নিউ ইয়র্কে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন (৪ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১, রোববার, ১:২৮ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১২:০৪ অপরাহ্ন

নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন প্রবাসী আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীরা। শনিবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে এ ঘটনা ঘটে। বিকালে জ্যাকসন হাইটসে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে স্লোগান দিচ্ছিলেন। অদূরেই বিএনপি, যুবদল, জাসাসের নেতা-কর্মীরা জড়ো হয়ে পাল্টা স্লোগান শুরু করলে উত্তেজনা তৈরি হয়। এরপর দুই পক্ষের মধ্যে হামলা, পাল্টা হামলা, ধাক্কা-ধাক্কি এবং মারপিটের ঘটনা ঘটে। এতে খবর পেয়ে শতাধিক পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির বেষ্টনী তৈরি করে। তার মধ্যেই দুই পক্ষ আক্রমণাত্মক স্লোগান দিতে থাকে। এ পরিস্থিতিতে রাত সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত যানবাহন চলাচলে বিঘœ ঘটে।
এ পরিস্থিতিতে পথচারীরা হতভম্ব হয়ে পড়েন। অনেকে দৌড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কাছের রেস্তোরাঁ বা দোকানে যারা ছিলেন, তারা ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেন। এ সময় ৩৭ এভিনিউ এবং ৭৩স্ট্রিটে যানবাহান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আশপাশের রাস্তায় থমকে দাঁড়ায় গাড়ি।
বিএনপির মিছিলে ছিলেন গিয়াস আহমেদ, জিল্লুর রহমান, মিল্টন ভূইয়া, গোলাম ফারুক শাহীন, মাওলানা অলিউল্লাহ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, মোশারফ হোসেন সবুজ, জসীম ভূইয়া, কাজী আজম, মাকসুদ চৌধুরী, কাজী আসাদুল্লাহ, রুহুল আমিন নাসির, ছাত্রদল নেতা মাজহারুল ইসলাম জনি।
অন্যদিকে আওয়ামী লীগের মিছিলে ছিলেন ড. সিদ্দিকুর রহমান, প্রদীপ কর, কাজী কয়েস, মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, জাকারিয়া চৌধুরী, আব্দুল কাদের মিয়া, মিসবাহ আহমেদ, ফরিদ আলম, আমিনুল ইসলাম কলিন্স, মোর্শেদা জামান, সুব্রত তালুকদার, নূরল আমিন বাবু, যুবলীগ নেতা ইফজাল চৌধুরী, জামাল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা দরুদ মিয়া রনেল। উত্তেজনার খবর পেয়েই শতাধিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুই পক্ষকে শান্ত করার চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশের ঘেরাওয়ের মধ্যেই দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি স্লোগান চালিয়ে যায়। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে তারা ধীরে ধীরে ওই এলাকা ত্যাগ করেন।
উল্লেখ্য, জাতিসংঘের ৭৬তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে রোববার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে স্বাগত জানাতে কর্মসূচি নিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী-সমর্থকরা।
অন্যদিকে বিএনপি নেতাকর্মীরা পাল্টা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। এ নিয়েই নিউ ইয়র্কে উত্তেজনা চলছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

nasir uddin

২০২১-০৯-২০ ১৫:৫৩:৫২

Shame to you all. Can you change things in Bangladesh fighting shamefully in New York?

Team Nurul Choudhury

২০২১-০৯-১৯ ২২:৪২:৩৫

It's a shame to demonstrate in a busy city streets of any states of any country of the world by opposing "paid" political parties. These demonstrators only bring zero results.

Joy

২০২১-০৯-১৯ ০৭:৫৩:৫২

Only people from bangladesh do it. All the stupid people peoples who destroy the respect of our country in foreign nation. They have nothing to do this country .

Khokon

২০২১-০৯-১৯ ০৬:৫৪:৪২

There is nothing like welcoming presidents or prime minister's outside the country by the people of republic's except third world country's. Because the third world country's president or prime minister's are not elected by people. That's why the feel always guilty and whenever they goes outside their own country they organize some people's to do some demonstrations in fear of them. But world knows everything now and they feel shame for us but laugh behind us.

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

শনাক্তের হার ১.৭৪

করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

১৭ অক্টোবর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



তদন্ত কমিটি গঠন

চাঁদপুরে সংঘর্ষ, নিহত ৩

DMCA.com Protection Status