‘কাশ্মীরিরা স্বাধীনতাকে বেছে নিতে পারেন’- ইমরান খান

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন (১ মাস আগে) জুলাই ২৪, ২০২১, শনিবার, ১:৪২ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

কাশ্মীরিরা স্বাধীনতাকে বেছে নিতে পারেন। আগে দেয়া প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে শুক্রবার এ কথা বলেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি এদিন দু’বার কাশ্মীরিদের প্রতিশ্রুতি দেন। বলেন, জাতিসংঘের মাধ্যমে কাশ্মীরিরা যদি স্বাধীনতা চায়, তাহলে তাদেরকে তা দেবে ইসলামাবাদ। তারার খাল এবং কোটলিতে নির্বাচনের শেষ দিনে শুক্রবার দুটি নির্বাচনী র‌্যালিতে ভাষণ দেন তিনি। তার বিরুদ্ধে বিরোধীরা অভিযোগ করেন যে, ইমরান খান আজাদ জম্মু-কাশ্মীরকে একটি প্রদেশে পরিণত করতে চান। এ ছাড়া এসব ধারণা কোথা থেকে আসছে সে বিষয়ে তিনি জানেন না। এসব অভিযোগের কড়া জবাব দিয়েছেন ইমরান।
এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে মুক্তি আন্দোলন করে আসছেন কাশ্মীরিরা। বলেছেন, এতে যারা অনাকাঙ্খিতভাবে জীবন উৎসর্গ করেছেন তা বৃথা যাবে না। তাদের উচিত নিজেদের স্ব-অধিকার চর্চা করা। তারা চাইলে জাতিসংঘ সমর্থিত একটি গণভোটের মাধ্যমে ভারতের সঙ্গে নয়, পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হতে পারে। ইমরান খান বলেন, তারপর আমরা আরেকটা গণভোট দেব। তাতে জানতে চাওয়া হবে, তারা পাকিস্তানের সঙ্গেই বসবাস করতে চায়, নাকি স্বাধীন জাতি হিসেবে থাকতে চায়। ইমরান খান দুটি রাজনৈতিক র‌্যালিতেই এই কথা বলেন। এ সময় উল্লসিত জনতা তাকে করতালি দিয়ে অভিবাদন জানান। ইমরান খান বলেন, যে জাতি কমপক্ষে ১৫০ বছর অধিকারের জন্য লড়াই করছে তাদের সেই অধিকার পাওয়া উচিত। স্মরণ রাখবেন, এই সিদ্ধান্ত কাশ্মীরিদেরই নিতে হবে। সেই দিন বেশি দূরে নয়, যেদি আপনারা আপনাদের মুক্ত ভবিষ্যতের সিদ্ধান্ত নেবেন।
ইমরান খান বলেন, কাশ্মীরিদের লড়াই শুধু ভূমির জন্য নয়। তাদের লড়াই মৌলিক মানবাধিকার, গণতান্ত্রিক অধিকারের। এ অধিকারের মধ্য দিয়ে তারা তাদের নিজেদের ভাগ্য নির্ধারণে সিদ্ধান্ত নিতে চায়। যদিও কাশ্মীরের মানুষ ইতিহাসে তাদের সবচেয়ে কঠিন সময় পাড় করছে, কিন্তু ভারত শিগগিরই তাদের অধিকারে সম্মান দেখাবে। গণভোট দেবে। ইমরান খান নিজেকে কাশ্মীরের দূত হিসেবে বর্ণনা করেন। কথা দেন, তিনি আন্তর্জাতিক সব ফোরামে বিশ্ব নেতা এবং আন্তর্জাতিক মিডিয়ার কাছে এ বিষয়ে তার কণ্ঠ সোচ্চার রাখবেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mohammed Muslim Uddi

২০২১-০৭-২৪ ২১:২৪:০২

এখন প্রায় শত বছর পার হচ্ছে কাশ্মীর সমস্যা। এর প্রধান কারণ পাকিস্তানের স্বৈরাচারী মনোভাব এবং আচরণ। পাকিস্তান আসলেই চায়না যে কাশ্মীর একটি সম্পূর্ণ স্বাধীন রাষ্ট্র হউক।আবার তলে তলে গণভোটের নামে কাশ্মীরকে পাকিস্তান নিজেদের দখলে নেওয়ার খায়েশ বেশী! মূল কথা হল কাশ্মীরকে স্বাধীনতা অর্জনে পাশাপাশি দাঁড়াবার আদৌ শক্তি নেই পাকিস্তানের। কাশ্মীরকে স্বাধীনতা দিতে পাকিস্তান একবার ভারতের সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে পরলে গোটা পাকিস্তানই ভারতের দখলে চলে যাবে।

Emon

২০২১-০৭-২৪ ০৬:২২:৩১

ভারতে কাশ্মীরিা অসহায় পরাধীন । BJP সরকার কাশ্মিরে slow motion genocide চালাচ্ছে। so কাশ্মিরিদের জন্য স্বাধীনতার বিকল্প নাই।

Obak

২০২১-০৭-২৪ ০৪:৫১:২৩

জাতিসংগের আন্ডারর গণভোটে দেবার প্রতিশ্রুতি দেয়া আছে আইএসআইয়ের ভয় পেলে ভোটার সময় জাতিসংঘ বাহিনী মোতায়েন করা যেতে পারে . কাশ্মীর ভারতের নয় কাশ্মীরিদের.

sdd

২০২১-০৭-২৪ ১৭:৩৬:৪৫

পাকিস্তান তাদের নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরকে স্বাধীন রাষ্ট্র করে দিক, তাহলে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের স্বাধীনতা নিয়ে কথা বলার যোগ্যতা অর্জন করবে। গণভোটের কথা বলে লাভ নাই, এর ফল আইএসআই কর্তৃক নির্ধারিত।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

গুয়ান্তানামোয় শুনানি স্থগিত

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status