ডাক্তার ভর্তি নেননি, দিরাইয়ে হাসপাতালের সামনে রাস্তায় নবজাতকের জন্ম

দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

বাংলারজমিন ২২ জুলাই ২০২১, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে প্রসব ব্যথায় কাতর স্ত্রীকে নিয়ে প্রত্যন্ত এলাকা থেকে দুর্গম পথ পেরিয়ে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন এক স্বামী। জরুরী বিভাগে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার ওই নারীকে ভর্তি না নিয়ে সিলেটে নিয়ে যেতে বলেন। শরণাপন্ন হন এক মেডিকেল অফিসারের। তিনিও একই পরামর্শ দেন। ভর্তির চেষ্টা করে ব্যর্থ রেস্তোরাঁ শ্রমিক স্বামী স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতাল ফটকের সামনে এসে এম্বুল্েন্সের খোঁজ করতে থাকেন। এসময় স্ত্রীর প্রসব ব্যথা তীব্র হয়ে উঠলে তাকে ফটকের সামনে দিরাই নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের রাস্তায় নিয়ে যান। কয়েক মিনিটের মধ্যেই ফুটফুটে মেয়ে সন্তান জন্ম দেন তার স্ত্রী। ভুক্তভোগী ওই নারী দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া ইউনিয়নের ডুলকর গ্রামের রুবেল মিয়ার স্ত্রী রাসমিনা (২১)।
বৃহস্পতিবার (২২) জুলাই দুপুর ১২ টার দিকে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান ফটক সংলগ্ন উপজেলা নির্বাচন অফিসের প্রবেশপথে এ ঘটনা ঘটে। রাসমিনা'র স্বামী রুবেল মিয়া (২৭) বলেন, আমার স্ত্রীর প্রসব ব্যথা শুরু হলে আমি দিরাই হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসি। প্রথমে কাউকে পাইনি। অনেকক্ষণ খোঁজাখুজি করে একজনকে জরুরি বিভাগে পাই। তিনি আমার স্ত্রীকে সিলেট নিয়ে যেতে বলেন। আমি গরীব মানুষ। এতো টাকা কোথায় পাবে। এই চিন্তা করে বড় ডাক্তারের খোঁজ করতে থাকি। এসময় ডাক্তার মনি রাণীকে খোঁজে পেয়ে তাকে আমার স্ত্রীর বিষয়ে বলি। তিনি আমার স্ত্রীকে দেখে বলেন, রোগীর অবস্থা ভালো না। তাড়াতাড়ি সিলেট নিয়ে যেতে হবে। আমি বারবার অনুরোধ করলে বলেন, দোতলায় নিয়ে যেতে। তিনি বলে দেবেন। আমি কোলে করে আমার স্ত্রীকে নিয়ে দোতলায় যাই। সেখানে একজন নার্স ছিল। আমাকে ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়নি। নার্স বলে এখানে রাখলে মা-সন্তান দুজনই মারা যেতে পারে। আমার স্ত্রীকে কোন পরীক্ষাও করা হয়নি। আমি বারবার অনুরোধ করেছি, অন্তত: দুইঘন্টা আমার স্ত্রীকে হাসপাতালে রাখতে। কিন্তু তারা রাখেনি। তাদের কথায় ভয়ে নিরুপায় হয়ে সিলেট যাওয়ার জন্য রওয়ানা হই। হাসপাতালের গেইটের সামনে যাওয়ার পর আমার স্ত্রীর ব্যথা সহ্য করতে পারছিল না। রাস্তার পাশের অফিসের রাস্তায় নিয়ে গেলে সাথে থাকা আমার মা ও আরেকজন মহিলার সহযোগিতায় কাপড় দিয়ে পর্দা দিয়ে আমার স্ত্রী কিছু সময়ের মধ্যে ১ মেয়ে সন্তানের দেয়। এটি আমার প্রথম সন্তান ছিল। পরে আমি হাসপাতালে গিয়ে একজন নার্সকে ঘটনা বললে তিনি ওই অফিসের বারান্দায় এসে আমার স্ত্রী সন্তানকে দেখে যান। মা ও মেয়ে সুস্থ আছে এবং তাদের বাড়ি নিয়ে গেছেন বলে জানান রুবেল মিয়া। আক্ষেপ করে রুবেল মিয়ার সাথে থাকা তার ছোট ভাই জাহিদুল বলেন, যা দেখলাম হাসপাতালে, বলার ভাষা নাই। যাদের টাকা আছে, তাদের হাসপাতাল আছে, ডাক্তার আছে, চিকিৎসা আছে। যাদের টাকা নাই তাদের কিছু নেই। ঘটনার সময়ে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ স্বাধীন কুমার দাস তার সিলেটের বাসায় ছিলেন। এ বিষয়ে জানতে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মনি রাণীর মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

AMIR

২০২১-০৭-২৩ ০৯:২৯:২৭

ডাঃ মনি রাণীর মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি। -------অপরাধীরা সত্যের মুখোমুখি হতে ভয় পায়!

abdul karim

২০২১-০৭-২২ ১৮:৫২:৩৩

ওরা ডাক্তার নামের কলঙ্ক

Md. Harun al-Rashid

২০২১-০৭-২২ ২৩:৫৩:০৯

এ সব চিকিৎসকে কেবল করুণা করতে ইচ্ছে হয়। এরা দ্বারে দ্বারে ভিক্ষে করে বাঁচুক।

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন অন্যান্য খবর

১০ টাকা কেজির চাল নিতে গিয়ে ঘাড় ধাক্কা খেলেন নারী, বৃদ্ধকে চড়থাপ্পড়

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নে ১০ টাকা কেজি দরের চাল কিনতে গিয়ে ঘাড় ধাক্কা খেলেন ...

রাতের আঁধারে ঘর তুলে জমি দখল

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছাতকে বৈদ্যুতিক শকে আহত শ্রমিকের মৃত্যু

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছাতকে বৈদ্যুতিক শকে আহত শ্রমিক শামীম আহমদ (৩০) মৃত্যুবরণ করেছেন। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট ওসমানী ...

ডেঙ্গু চিকিৎসা ব্যাহত

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পড়ে আছে অর্ধকোটি টাকার যন্ত্র

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসায় ২০ শয্যার ইউনিট খোলা হয়েছে। অথচ রক্তের ...

শিবচরে অপহরণের দু’দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

মাদারীপুর জেলার শিবচরে অপহরণের দু’দিন পর নির্মাণাধীন একটি টয়লেট থেকে কুতুবউদ্দিন নামের দুই বছর বয়সী ...

বরগুনায় প্রক্সি আসামির দুই বছর কারাদণ্ড

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

বরগুনা আদালতে মূল আসামির পরিবর্তে প্রক্সি দিতে আসা মো. আল আমীন রুবেল নামের একজনকে দুই ...



বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status