'খুব দেরি হয়ে যাওয়ার আগে সাবধান হন'

নিজস্ব সংবাদদাতা

অনলাইন (২ মাস আগে) জুলাই ২৫, ২০২১, রোববার, ২:৪৫ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫২ পূর্বাহ্ন

আলাবামার একজন চিকিত্সক ফেসবুকের মাধ্যমে কাতর আর্জি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, যাঁরা এখনো কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিতে সন্দেহ প্রকাশ করছেন তাঁরা খুব দেরি হয়ে যাবার আগে এখনই ভ্যাকসিন নিয়ে নিন। ডাঃ ব্রাইটনি কোবিয়ার আবেগপূর্ণ এই ফেসবুক পোস্টটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক প্রচারিত হয়েছে। বার্মিংহামের চিকিত্সক কোবিয়া বলেছেন যে, সময়ে ভ্যাকসিন না নেওয়ার জন্য অনেকেই তার কাছে এসে আফসোস করেছেন । তার অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে কোবিয়া জানিয়েছেন, শুধু প্রবীনরাই নন। আমি অনেক তরুণ, স্বাস্থ্যবান রোগীদেরও হাসপাতালে ভর্তি করেছি, যাঁরা গুরুতর কোভিড সংক্রমণের শিকার। হাসপাতালে ভর্তি হবার পর তারা বারবার আমাকে ভ্যাকসিনের জন্য অনুরোধ করে যেতেন। আমি শুধু তাঁদের হাত ধরে এটুকুই বলতাম, এখন আর কিছু করার নেই।
অনেক দেরি করে ফেলেছেন। যাঁরা তাদের প্রিয়জনকে হারিয়েছেন তাদের কাছে গিয়ে আমি শুধু বলতাম দয়া করে আর দেরি না করে আপনারা ভ্যাকসিন নিয়ে নিন এবং বাকিদের ভ্যাকসিন নিতে উদ্বুদ্ধ করুন। তাহলেই আপনার প্রিয়জনের আত্মা শান্তি পাবে। ''বুধবার বিকেল পর্যন্ত কোবিয়ার পোস্ট প্রায় ৪ হাজার বার শেয়ার করা হয়েছে ফেসবুকে। নিজের পোস্টে তিনি বর্ণনা করেছেন ''যাঁরা সদ্য নিজের ভালোবাসার মানুষটিকে প্রাণঘাতী রোগে হারিয়েছেন তাদের সঙ্গে কথা বলা কী কঠিন কাজ ছিল! অনেকেই আমার কাছে এসে কেঁদে বলতেন তারা ভ্যাকসিনকে সেভাবে গুরুত্ব দেননি , ভেবেছিলেন এটি কোনো প্রতারণার কৌশল। কেউ ভেবেছিলেন এর সঙ্গে রাজনীতির যোগসাজশ আছে। কেউ আবার এটিকে নিছক ফ্লু ভেবে উড়িয়ে দিয়েছেন, যদিও পরে তারা স্বীকার করেছেন এরকম ভাবা আসলে মারাত্মক ভুল ছিল। আমি তাঁদের ডেথ সার্টিফিকেটে লেখার সময়ে ভাবতাম ভ্যাকসিন নিলে হয়তো এরা অনেকেই বেঁচে যেতেন। কোবিয়া বুধবার একটি সাক্ষাত্কারের জন্য আবেদন প্রত্যাখ্যান করে এনবিসি নিউজকে জানিয়েছেন যে তিনি "হুমকিপূর্ণ বার্তা" পাচ্ছেন। কোবিয়া বলেছেন, "আমি কিছুটা হলেও আশ্চর্য হয়েছি এবং বুঝেছি আমার আর কিছু বলা ঠিক হবে না"। কোবিয়া AL.com ডটকমকে বলেছেন ''যাঁরা ভ্যাকসিন না নিয়ে নিজের ভাগ্য নিজেরা নির্ধারণ করেছেন তাদের উদ্দেশে সত্যি কিছু বলার থাকতে পারে না। কিন্তু যখন আমি স্বজনহারাদের মুখোমুখি হয়ে কথা বলতে যাই তখন আমার চিন্তাধারা যেন বদলে যায়, তাদের কাছ থেকে জানতে পারি ভ্যাকসিন নিয়ে তাদের মধ্যে কত অজ্ঞতা কাজ করছে, কত ভুল তথ্য রয়েছে তাদের কাছে। ''বার্মিংহামের আলাবামায় সবচেয়ে কম টিকা দেওয়া হয়েছে। পরিসংখ্যান অনুসারে, রাজ্যের জনসংখ্যার কেবলমাত্র ৩৮ শতাংশ লোক কমপক্ষে একটি ভ্যাকসিনের ডোজ পেয়েছে, এবং মঙ্গলবার পর্যন্ত মাত্র ৩১ শতাংশ সম্পূর্ণ টিকা গ্রহণ করেছে। গত দু'সপ্তাহ ধরে, আলাবামায় প্রতিদিন ৬৯৪ জন আক্রান্ত হচ্ছেন, শতাংশের হিসেবে যা ৫৭৩. আলাবামা, আরকানসাস, লুইসিয়ানা এবং টেনেসি রাজ্যগুলি কোভিড-১৯ এর হট স্পট হিসাবে পুনরায় আত্মপ্রকাশ করেছে। স্থানীয় স্বাস্থ্য আধিকারিকরা বলছেন ডেল্টা ভেরিয়েন্টের প্রকোপ সেই সঙ্গে ভ্যাকসিন না নেওয়ার প্রবণতা এর জন্য দায়ী। গবেষণায় দেখা গেছে যে কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিনগুলি ডেল্টা ভেরিয়েন্ট সহ একাধিক ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকর। ফাইজার ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা ৯৬ শতাংশ কমিয়ে দেয় বলে জানাচ্ছে ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য রিপোর্ট।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০২১-০৭-২৫ ২২:২৩:৫৬

যাদেরকে আল্লাহ মারতে চান তাদের অন্তরের আলো আগেই নিভিয়ে দেন। ভাল পরামর্শকে উল্টো ব্যাখ্যা করে, পরামর্শ দাতাকে হুমকিও দেয় । আল্লাহ তাদেরকে ভাল মন্দ বুঝার জ্ঞান ফিরিয়ে দিন।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

মুফতি ইব্রাহীম আটক

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status