চট্টগ্রামে দীর্ঘ হচ্ছে চিকিৎসকের মৃত্যু তালিকা

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে

দেশ বিদেশ ১৮ জুলাই ২০২১, রোববার

বন্দর নগরী চট্টগ্রামে করোনা মহামারি মোকাবিলায় সম্মুখযোদ্ধা চিকিৎসকদের লাশের সারি দীর্ঘ হয়েছে অনেক। সর্বশেষ গত ১৪ই জুলাই চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের হৃদরোগ বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ডা. মোস্তফা কামাল করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। আর এই মহামারিতে ডাক্তারদের আক্রান্ত হওয়ার হার দিন দিন বাড়ছে। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন বিএমএ এর চট্টগ্রাম শাখার প্রদত্ত তথ্যানুযায়ী, এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনায় ২৫ চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৪ জন নারী চিকিৎসকও রয়েছেন। আর ১২ই জুলাই পর্যন্ত ৭৭৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যেটি ঢাকায় মোট আক্রান্ত ৮৬৮ জনের পরেই অবস্থান। জানা গেছে, চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম মারা যান ডাক্তার এহসানুল করিম।
তিনি গত বছরের ৩রা জুন দায়িত্বপালন করা অবস্থায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপর সেই বছর সব মিলিয়ে ৯ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়। আর সর্বশেষ চলতি মাসের ১৫ই জুলাই চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যাপক ডা. মোস্তফা কামালের মৃত্যুসহ এই বছরে আরও ১৬ চিকিৎসকের মত্যু হয়। মৃত্যুবরণকারী এসব ডাক্তারদের মধ্যে ৩ জন ছাড়া সবাই বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। সরকারি ৩ জনের মধ্যে একজন আবার অবসরপ্রাপ্ত সরকারি  চিকিৎসক।
কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত ডাক্তার আরিফ মোরশেদ তালুকদার জানান, শুরুতে সবার মতো ডাক্তারদের মধ্যেও করোনা আতঙ্ক ছিল। এরপরও সরকারি-বেসরকারি ডাক্তাররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাধারণ মানুষের সেবা দিয়েছেন। তবে এখনো পিপিইসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষার সামগ্রী সহজলভ্য হয়নি। সব ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা গ্রহণ নিশ্চিত করা যায়নি। নগরীর বেসরকারি ন্যাশনাল হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার সালেহুজ্জামান বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু সবদিকেই বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসকরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।’ এই বিষয়ে বিএমএ এর চট্টগ্রাম জেলার সেক্রেটারি ডা. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী মানবজমিনকে বলেছেন, ‘এই পর্যন্ত করোনায় প্রাণ হারানো বা আক্রান্ত হওয়া কোনো চিকৎসক ঘোষিত এই প্রণোদনা পেয়েছেন কিনা আমার জানা নেই। তবে আমরা তো কোনো প্রণোদনার আশায় মাঠে কাজ করছি না। জাতির এই দুর্দিনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ ভূমিকা রেখে চলছি।’ ডাক্তারদের প্রণোদনা না পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে এই চিকিৎসক নেতা বলেন, ‘করোনায় পেশাজীবীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন চিকিৎসকরা। আর প্রতিদিন যে হারে ডাক্তাররা আক্রান্ত হচ্ছেন সরকার চাইলেও সবাইকে প্রণোদনার মধ্যে আনার সুযোগ নেই। তাই অন্তত করোনায় দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় প্রাণ হারানো সরকারি, বেসরকারি সব চিকিৎসকদের সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা দরকার।’

আপনার মতামত দিন

দেশ বিদেশ অন্যান্য খবর

কর্মশালায় বক্তারা

ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা চূড়ান্তকরণে বিলম্ব নয়

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

খাদ্যে উচ্চমাত্রার শিল্পোৎপাদিত ট্রান্সফ্যাটের কারণে প্রতিবছর পৃথিবীতে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ হৃদরোগে মৃত্যুবরণ করেন। ডব্লিওএইচও’র ...

ঢাকা-মালে ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম গন্তব্য মালদ্বীপের রাজধানী মালে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। আগামী ...

‘এলডিসিগুলোকে আন্তর্জাতিক সহায়তা দেয়া প্রয়োজন’

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের সঠিক পথে ...

মেক্সিকোর প্যারেডে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীর সমন্বিত প্যারেড কন্টিনজেন্ট

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

 বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সোলাইমানের নেতৃত্বে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত বাংলাদেশ ...

প্রবাসী কল্যাণ ভবনে ভিড়

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিএনপিই দেশকে মগের মুল্লুকে রূপান্তর করেছিল- ওবায়দুল কাদের

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নিয়মিত অসত্য বক্তব্য উপস্থাপনকে রেওয়াজে পরিণত করেছে বিএনপি। ...



দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত



আজিমপুর মাতৃসদনে কেনাকাটায় দুর্নীতি

৭ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট অনুমোদন

DMCA.com Protection Status