ২০২১

আরেকটি বিশ্বকাপ আসন্ন। আগামী বছরই ওয়েস্ট ইন্ডিজে শুরু হবে যুব বিশ্বকাপ। শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে ...



খেলা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status