সাবমেরিন চুক্তি বাতিল, ক্ষোভে ফুঁসছে ফ্রান্স

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১, রোববার, ১:২৯ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩৪ অপরাহ্ন

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও বৃটেনের পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির চুক্তি নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে ফ্রান্স। কারণ, যুক্তরাষ্ট্র ও বৃটেনের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া ওই চুক্তি করার ফলে ফ্রান্সের সঙ্গে আগে করা ৩৭০০ কোটি ডলারের সাবমেরিন তৈরির চুক্তি বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া। এতে ফ্রান্সের যেমন আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। তেমনি তাদের সম্মানে আঘাত লেগেছে। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত তাদের রাষ্ট্রদূতদের দেশে তলব করে নেয়া হয়েছে। তাদের কাছে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে চাইবে দেশটি। তবে সরকারি পর্যায়ে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নিন্দা অব্যাহত আছে। ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যাঁ ইভস লা দ্রিয়ান এই চুক্তি নিয়ে মিথ্যা বলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়াকে দায়ী করেছেন।
ফ্রান্স ২ টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ দুটি দেশকে দ্বৈত অবস্থান নেয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত করেছেন। অভিযোগ করেছেন বড় রকমে বিশ্বাস ভঙ্গের এবং অবমাননার। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।
অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও বৃটেন মিলে সাবমেরিন বিষয়ক যে চুক্তি করেছে তা অকাস নামে পরিচিত। এর ফলে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি দেয়া হবে অস্ট্রেলিয়াকে। দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের আধিপত্য মোকাবিলার অংশ হিসেবে এই চুক্তিকে দেখা হচ্ছে। চীন অন্যায়ভাবে দক্ষিণ চীন সাগরকে তাদের বলে দাবি করছে বলেও বলা হয়েছে। এর বিরুদ্ধে আবার বক্তব্য দিয়েছে চীন। তারা বলেছে, দক্ষিণ চীন সাগর তাদেরই। তা নিজেদের বলে দাবি করার কিছু নেই। উল্লেখ্য, অকাস চুক্তি প্রকাশ্যে ঘোষণার মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে এ বিষয়ে ফ্রান্সকে জানানো হয়েছে। এর ফলে মিত্রদের মধ্যে অগ্রগতির মারাত্মক এক সঙ্কট সৃষ্টি হবে বলে দাবি করেছেন লা দ্রিয়ান। ফ্রান্স ২ টেলিভিশনকে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্কে প্রথমবারের মতো আমরা ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে গুরুত্বর একটি রাজনৈতিক বিষয়ে তলব করেছি। এতে সঙ্কটের গুরুত্ব কতটা তা ফুটে উঠেছে। এই সঙ্কট এখন আমাদের দেশ দুটির মধ্যে বিদ্যমান। তিনি আরো বলেছেন, পরিস্থিতি মূল্যায়নের জন্য রাষ্ট্রদূতকে তলব করা হয়েছে।
লা দ্রিয়ান আরো বলেন, বৃটেনে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে তলব করার প্রয়োজন নেই। লা দ্রিয়ান বলেন, তিনি মনে করেন বৃটেন অব্যাহতভাবেই সুবিধাবাদী। ওদিকে সানডে টেলিগ্রাফে প্রকাশিত এক লেখায় অকাস চুক্তির পক্ষে অবস্থান পরিষ্কার করেছেন বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রুস। বলেছেন, এতে বৃটেনের স্বার্থ রক্ষার বিষয় আছে। ওদিকে এই চুক্তির ফলে বিশ্বে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের দিক দিয়ে অস্ট্রেলিয়া হবে সপ্তম দেশ। এছাড়া তারা মিত্রদের সাইবার সক্ষমতা, কৃত্রিম গোয়েন্দা ও পানির নিচের প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারবে।
২০১৬ সালে ১২টি সাবমেরিন নির্মাণের জন্য ফ্রান্সের সঙ্গে ৩৭০০ কোটি ডলারের চুক্তি করে। সেই চুক্তি যখন অস্ট্রেলিয়া বাতিল করে দিয়েছে, তখন শনিবার ক্যানবেরা ছেড়েছেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ-পিয়েরে থিবাউল্ট। তিনি ক্যানবেরা ছাড়ার আগে বলেছেন, একতরফাভাবে এই চুক্তি বাতিল অস্ট্রেলিয়ার একটি বিরাট ভুল। অন্যদিকে তিনটি দেশের মধ্যে সম্পাদিত এই চুক্তির বিষয়ে চীন অভিযোগ করেছে তাদের মধ্যে এখনও শীতল যুদ্ধের মানসিকতা আছে। ওদিকে হোয়াইট হাউজের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, মতবিরোধ কাটাতে কয়েক দিনের মধ্যেই ফ্রান্সের সঙ্গে যোগাযোগ করবে বাইডেন প্রশাসন।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status