বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার

শিক্ষাঙ্গন (১ মাস আগে) জুন ২২, ২০২১, মঙ্গলবার, ৬:৪৮ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৭:০১ অপরাহ্ন

চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পর পরীক্ষার নতুন তারিখ ঘোষণা করা হবে।

মঙ্গলবার বুয়েটের একাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকে ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ভার্চুয়াল এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার। পরীক্ষাগুলো ৩০শে জুন, ১লা জুলাই ও ১০ই জুলাই হবার কথা ছিলো। ১১ই মের পর দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষা স্থগিত করল বুয়েট।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আবুল কাসেম

২০২১-০৬-২২ ০৬:৫১:০২

অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্লাস, শ্রেণি পরীক্ষা, পাবলিক পরীক্ষা, এবং আন্ডার গ্র্যাজুয়েট ভর্তি পরীক্ষার সঙ্গে করোনা মহামারির রোদ-বৃষ্টি, কানামাছি বা লুকোচুরির একটা নিবিড় সম্পর্ক গড়ে ওঠেছে। যারা এতোদিন বলে আসছেন যে, বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার সঙ্গে ছাত্র ছাত্রীদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া নিয়ে আন্দোলনের আশঙ্কা রয়েছে মনে হচ্ছে, তাদের কথা একেবারে উড়িয়ে দেয়ার মতো নয়। কারণ, দেখা গেছে ভর্তি পরীক্ষা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়টা যখনি সামনে আসে বা দাবিটা যখনি জোরদার হয় তখনি করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে যায়। এটা মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের শিক্ষার্থীদের এবং অভিভাবকদের ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। যাদের ছেলে মেয়েরা বিদেশে পড়াশোনা করে তাদের ভাগ্য সুপ্রসন্ন। দেশের অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা ও বৈষম্য তাদের স্পর্শ করেনা। মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে তেমন একটা নামেনা বিধায় কিনা জানিনা, তাদের ভর্তি পরীক্ষা সুন্দরভাবে গত এপ্রিলের ২ তারিখে নেয়া হয়েছে। প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাও যথারীতি চলছে। সেখানেও আন্দোলনের ছোঁয়া লাগেনা। ঢাবি, বুয়েট, গুচ্ছ ইঞ্জিনিয়ারিং, গুচ্ছ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ করোনার সঙ্গে তাল মিলিয়ে একবার নির্ধারণ হয়, আবার পিছায়। পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, গত বছরের মার্চ মাস থেকে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতি বাড়তে বাড়তে অব্যাহত থাকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সেপ্টেম্বর মাস থেকে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা কমতে শুরু করে। ২০২১ সালে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে এসে মনে হয়েছে দেশ থেকে করোনার বিদায়ের পথে। ৪ফেব্রুয়ারী '২১, দৈনিক ইত্তেফাক খবরের শিরোনাম লিখেছে, 'করোনা মুক্তির পথে বাংলাদেশ'। তখন দেশের হাসপাতালগুলো প্রায় করোনা রোগী শূন্য হয়ে পড়ে। গত ১৭ এপ্রিল দৈনিক যুগান্তর খবর প্রকাশ করে এভাবেঃ "দেশে করোনা সংক্রমণের গত ১৪ মাসের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত বছরের মার্চ মাসে (২০২০ সালের মার্চ) শনাক্ত হন ৫১ জন এবং মৃত্যু হয় ৫ জনের। একইভাবে এপ্রিল মাসে শনাক্ত হয় ৭ হাজার ৬১৬ জন এবং মৃত্যু হয় ১৬৩ জনের। মে মাসে শনাক্ত হয় ৩৯ হাজার ৪৮৬ জন এবং মৃত্যু হয় ৪৮২ জনের। জুন মাসে সর্বোচ্চ শনাক্ত হয় ৯৮ হাজার ৩৩০ জন আর মৃত্যু হয় ১১৯৭ জনের। জুলাই মাসে শনাক্ত হন ৯২ হাজার ১৭৮ জন, মৃত্যু হয় ১২৬৪ জনের। এরপর আগস্ট থেকে শনাক্ত ও মৃত্যুহার কমতে শুরু করে। ওই মাসে শনাক্ত হয় ৭৫ হাজার ৩৩৫ জন এবং মৃত্যু হয় ১১৭০ জনের। সেপ্টেম্বরে শনাক্ত ৫০ হাজার ৪৮৩ জন এবং মৃত্যু ৯৭০ জন; অক্টোবরে শনাক্ত ৪৪ হাজার ২০৫ এবং মৃত্যু ৬৭২ জন; নভেম্বরে শনাক্ত ৫৭ হাজার ২৪৮ জন এবং মৃত্যু ৭২১ জন; ডিসেম্বরে শনাক্ত ৪৮ হাজার ৫৭৮ জন এবং মৃত্যু ৯১৫ জন। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে শনাক্ত ও মৃত্যুহার অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। ওই মাসে শনাক্ত হয় ২১ হাজার ৬২৯ জন এবং মৃত্যু হয় ৫৬৮ জনের; ফেব্রুয়ারিতে শনাক্ত হয় ১১ হাজার ৭৭ জন এবং মৃত্যু হয় ২৮১ জনের। কিন্তু চলতি মার্চে দেশের সবার মধ্যে ঢিলেঢালাভাব লক্ষ করা যায়। এতে শনাক্ত ও মৃত্যু আবার বাড়তে শুরু করে। যার ফলে মার্চে শনাক্ত ৬৫ হাজার ৭৯ জন এবং মৃত্যু হয় ৬৩৮ জনের। আর এপ্রিলে ১৬ দিনেই আগের সব রেকর্ড ছাপিয়ে শনাক্ত এক লাখ ৪৮৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১১৩৬ জনের।" করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় প্রি-প্রাইমারী থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয় ২০২০ সালের ১৮ মার্চ থেকে। এরপর এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে দেখা দেয় অনিশ্চয়তা। সংক্রমণ যখন প্রায় পুরোপুরি নিয়ন্ত্রনের দিকে, ২০২০ সালের ৭অক্টোবর শিক্ষা মন্ত্রী ঘোষণা করেন, এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হবেনা। সবাইকে অটোপাশ দিয়ে ফল প্রকাশ করা হয় ২০২১ এর ৩০ জানুয়ারি। *করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রিত থাকা অবস্থায়ও এইচএসসি পরীক্ষা বাদ দেয়া হয়েছে।* আবার ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে দেখা গেলো সেই রোদ-বৃষ্টির খেলা। সাহস করে নাকি আন্দোলনের আশঙ্কা না থাকায় জানিনা, মার্চ মাসের ৫ ও ১৯ তারিখে যথাক্রমে MIST ও IUT এবং এপ্রিল মাসের ২তারিখে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। কিন্তু, কর্তৃপক্ষ সদিচ্ছার পরিচয় দিলে বিগত বছরের আগষ্ট থেকে চলতি বছরের এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে এইচএসসি পরীক্ষা এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করা অসম্ভব ছিলোনা। ৮ মার্চে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ১৫ এপ্রিলে বুয়েট এবং এই দুই মাসে অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন আহ্বান করা হয়। এসময় রোদ-বৃষ্টির সেই পুরনো খেলার মতো হঠাৎ করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকে। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পেছানো হয়। নতুন তারিখ অনুযায়ী আগামী ৩০ জুন ও ১জুলাই বুয়েটের প্রাক-নির্বাচনী ও ১০ জুলাই চূড়ান্ত ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা। এই খবর করোনা ভাইরাসের কাছে সম্ভবত কেউ ফাঁস করে দিয়েছে কিনা! তাই এখন সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতি। নেমে আসলো লকডাউন। কিন্তু, গতবছর হঠাৎ করোনার তাণ্ডবে যখন সবাই দিশেহারা তখন অনেকের অভিযোগ ছিলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সংক্রমণ ও মৃত্যুর সঠিক সংখ্যা প্রকাশ না করে প্রকৃত সংখ্যার চেয়ে কম করে দেখানো হয়। এখন সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন ঢাকা। অনিশ্চিত বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা। মন ভেঙে চুরমার হলো পরীক্ষার্থীদের। এদিকে আবেগি বয়সের অপরিপক্ক অবুঝ কিশোরগুলো নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে ভয়ংকর ইন্টারনেট মাদকে। সেই বেদনার বোঝা বইতে হবে গরীব মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত করোনায় বিপর্যস্ত অভিভাবকদের। উচ্চবিত্ত পরিবারের সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্ম গ্রহণ করা ছেলে মেয়েদের যারা বিদেশে পড়াশোনা করান নিয়মিত পরীক্ষা, ভর্তি পরীক্ষা, ক্লাস বন্ধ থাকলে তাঁদের চিন্তা নেই। তাই শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞগণ যেমন- এমিরেটস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, ড. আসিফ নজরুল, ড. সৈয়দ আব্দুল হামিদ, ড. আবদুল লতিফ মাসুম যখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে বলেন এবং শিক্ষক-কর্মচারী- অভিভাবক ফোরাম ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যখন মানব বন্ধন করেন তখন উচ্চবর্গের নিশ্চুপ থাকা এবং বিষয়টি পাশ কাটিয়ে যাওয়া স্বাভাবিক। এই মেঘ এই রোদ খেলার মতো করোনা সংক্রমণ বাড়তে ও কমতে থাকা এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা ও ভর্তি পরীক্ষা হওয়া না হওয়ার দোলাচল আর কতোদিন বা বছর চলতে থাকবে?  

আপনার মতামত দিন

শিক্ষাঙ্গন অন্যান্য খবর

পরীক্ষা নিতে না পারলে অ্যাসাইনমেন্ট ও সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ে মূল্যায়ন

পরিস্থিতির উন্নতি হলে নভেম্বরে এসএসসি, ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা

১৫ জুলাই ২০২১



শিক্ষাঙ্গন সর্বাধিক পঠিত



পরীক্ষা নিতে না পারলে অ্যাসাইনমেন্ট ও সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ে মূল্যায়ন

পরিস্থিতির উন্নতি হলে নভেম্বরে এসএসসি, ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা

DMCA.com Protection Status