কলকাতা কথকতা

‘কমেডিয়ান থেকে রাতারাতি ভিলেন হয়ে গেলাম’

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

কলকাতা কথকতা (১ মাস আগে) জুন ২২, ২০২১, মঙ্গলবার, ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৩:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনামে কথাটা কে বলছেন তার কোনও উল্লেখ নেই। কিন্তু, যে কোনও পাঠকের বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয় যে উপরের বক্তব্যটি কাঞ্চন মল্লিকের। উত্তরপাড়ার বিধায়ক, অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিকের ফ্যান ছড়িয়ে আছে ভারত, বাংলাদেশ সর্বত্র। বাংলাদেশের ফ্যানদের উদ্দেশে মানবজমিন-এর মারফত কাঞ্চন মল্লিকের অনুরোধ, দয়া করে বইয়ের প্রচ্ছদ দেখে বইটি সম্পর্কে ধারণা করে নেবেন না। কাঞ্চন মল্লিক সম্পর্কে ইন্ডাস্ট্রিতে খোঁজ নিন। ইন্ডাস্ট্রি বলে দেবে, কাঞ্চন মেয়েদের প্রতি কি ব্যবহার করে? কিন্তু এই ইন্ডাস্ট্রিতেই তো গুঞ্জন, কৃষ্ণকলি ছবির ভিলেন শ্রীময়ী চট্টরাজের সঙ্গে কাঞ্চনের পরকীয়া নিয়ে? কাঞ্চন বলছেন, ইন্ডাস্ট্রির কিছু মানুষ আমাকে রাতারাতি কমেডিয়ান থেকে ভিলেন বানিয়ে দিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে কি করে মুখ দেখাবো। ওঁরা আমাকে একটা বড় দায়িত্ব দিয়েছেন।
কাঞ্চনের পাল্টা প্রশ্ন, যারা আমাকে ভিলেনের আসনে বসাচ্ছেন তারা একবারও খোঁজ নিয়েছেন কি, কেন আমার স্ত্রী পিঙ্কি ব্যানার্জি আট বছর ছেলেকে নিয়ে আলাদা থাকেন। তারা জানেন কি আমি এখন একা বাড়িতে বসে কাঁদছি। কাউকে মুখ দেখাতে পারছি না। কাল যে বন্ধু ছিল আজ সে মুখ ঘুরিয়ে চলে যাচ্ছে।  কাঞ্চন মল্লিক-শ্রীময়ী চট্টরাজ-পিঙ্কি ব্যানার্জির ত্রিমুখী সম্পর্ক এখন বস্তির কলতলার ঝগড়ায় পরিণত হয়েছে। পিঙ্কির নামে কাঞ্চন চেতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন নিগ্রহের। শ্রীময়ী চট্টরাজ একটি অডিও বার্তায় জানিয়েছেন, পিঙ্কি ব্যানার্জি আজ আমার সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতার কথা অস্বীকার  করতে পারেন। কিন্তু অস্বীকার করতে পারেন কি ছোট্ট অসুর জন্মদিনে আমার কেক কিনে দেয়ার কথা? আমার সাইকেল উপহার দেয়ার কথা? কিংবা দুই পরিবারের একসঙ্গে দার্জিলিং বেড়াতো যাওয়ার পরিকল্পনার কথা? ওঁরা একসঙ্গে থাকতেন না। সেই সুযোগ নিয়ে আমি কাঞ্চন মল্লিকের সঙ্গে সম্পর্ক গড়তে যাব এমন মানসিকতা আমার নয়। তিনি আমার গুরু। গুরু-শিষ্যের মধ্যে যে সম্পর্ক থাকে আমাদের তাই আছে। সেটাই বোঝাতে গিয়েছিলাম পিঙ্কি দি-কে। উনি এটা নিয়েই থানায় নিগ্রহের অভিযোগ করলেন। পিঙ্কি ব্যানার্জি পাল্টা বলছেন, গাড়ির দরজা আটকে কাঞ্চন আর শ্রীময়ী যেভাবে দাপাদাপি করছিল সেটা নিগ্রহ ছাড়া আর কিছু নয়। আমার আট বছরের ছেলে পর্যন্ত থরথর করে কাঁপছিলো। ও কি বলেছে জানেন, মাম্মা, তুমি বাবা এলে আর দরজা খুলো না। বাবা তোমাকে মারবে। বাইশ দিনের ছেলেকে নিয়ে বাপের বাড়িতে চলে আসার কথা স্বীকার করে পিঙ্কি বলেন,  অনেক কারণ ছিল চলে আসার। আর শ্রীময়ী আমার সঙ্গে ওর সম্পর্কের কথা বলছে? বার তিনেকের বেশিতো ওর সঙ্গে দেখাই হয়নি আমার। কাঞ্চন মল্লিক-শ্রীময়ী চট্টরাজ-পিঙ্কি ব্যানার্জির সোপ অপেরার নিত্যনতুন পর্ব দেখছেন দর্শকরা। আজ কোন পর্বের যবনিকা ওঠে তা দেখার অপেক্ষায় তাঁরা।

আপনার মতামত দিন

কলকাতা কথকতা অন্যান্য খবর



কলকাতা কথকতা সর্বাধিক পঠিত



DMCA.com Protection Status