মানিকগঞ্জে উপসর্গ নিয়ে স্কুল শিক্ষার্থীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ থেকে

অনলাইন (১ মাস আগে) সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৫৩ অপরাহ্ন

মানিকগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে এসকে সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুবর্ণা ইসলাম রোদেলা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়ার পথে রোদেলার মৃত্যু হয়।

রোদেলা মানিকগঞ্জ জেলা শহরের বেউথা এলাকার বশির উদ্দিন মোল্লার মেয়ে। তার রোল নম্বর ছিলো এক। মেধাবী এই ছাত্রীর মৃত্যুতে স্কুলে শোকের ছায়া মেনে এসেছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত তিন দিন ধরে রোদেলার জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধও নেয়। কিন্তু শনিবার দুপুর ১২টার দিকে শ্বাসকষ্ট, গলা ও বুকে ব্যথা উঠে অচেতন হয়ে পড়ায় তাকে দ্রুত মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার আইচআরসিটি পরীক্ষা করানো হলে দেখা যায় দুই ফুসফুসে ৩০ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছে রোদেলার।
তার শরীরের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে দ্রুত রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। পরে রোদেলাকে মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে গাবতলী এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সে নিস্তেজ হয়ে পড়ে। রোদেলাকে ইবনে সিনা হাসপাতালের নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে।

মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান বলেন, রোগীর অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। আইচআরসিটি পরীক্ষা করানো হলে তার দুটি ফুসফুসে ৩০ শতাংশ কোভিড সাসপেকটেড পাই। অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাকে দ্রুত রাজধানীর কুর্মিটোলা বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

মানিকগঞ্জ ২৫০-শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কাজী একেএম রাসেল বলেন, একজন ছাত্রী করোনায় আক্রান্তের খবর ছড়িয়ে পড়লে ওই বিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন ছাত্রী করোনা পরীক্ষার জন্য তাদের হাসপাতালে এসেছিল।

জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ বলেন, মেয়েটি গত ১৫ই সেপ্টেম্বর সর্বশেষ স্কুলে গিয়েছিল। তখন তার শরীরে কোন সমস্যা ছিল না। গত তিনদিন ধরে তার জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। শনিবার দুপুরে তাকে মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। অবস্থা ভাল না হওয়ায় সেখান থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে সে মারা যায়। আসলে সে করোনায় আক্রান্ত ছিল কি না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে এর আগে ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী করোনা পজিটিভ হওয়ায় ওই শ্রেণীর পাঠদান বন্ধ রাখা হয়েছিল। পরবর্তীতে তার ৫৮ জন সহপাঠিকে করোনা পরীক্ষা করোনো হয়েছিল। তবে, কারও দেহে করোনা শনাক্ত না হওয়ায় এবং আক্রান্ত শিক্ষার্থী সুস্থ হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে ওই শ্রেণির পাঠদান চালু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

কামরান

২০২১-০৯-২৩ ০২:২৬:০৮

Kazi জ্বর, কাঁশি, শ্বাসকষ্ট আছে, তবে সেটা করোনা ভাইরাসের কারণে নয়, অন্য কোন রোগের কারণে, সেটিকে বলে উপসর্গ।

Md. Kamruzzaman

২০২১-০৯-২৩ ১৩:৫৩:১০

অত্যন্ত দুঃখজনক । দোয়া করি মাগো আল্লাহ পাক যেন তোমাকে বেহেস্ত নসিব করেন ।

Kazi

২০২১-০৯-২২ ২৩:৪০:১৬

What is the difference between উপসর্গ and Corona ?

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status