সিলেট বিমানবন্দরে অপেশাদারিত্বমূলক আচরণে এক কর্মী বরখাস্ত, অন্যজন প্রত্যাহার

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন (১ মাস আগে) জুলাই ৩১, ২০২১, শনিবার, ৫:৪৯ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০১ পূর্বাহ্ন

সিলেটের এম এ জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দায়িত্বরত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্মকর্তার উদাসীনতায় লন্ডনযাত্রী জামিলার যাত্রাভঙ্গের দায়ে এক কর্মীকে বরখাস্ত এবং আরেকজনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে কাকে বরখাস্ত আর কাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে তার বিস্তারিত না জানালেও বিমান কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে- ঘটনা তদন্তে তিন সদ্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়াও ওই যাত্রীর ইচ্ছানুযায়ী বিমানের পরবর্তী ফ্লাইটে লন্ডন পাঠানো নিশ্চিত করা হয়েছে।

আজ শনিবার বিমানের উপ-মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়েছে। তবে ওই বিজ্ঞপ্তিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীদের অপেশাদারিত্বমূলক আচরণের কথা জানানো হলেও ঘটনার জন্য যাত্রীকেই অভিযুক্ত করার চেষ্টা করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোহাম্মদ হাছান

২০২১-০৮-০১ ০৩:২৩:৪৮

মতি ভাই বাংলাদেশে এই টুকু শাস্তি কম কিশের, যেই দেশে চাকরি পেলে ৯০ শতাংশ কমাচারি মোস্তান হয়েজান, যাত্রী কে দোষারোপ করবেনা কি করে আশাকরি!

Imrul

২০২১-০৭-৩১ ১০:০৩:৩৪

It's unbelievable and unexpected. Most of airport workers are corrupted. I saw that video. She needs justice other ways people continue Harassment with airport workers. So I think they need immediate action and dismissed right way. that 4 corrupted airport workers.

জহিরুল ইসলাম

২০২১-০৭-৩১ ০৯:০৩:১৬

বরখাস্ত করাই কি সমাধান? এই ডাকাতকে প্রকাশ্যে এনে গণধোলাই দেওয়া দরকার।

Harunur Rashid

২০২১-০৭-৩১ ১৯:৫৭:৩২

Please suspend all of employees who are available on duty, care less, unprofessional and over smart people. twice of month before my younger brother back returned from Dhaka H S airport this type of stupid peoples .

kamal

২০২১-০৭-৩১ ১৮:৩৭:৫৬

Kick out these culprits from job. Lots of young people waiting for job.

অক্ষর

২০২১-০৭-৩১ ১৮:১৬:৫৫

এই দৃশ্য অধিকাংশ ক্ষেত্রে। সরকারী অফিসে মানুষ গেলে সেবা পায় না। এটা বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ বিশ্বাস করে ও এই পরিস্থিতিতে পরে বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে তা দেখেছে। এটা অন্যায় মূলক আচরণের বহিঃপ্রকাশ। এখানে পেশাদার আচরণ মানুষ কেন পায় না তার উত্তর দেওয়া কঠিন হলেও মানুষ এটা চলছে আমাদের সমাজে দীর্ঘ দিন ধরে। আমাদের ভিতরে অর্থে লোভ এত বেশি কাজ করে যে আমরা দুরত বিত্তবান হতে চাই। আমাদের অর্থের প্রভাব এত বেশি সব কিছুতে কাজ করে যে আমরা মানুষ না অমানুষ তাই ভেবে পাওয়া যায় না সরকারী পরিসেবার ক্ষেত্রে। যেখান সেবার প্রাপ্তির জন্য মানুষ অর্থ খরচ করে সেখানে যে পেশাদারিত্ব আচরণ আশা করে। এখানে সরকারী কর্মকর্তরা অনেকেই কর্মের বিধি ভুলে যান ও অন্যায় পথে অনেক কর্ম করে থাকেন যার শুধু মাত্র অধিক অর্থ প্রাপ্তির বা লাভের জন্য। এটা থেকে বেড় হওয়া কঠিন হবে যদি সৎ মানুষ কর্ম ক্ষত্রে কমে যায়। আমাদের এর সমাধান বেড় করতে হবে যেন মানুষ আস্থা হীন না হয়ে যায় । দিন শেষ আমরা মানুষ ও আমাদের বিবেক বুদ্ধি বলে কিছু একটা আছে যা আমাদের মানবিক মানুষ বলে পরিচয় দেয়।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটি

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

শনাক্তের হার ৬.০৫

করোনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status