দিল্লির জনজীবন স্বাভাবিক, আনলক শুরু, অশনি সংকেত দেখছেন বিশেষজ্ঞরা

বিশেষ সংবাদদাতা

ভারত (১ মাস আগে) জুলাই ২৬, ২০২১, সোমবার, ৯:৩৪ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন

করোনার তৃতীয় ঢেউ আসার মুখে সোমবার রাজধানী দিল্লিতে শুরু হয়ে গেল আনলক পর্ব। একশো শতাংশ যাত্রী নিয়ে শুরু করল গণপরিবহন চলা। দোকান বাজারে যথারীতি ভিড়। শপিংমলগুলো আগেই খুলেছিলো। জারি ছিল নিয়ন্ত্রণ বিধি। সোমবার থেকে সব সব উধাও। শপিংমলগুলির দরজা খুলতেই ভিড় চোখে পড়ছে। অরবিন্দ কেজরিওয়াল এর সরকার বলছে, রাজধানীতে করোনা সংক্রমণ এক শতাংশের কম।
এখন আর জনজীবন স্তব্ধ রাখার কোনও অর্থ হয়না। অর্থনীতির চাকাটা ঘোরা দরকার। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, লাগামছাড়া মনোভাব বিপদ ডেকে আনতে পারে। বিশেষ করে তৃতীয় ওয়েভ যেখানে মাথা তুলে দাঁড়াচ্ছে। দিল্লিবাসী খুশি হলেও অশনি সংকেত দেখছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা অশনি সংকেত দেখলেও বিনোদন শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত মানুষরা আশীর্বাদ জানাচ্ছেন অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে। সোমবার থেকেই খুলছে সিঙ্গেল ও মাল্টি স্ক্রিন। অর্থাৎ পঞ্চাশ শতাংশ দর্শক নিয়ে খুলছে সিনেমা হল, থিয়েটার হল। কনট প্লেসের এক সিনেমা হল কর্মী বললেন, সিনেমা মানেই সেলিব্রিটি তারকা নয়, সিনেমা মানে আমরাও যারা লাইট দেখাই, মেশিন চালাই। আমাদের ভাত রুটি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এবার হয়তো একটু সুরাহা হবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

ক্ষুদিরাম

২০২১-০৭-২৬ ১৫:২৩:১৪

আগেও বলেছি এখনও বলছি লকডাউন করোনা রুখতে বিন্দুমাত্র ভূমিকা রাখে না, তবে দেশ ও দশের শর্বনাশ করতে লকডাউনের বিকল্প নেই !! প্রথম ১৪ দীনের পরে আবার ১৪ দিন লকডাউন চলছে এবং আশাকরা যায় এরপরে আর ১৪ দিন লকডাউন চালানোর সামর্থ্য এদেশের নাই। অর্থাৎ এই ১৪ দিন পরে লকডাউন নিশ্চিত উঠে যাচ্ছে। তো তখন কি করোনাও উঠে যাবে ? আজ্ঞে না !! তাহলে ?????? তাহলে এভাবে লকডাউনের নাটক করে ধনিকে মধ্যবিত্ত বানিয়ে, মধ্যবিত্তকে গরীব বানিয়ে, গরীবকে মিসকিন বানিয়ে আর মিসকিনকে মেরে ফেলে সাথেসাথে দেশের অর্থনীতি ধ্বংস করে এ সরকার কার সার্থ পুরোন করলো ????????????????

আপনার মতামত দিন

ভারত অন্যান্য খবর



ভারত সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status