পরীমনিকে দফায় দফায় রিমান্ড: দুই বিচারকের ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নন হাইকোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন (৫ দিন আগে) সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১, বুধবার, ১১:০০ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৮ অপরাহ্ন

আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনিকে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ডে পাঠানোর ক্ষেত্রে ঢাকার দুই মহানগর ম্যাজিস্ট্রেটের ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নন হাইকোর্ট। আজ বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের ভার্চুয়াল হাই কোর্ট বেঞ্চ বলেছেন, দুই বিচারকের একজন তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে মাদকের ভয়াবহতার কথা লিখেছেন। আর রিমান্ড মঞ্জুরের ক্ষেত্রে যে ত্রুটি হয়েছে, অন্য বিচারক তা ‘বিশ্বাসই করেন না’।
বনানী থানার মাদকের মামলায় পরীমনিকে দ্বিতীয় দফায় দুই দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেছিলেন ঢাকার মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস। পরে একই মামলায় মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলাম তৃতীয় দফায় আরও এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
কী কী তথ্য-উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে পরীমনিকে শেষ দুই দফা রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছিল, দুই হাকিমের কাছে সেই ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছিল হাইকোর্ট। জামিন সংক্রান্ত রুল ও রিমান্ডের বৈধতা প্রশ্নে স্বতঃপ্রণোদিত রুল জারির এক আবেদনের শুনানিতে হাইকোর্টের এই বেঞ্চ গত ২ সেপ্টেম্বর এ আদেশ দেয়। দুই বিচারককে ১০ দিনের মধ্যে তাদের ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। সে অনুযায়ী দুই মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট তাদের লিখিত ব্যাখ্যা সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রারের দপ্তরে জমা দেন। সেই ব্যাখ্যা বুধবার হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হলে বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম দুই ম্যাজিস্ট্রেটের দাখিল করা ব্যাখ্যার অংশ পড়ে শোনান।
তিনি বলেন, রিমান্ড নিয়ে হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের যে গাইডলাইন এবং আমাদের প্রচলিত আইন আছে, তারা এগুলোর বিরুদ্ধে।
যে কারণে আমরা তাদের জবাবে আমরা সন্তুষ্ট নই। এই মামলায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করার ক্ষেত্রে আমরা সন্তুষ্ট নই, যে কারণে পরবর্তী আদেশের জন্য ২৯ সেপ্টেম্বর তারিখ রখলাম। দুই মহানগর হাকিমের মধ্যে একজন পরীমনিকে রিমান্ডে পাঠানোর সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি দেখাতে গিয়ে এলএসডি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের আত্মহত্যা এবং ওই মাদকের ভয়াবহতা তুলে ধরেন।
সেটি পড়ে শুনিয়ে বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম বলেন, “আমরা তাকে শোকজ করেছি কেন তিনি রিমান্ড মঞ্জুর করলেন। তিনি ঢাকা বিশ্বাবিদ্যালয়ে কোন ছাত্র আত্মহত্যা করেছে সেটার বর্ণনা দিলেন।
এরপর বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারক অপর ম্যাজিস্ট্রেটের ব্যাখ্যা পড়ে শোনান। সেখানে ম্যাজিস্ট্রেট বলেছেন, ‘উপরোক্ত বিষয় সার্বিক বিবেচনায় দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করার আদেশের ক্ষেত্রে কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি নিতান্তই আমার ইচ্ছাকৃত নয়, সরল বিশ্বাসে কৃত ভুল।

বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম বলেন, এখানে যে ত্রুটি হয়েছে তা তিনি বিশ্বাসই করেন না। হাইকোর্টকে আন্ডারমাইন করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ৪ঠা আগস্ট পরীমনিকে বনানীর বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এরপর পরীমনির বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের হয়। তিনদফা রিমান্ড ও ১৯ দিন কারাভোগের পর গত ১লা সেপ্টেম্বর জামিনে মুক্তি পান তিনি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

neutral and suferrer

২০২১-০৯-১৫ ১৯:০৬:১৫

In Bangladesh it is easy to arrest someone using wine bottle story! Porimoni story is completely created by boat club members. Who are the boat club members? Mr. Benazir, who is the chief of Police in Bangladesh, Nasir U Ahmed who slept Porimoni, some parliamentarians, and many others. Each of these people should receive appropriate punishment by respectable Hi-Court and from the appropriate government division. We need to see that punishment is implemented in Bangladesh. Otherwise, we will see many Porimoni stories in the future.

খোকন

২০২১-০৯-১৫ ০৪:৪৫:১৫

দেশে আইনের শাসন নেই বলেই বিচার বিভাগের মধ্যেও ভেজাল ঢুকেছে ? বিচারকরা বিচারকের কাছে ক্ষমা চাচ্ছেন, এ চেয়ে আর কি লজ্জা জনক হতে পারে ? এর জন্য কে দায়ী বিচারক না সরকার ? দেশে গনতন্ত্র নেই বলেই ব্যাঙের ছাতার মতো লোক এনে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে, সে যেখানেই হোক, হোক বিচারবিভাগে, না হোক প্রশাসনে অথবা এমপি ও মন্ত্রী পদে ? কে কাকে সন্তুষ্টি করবেন, কিভাবে করবেন, কার নির্দেশ শুনবেন কার নির্দেশ শুনবেন না এগুলো নিয়েই ব্যাস্ত ও চিন্তিত থাকেন সরকারের কর্মচারিরা, সেখানে সাধারণ জনগণের ক্ষতি হোক তা তাদের দেখার বিষয় নয় ? দেশে যে আইন আছে, সংবিধান আছে, সেটা দেখা বা পরার প্রয়োজন নেই, বা পরে ও না। আর এ কারণেই সব ক্ষেত্রেই ভুলের মাসুল দিয়ে চাচ্ছে নিরীহ জনগন।

Anisur rahman , Otta

২০২১-০৯-১৫ ০৪:৪৩:১৪

I do agree with Suza. It's true ,Good Job but not for others ,only porimoni. We have seen so many humiliating incidents but never seen any actions like porimoni. Wow porimoni you have lots of admire. I am getting Jealous. Honestly you are really lucky and Dana kata pori too.

ওবাইদুল

২০২১-০৯-১৫ ১৭:০৪:৫৪

একই মদের বোতল দিয়ে বহু আসামীকে ফাসানোর ঘটনা উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিচার বিভাগীয় তদন্ত হওয়া উচিৎ। বিচার বিভাগকে পুলিশ বিভাগের মত হাস্যকর বানানোর প্রচেষ্টা দেশের জন্য ভয়ঙ্কর হবে।

TUTUL

২০২১-০৯-১৫ ১৪:৩৩:৩৩

Mr. Suja, you said absolutely right. What we can see? We can see the rule is for Porimoni. Why not for others?

আরিফ

২০২১-০৯-১৫ ০০:০২:৪২

ক্ষমা চাইলেই সব অপরাধের শাস্তি শেষ হয়ে যায়না।তাদের কঠিন শাস্তি চাই। আর রিমান্ডে যেসব কর্মকান্ড করা হয় সেগুলোর পরিবর্তে অপরাধ তদন্তের নতুন পদ্ধতি চাই।

Kabir

২০২১-০৯-১৪ ২৩:৫৭:১৫

Perdon is not enough. They have to punishment.

আবুল কাসেম

২০২১-০৯-১৪ ২৩:৪৭:০৪

রিমান্ড একটি আতংকের নাম। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদের লেখা থেকে এবং ভুক্তভোগীদের অভিজ্ঞতা থেকে জানা যায় মানে ভয়াবহ লোমহর্ষক রাত দিন এখানে একাকার। চোখ বেঁধে বৈদ্যুতিক শক দেওয়া, প্লাস দিয়ে হাতপায়ের নখ উপড়ে ফেলা, মাথার উপর উত্তপ্ত বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকতে বাধ্য করা, বরফের পানিতে ডুবিয়ে রাখা, লাঠি পেটা, চড় তাপ্পড় ও অকথ্য অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করা রিমান্ডের নিত্য দিনের ঘটনা। এছাড়া ক্রস ফায়ারের ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করার অভিযোগও রয়েছে। রিমান্ড মানবতা বিরোধী একটি প্রথা। নির্দয়তা, নিষ্ঠুরতা, বর্বরতা, অসভ্যতা নির্লজ্জতা এর মূল কথা। একজন নাগরিকের মৌলিক অধিকার পরিপন্থী এই প্রথা একেবারে বিলুপ্ত হওয়া উচিত। মানবিক মর্যাদা হানিকর ও সুবিচার পেতে একজন মানুষকে বঞ্চিত করে জঘন্য নামের রিমান্ড। আইন করে রিমান্ড প্রথা তুলে দেওয়া সময়ের দাবি। অসৎ পুলিশ সদস্যরা এটির অপপ্রয়োগ করে। সভ্য সমাজে এবং একটি স্বাধীন দেশের জন্য রিমান্ড একটি কলংক। তাই রিমান্ডের আবেদন মঞ্জুর করে লজ্জিত হওয়ার বা ক্ষমা চাওয়ার আগে এটা যে নির্যাতনের হাতিয়ার এবং মানবতা বিরোধী ও নিষ্ঠুরতম নিন্দাসূচক কাজ তা মাননীয় বিচারকের ভেবে দেখা আবশ্যক।

Amir

২০২১-০৯-১৫ ১২:৩০:০০

এটি অনিচ্ছাকৃত ভুল------তাহলে বিচারকের ভুল এর কারনে ফাঁসির রায় হলেও তো সেটা ভুল হিসেবে মেনে নিতে হবে, তাই নয় কি?(This is an unintentional mistake. If the death sentence is due to the judge's mistake, then it must be accepted as wrong, isn't it?)

আশিকুল ইসলাম

২০২১-০৯-১৪ ২৩:২৩:০০

রাজনৈতিক নেতাদের অন্যায়ভাবে রিমান্ড দিতে অভ্যস্ত হয়ে যাওয়া বিচারকরা সম্ভবত খেয়াল করেননি!

আব্দুল জব্বার

২০২১-০৯-১৪ ২২:৪৪:২৭

ক্ষমা চাওয়ার অর্থ অপরাধ বা অন্যায় কিছু ঘটেছে অথবা ভুল হয়েছে।। এর কোনটিই বিচারকদের কাছে কাম্য নয়। এই বিচারকদের দিয়ে সুষ্ঠু ভাবে বিচারকার্য পরিচালনা আর সম্ভব না তাই সরকার বিষয়টি লক্ষ্য করবে বলে আশা রাখি।।

মাহমুদ

২০২১-০৯-১৪ ২২:৩৮:০২

বিচারের আশায় মানুষ যায় বিচারালয়ে, সেই বিচারপতি যখন ভুল বিচারের জন্য ক্ষমা চান, তখন বুঝতে হবে তাদের বিদ্যার বহর কত দূর্বল এবং কোন অবৈধ পথে তাদের চেয়ারে বসানো হয়েছে! তাহলে কি পরীমনির বিচারেই শুধু ভুল হয়েছে????? আওয়ামী লীগ বিরোধী সকলের বিচার পুনঃ নিরিক্ষার দাবি রাখে। কারণ প্রধান বিচারপতি কোন পন্থায় দেশ ছাড়া !!!!!

এ,টি,এম,তোহা

২০২১-০৯-১৪ ২২:২০:২১

দেশের রাজনীতিকদের বিভিন্ন সময় বার বার রিমান্ডে নিয়েছে অথচ সে সময় আদালত কিছুই বলেনি। আশাকরি আদালতের ব্যাপারে জনগণের সংশয় এই সিদ্ধান্তের পর দূর হবে। আদালত পরিমনির ব্যাপারে যতটা সিরিয়াস অন্যদের ব্যাপারেও ততটা দেখাবে।

Mohsin Ali

২০২১-০৯-১৫ ১১:১২:২৬

আমাদের বিচারকরা ক্ষমা প্রার্থনা করছেন। প্রকৃতপক্ষে, এই সমস্ত বিচারক হত্যা এবং ধর্ষণ মামলার রায় দিচ্ছেন। আমাদের কি ভুল রায় নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত? আমাদের বিচার ব্যবস্থা কতটা বিপজ্জনক?

সুজা

২০২১-০৯-১৫ ১১:০৭:৩৫

একজন মদখোর ও রাতের রানীর জন্য হাইকোট রুল জারীও করে আবার তাকে যারা রিমান্ডে দেয় তারা ক্ষমাও চায়। অথচ রাজনীতি বিরোধীদের কতো রিমান্ডে নিয়ে কতকিছু হচ্ছে তার জন্য হাইকোটকে দেখেনি রুল ইস্যু করতে। হায়রে বাংলাদেশ

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

বিনিয়োগ ও পরিবহনমন্ত্রীর সঙ্গে সালমান এফ রহমানের বৈঠক

বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদি আরব

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

শনাক্তের হার ৫.৬৭

করোনায় আরও ২৬ জনের মৃত্যু

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাংবাদিক নেতাদের সাক্ষাৎ-

‘ব্যাংক হিসাব তলবের চিঠি এভাবে দেয়া উচিত হয়নি’

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



বাংলাদেশের উন্নয়নে সৌদি বিনিয়োগ বৃদ্ধির প্রত্যাশা

সালমান এফ রহমানের নেতৃত্বে সৌদিতে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ প্রতিনিধি দল

DMCA.com Protection Status