ইউনিয়ন ব্যাংকের গুলশান শাখার ভল্ট থেকে ১৯ কোটি টাকা উধাও

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন (৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৩৭ অপরাহ্ন

দেশের বেসরকারি খাতের বাণিজ্যিক ব্যাংক ইউনিয়ন ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় সংলগ্ন গুলশান শাখার ভল্ট থেকে ১৯ কোটি টাকা উধাও হয়েছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিদর্শনে উঠে এসেছে। গত সোমবার এ ঘটনা উদ্ঘাটন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর ফলে ব্যাংকটির সব শাখার ভল্ট পরিদর্শন করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এদিকে অনিয়মের তথ্য উদ্ঘাটনের পরও শাখার কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার তথ্য পাওয়া যায়নি। গুলশান থানায়ও এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, গত সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং পরিদর্শন বিভাগের একটি দল ইউনিয়ন ব্যাংকের গুলশান শাখা পরিদর্শনে যায়। সকাল ১০টার আগেই তারা শাখায় গিয়ে উপস্থিত হন। প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী শুরুতেই তারা ভল্ট পরিদর্শন করেন। কাগজে-কলমে শাখার ভল্টে ৩১ কোটি টাকা দেখানো হলেও পরিদর্শক দল সেখানে ১২ কোটি টাকা পায়।
তাৎক্ষণিকভাবে এর কোনো জবাব দিতে পারেননি শাখার কর্মকর্তারা। পরে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে শাখা কর্তৃপক্ষ। তবে শেষ পর্যন্ত ব্যাংকটির ব্যাখ্যা তলবের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সংশ্নিষ্টরা জানান, প্রতিদিন লেনদেনের শেষ ও শুরুতে ভল্টের হিসাব মিলিয়ে নেয়ার দায়িত্ব শাখা ব্যবস্থাপক, সেকেন্ড অফিসার এবং ক্যাশ ইনচার্জের। ভল্টে টাকার হিসাবে কোনো গরমিল হলে তা মিলিয়ে নেয়ার দায়িত্ব এসব কর্মকর্তার। অনেক সময় হিসাবের ভুলে সামান্য টাকার গরমিল হতে পারে। তবে বিপুল অঙ্কের টাকার গরমিল হলে তা ফৌজদারি অপরাধ। ফলে তাৎক্ষণিকভাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে পুলিশে সোপর্দ করতে হবে। তবে এ ঘটনায় থানায় কোনো সাধারণ ডায়েরিও করেনি ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ দেয়া হয়নি।

এদিকে পরিদর্শনে গিয়ে যারা এই তথ্য উদ্ঘাটন করেছেন, তাদেরকে চাপে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ঘটনার দুই দিন পার হলেও বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত স্পষ্ট করেনি ইউনিয়ন ব্যাংক।

ইউনিয়ন ব্যাংকের গুলশান শাখার অপারেশন ম্যানেজার সাইফুল আজম মাহমুদ গণমাধ্যমকে বলেন, ব্যাংকিং বিধিবিধানের বাইরে কিছু করার সুযোগ তাদের নেই। শাখায় এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। কেউ ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করছে।'

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন ব্যাংকের গুলশান শাখার ভল্ট পরিদর্শনে গিয়ে টাকার গরমিল পাওয়া গেছে বলে তিনি শুনেছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০২১-০৯-২২ ২১:১৮:৫৭

যা বাবা এখন ভল্টকেও বিশ্বাস করার জো নেই। ভল্ট ও টাকা খেয়ে ফেলে । কথায় আছে না - টাকা দেখলে কাঠের মূর্তি ও হা করে । লোহার ভল্ট ও তাই করেছে ।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

শনাক্তের হার ১.৭৪

করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

১৭ অক্টোবর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



তদন্ত কমিটি গঠন

চাঁদপুরে সংঘর্ষ, নিহত ৩

DMCA.com Protection Status