আলাপন

আমার খোঁজ কেউ নেয় না - আফজাল শরীফ

মাজহারুল তামিম

বিনোদন ২৫ জুলাই ২০২১, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১৭ অপরাহ্ন

দীর্ঘ সময় যাবত মেরুদণ্ড, কোমর ও হাড়ের ব্যথায় ভুগছেন ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা আফজাল শরীফ। ২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর এই শিল্পীকে চিকিৎসা সহায়তায় ২০ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এখন কেমন আছেন? আফজাল শরীফ মানবজমিনকে বলেন, আগের মতোই আছি। মেডিসিনের উপর চলছে।
করোনার এই সময়ে কীভাবে দিনগুলো পার করছেন? এ অভিনেতা  বলেন, বাসাতেই বেশিরভাগ সময় কাটে। বন্দী জীবন। সর্বশেষ কোন সিনেমার শুটিং করেছিলেন। মনে আছে?
উত্তরে আফজাল শরীফ বলেন, সম্ভবত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’ ছবিটি করেছি৷ অনেক দিন ধরেই  অভিনয়ের বাইরে আছি।
দেড় বছরের মতো হবে। ব্যথার কারণে আপনি তো বেশিক্ষণ দাড়িয়ে থাকতে পারেন না। অসুস্থতাই কি এই বিরতির কারণ? আফজাল শরীফ বলেন, শুধু অসুস্থতা না। আসলে এখন তেমন কোনো সিনেমার শুটিং হচ্ছে না। ফাঁকে ফাঁকে দুই-একটা সিনেমার শুটিং করেন কেউ কেউ। আর আগে অনেক মানুষ যেতো সিনেমা হলে। এখন তো হলের অবস্থা খুব খারাপ।  আসলে করোনা মহামারী সবকিছু ওলট-পালট করে দিয়েছে।
অভিনয়টাকে মিস করেন কী? এ অভিনেতা বলেন,  তা তো করিই। অভিনয়ের পোকা ছিলাম। এখনও আছি। হলে যখন সিনেমা মুক্তি পেত আনন্দের কোনো শেষ থাকতো না। নিজের অভিনয় নিজে দেখে ভুল ধরার চেষ্টা করতাম। কোন জায়গায় একটু অন্যরকম করলে ভালো হতো সেটা খেয়াল করতাম।
চলচ্চিত্রের সহকর্মীরা আপনার খোঁজ খবর নেন। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ আছে? আফজাল শরীফ সাফ বলেন, না। আমার খোঁজ কেউ নেয় না। আমাদের শিল্পীদের একটা সমিতি আছে। সেখান থেকেও খোঁজ নেয়া হয় না। অসুস্থ হওয়ার পর প্রথমদিকে দুই-একজন ফোন করতো। এখন আর করে না। ক্যারিয়ার নিয়ে কোনো স্বপ্ন আছে যেটা পূরণ হয়নি? আফজাল শরীফ বলেন, হ্যাঁ, আছে। নিদের্শনা দিতে চাই। করোনা পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলেই কাজটি করবো। প্রথমে নাটক নির্দেশনায় যাবো। তারপর চলচ্চিত্র। এমনই চিন্তা ভাবনা করেছি। উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালে হুমায়ূন আহমেদ রচিত ‘বহুব্রীহি’ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে আফজাল শরীফ ছোটপর্দায় আত্মপ্রকাশ করেন। ১৯৯২ সালে গৌতম ঘোষ পরিচালিত 'পদ্মা নদীর মাঝি' দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন৷ অনবদ্য অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন এ অভিনেতা।
 

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

এমএকে আজাদ

২০২১-০৭-২৫ ১৮:৪৭:১৫

বাংলাদেশী চলচ্চিত্রের অনেক নামকরা অভিনেতা, অভিনেত্রীদেরও এই অবস্থা হয়েছিল একটা সময়। এদের কয়েক একজন এখনও বেঁচে আছেন। তবুও তো আপনি অভিনেতা হওয়ার সুবাদ সংবাদ হয়েছেন। কিন্তু যারা সাধারণ মানুষ তাদের কী অবস্থা? সুতরাং হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এখনও অনেক মানুষের চেয়ে অনেক ভালো আছেন, আবার অনেকের চেয়ে খারাপও আছেন। জীবনে মানুষের কাছ থেকে কিছু আশা করা ঠিক না, কারণ বেলাশেষে সব মানুষই একা।

সুষমা

২০২১-০৭-২৪ ২২:৪০:৫১

আফজাল সাহেব-আসলে আমরা মানুষরা যেন দিন দিন কেমন হয়ে গেছি।কাছের মানুষদের দূরে সরে যাওয়া দেখতে পাই।কষ্ট পাই।কিন্তু কি আর করা যাবে! আর এখন করোনা মানুষকে যেন আরও বেশি স্বার্থপর করে তুলেছে।আমাদের বড় সমস্যা হলো আমরা কথা বলতে পারি।তাই বড় ভয় হয় আমরা কি পশুদের মত বোবা হয়ে যাব আর বোবা প্রাণিই কি কথা বলে উঠবে??সৃষ্টকর্তা আপনাকে সুস্থ করে তুলুন।প্রার্থনা রইলো।

আপনার মতামত দিন

বিনোদন অন্যান্য খবর

এবার নয়া লুকে

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

আশাবাদী অপু বিশ্বাস

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

রহস্য ভাঙলেন অধরা

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিরতিতে জোভান

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

একইদিনে নিরবের দুই সিনেমা

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছোট পর্দায় আজ

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

এনটিভিতে ‘মেহমান’এনটিভিতে আজ রাত ৮টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে ধারাবাহিক নাটক ‘মেহমান’। নাটকটি প্রতি ...

একাধিক নাটকে মৌ রহমান

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

মামলা করতে আদালতে জেমস

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১



বিনোদন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status