পাকুন্দিয়ায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নতুন মেরূকরণ

আহ্বায়ক সোহরাব, এমপি পক্ষের বিক্ষোভ, রেনুর না

আশরাফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ থেকে

শেষের পাতা ২৪ জুলাই ২০২১, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৫৭ অপরাহ্ন

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নতুন মেরূকরণ শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির এক সভা থেকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগকে সাংগঠনিক ধারায় ফিরিয়ে আনার জন্য আহ্বায়ক নির্বাচন করা হয়েছে। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে আহ্বায়ক নির্বাচিত করা হয়েছে। এ ছাড়া দ্রুত সময়ের মধ্যে জেলা নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করার জন্য নতুন আহ্বায়ক এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মো. কামরুল আহসান শাহজাহান। এতে ৭১ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটির মৃত পাঁচজন সদস্য ছাড়া ৬৫ জন সদস্যের মধ্যে ৪৯ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের সংসদ সদস্য মো. আফজাল হোসেন ও কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক সভায় উপস্থিত ছিলেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এম এ আফজল সভা পরিচালনা করেন। সভায় পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হিসেবে এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে নির্বাচিত ঘোষণা করার পর পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু প্রতিবাদ জানিয়ে সভাস্থল ত্যাগ করেন। এ ছাড়া সভায় কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদের সঙ্গে পাকুন্দিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন সম্মেলনে উপস্থিত থাকার কারণে অব্যাহতি দেয়া দুই নেতা জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এডভোকেট আবু নাসের ফারুক সনজু এবং কার্যনির্বাহী সদস্য এডভোকেট শহীদুল ইসলাম হুমায়ুনের অব্যাহতির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগ সূত্র জানিয়েছে, কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য না হওয়ায় তাকে এই সভায় অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।
এদিকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হিসেবে এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনের নাম ঘোষণার পর তাকে ‘কাগুজে আহ্বায়ক’ আখ্যা দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদে মুখর হন সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ সমর্থকরা। গতকাল শুক্রবার দুপুরে সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেই পাকুন্দিয়া পৌরসদরে বিক্ষোভ মিছিল করেন এমপি সমর্থক নেতাকর্মীরা। বেলা সোয়া ১২টার দিকে ডাকবাংলোর সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের করা হয়। এ সময় সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ ডাকবাংলোতে অবস্থান করছিলেন। বিক্ষোভ মিছিল বের করার আগে নেতাকর্মীরা ডাকবাংলোয় এমপি’র সঙ্গে বৈঠক করেন। বিক্ষোভ মিছিলে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্মআহ্বায়ক মোতায়েম হোসেন স্বপন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হুমায়ুন কবীর, জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি বাবুল আহমেদ, নারান্দী ইউপি চেয়ারম্যান সাবেক ভিপি শফিকুল ইসলাম শফিক, বুরুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা রুবেল, সুখিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ টিটু, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম দেওয়ান প্রমুখসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। বিক্ষোভ মিছিলটি সোহ্‌রাববিরোধী বিভিন্ন স্লোগানের মধ্য দিয়ে উপজেলা পরিষদ গেট পর্যন্ত গিয়ে পুনরায় ডাকবাংলোর সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। সেখানে জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ বলেন, ‘সোহ্‌রাব সাহেবকে অব্যাহতি না দেয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’ এদিকে সরকারঘোষিত লকডাউনে ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, যানবাহন বন্ধ থাকলেও বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে এমপি পক্ষের বিক্ষোভ মিছিল করা নিয়ে স্থানীয়রা নানা সরস মন্তব্য করছেন।
অন্যদিকে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু আহ্বায়ক হিসেবে এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে নাকচ করে দিয়ে বলেন, যে সোহরাব উদ্দিন পাকুন্দিয়ায় আওয়ামী লীগের সভায় ১৪৪ ধারা জারি করিয়েছেন, আওয়ামী লীগের সভামঞ্চে আগুন দিয়েছেন, তাকে আহ্বায়ক হিসেবে কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। সোহরাব উদ্দিন যে কমিটির আহ্বায়ক, আমি সে কমিটির সদস্যও হবো না।
২০০০ সালের ১৮ই আগস্ট এডভোকেট এএফএম ওবায়দুল্লাহকে আহ্বায়ক করে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ৭৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। দীর্ঘ প্রায় ২১ বছরেও কমিটি পুনর্গঠন বা আর কোনো সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি। এই সময়ে দুইজন যুগ্ম আহ্বায়কসহ অন্তত মোট ৩১ জন সদস্য বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেছেন এবং তিনবার আহ্বায়কের পদ থেকে পদত্যাগ করেন এডভোকেট এএফএম ওবায়দুল্লাহ। সর্বশেষ গত বছরের ২০শে সেপ্টেম্বর তিনি আহ্বায়কের পদ থেকে পদত্যাগ করার পর আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদের নেতৃত্বে পাকুন্দিয়া উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসব ইউনিয়নের সম্মেলনে কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তবে এসব সম্মেলন আয়োজন কেন্দ্রীয় ও জেলার নির্দেশনা ছাড়া করার অভিযোগ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল আহসান শাহজাহান এবং সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এম এ আফজল। তারা গত ২১শে জুন চিঠি দিয়ে কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদকে পাকুন্দিয়া উপজেলা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত কোনো প্রকার সাংগঠনিক কার্যক্রম না করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছিলেন। গত ২৪শে জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপি বরাবরও তারা লিখিত অভিযোগ করেন। এ প্রেক্ষিতে কেন্দ্র থেকে গত ৯ই জুলাই পত্রের মাধ্যমে গঠনতন্ত্র বহির্ভূত প্রক্রিয়ায় কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কমিটি গঠন করায় কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদকে সতর্ক করার পাশাপাশি গঠনতন্ত্র বহির্ভূত প্রক্রিয়ায় গঠিত পাকুন্দিয়া উপজেলার ইউনিয়ন কমিটি বিলুপ্ত করার বিষয়টি জানানো হয়। এ পরিস্থিতিতে গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে আহ্বায়ক করে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের এক সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়।
আহ্বায়ক নির্বাচিত হওয়ার পর এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিন বলেন, আশা করছি জেলা কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে এক সপ্তাহের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটি গঠন করতে পারবো। এ উপজেলায় আওয়ামী লীগকে একটি শক্তিশালী সাংগঠনিক কাঠামো দেয়াই হবে আমার প্রধান লক্ষ্য। সে লক্ষ্যে আমি সকলের দোয়া ও সহযোগিতা চাই।
এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মো. কামরুল আহসান শাহজাহান ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এম এ আফজল বলেন, পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অচলাবস্থা নিরসনের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এডভোকেট মো. সোহ্‌রাব উদ্দিনকে আহ্বায়ক করা হয়েছে। বড় দল হিসেবে এ নিয়ে কারও কারও মধ্যে ক্ষোভ-বিক্ষোভ থাকতেই পারে। তবে, আমাদের প্রত্যাশা, এরমধ্য দিয়ে পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগকে সাংগঠনিক ধারায় ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চাকরির প্রলোভন

পুলিশের জালে প্রতারক চক্র

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

চীন থেকে সিনোফার্মের আরও ৫৪ লাখ টিকা এসেছে

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

চীন থেকে কেনা সিনোফার্মের আরও ৫৪ লাখ ১ হাজার ৩৫০ ডোজ করোনার টিকার চালান দেশে ...

অতিরিক্ত মদ্যপানে চট্টগ্রামের ২ ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ্যপানে রাফসান হাবিব (৩০) ও মোনতাসির পিয়াম (২১) নামে ...

কুমিল্লা-৭ আসন

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন প্রাণ গোপাল দত্ত

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

কুমিল্লা-৭ আসনের উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক ...

এ পর্যন্ত মৃত্যু ৫৯

২৩২ জন নতুন ডেঙ্গু রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে ...

নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে হেলসিঙ্কি হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে গতকাল ...

সাংবাদিক নেতাদের সংবাদ সম্মেলন আজ

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

দেশের সাংবাদিকদের শীর্ষ ৬ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে আজ জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ ...



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status