সবাই বলছে দিবে কিন্তু টিকা তো হাতে আসছে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক রিপোর্টার

অনলাইন (১ সপ্তাহ আগে) জুন ১০, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩:৫১ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৩২ পূর্বাহ্ন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশে   করোনা ভাইরাসের অক্সফোর্ড -অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজের টিকার ঘাটতি পূরণে বিভিন্ন দেশকে টিকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। সবাই বলছে টিকা দিবে কিন্তু কবে দিবে সেটা বলছে না। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূতের কাছে ‌ঔষধ সামগ্রী হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মার ওই অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার অনেক টিকা আছে জেনে সঙ্গে সঙ্গে তাদের অনুরোধ করলাম। পরে জানা গেল, করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা কম বলে যে দেশগুলোতে টিকা দেয়া হবে তা অগ্ৰাধিকারের তালিকায় নেই। পরে অবশ্য আমরা জেনেছি আমাদের কিছু অ্যাস্ট্রাজেনেকা দিবে। এছাড়া কোভ্যাক্স থেকেও কিছু টিকা পাওয়ার আশ্বাস পেয়েছি, কিন্তু কবে পাবো সেটা বলেনি। তবে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে টিকা পাওয়ার ব্যাপারে আমরা খুবই আশাবাদী।


প্রসঙ্গত যুক্তরাষ্ট্র কোভ্যাক্সের আওতায় বিভিন্ন দেশে যে টিকা দিচ্ছে, তাতে অগ্ৰাধিকার তালিকায় আছে বাংলাদেশ।  খুব শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রের উপহারের এ টিকা বাংলাদেশ আসবে বলে জানিয়েছেন ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার।

করোনার টিকা সার্বজনীন করার ওপর গুরুত্ব দিয়ে ড. মোমেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রথম থেকে বলে আসছেন টিকা যেন সার্বজনীন পণ্য এবং সব দেশের লোকের বৈষম্যহীনভাবে তা পাওয়া উচিত।  কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে মোট টিকার ৯৯ দশমিক শতাংশ আছে ধনী দেশের কাছে এবং মাত্র শূন্য দশমিক তিন শতাংশ গরীব দেশগুলোর কাছে। অনেকে টিকার জন্য হাহাকার করছে। অস্ট্রেলিয়ার ২৫ মিলিয়ন লোকের জন্য ৯৩ দশমিক আট মিলিয়ন টিকা মজুত থাকার রিপোর্ট পেয়েছেন দাবি করে মন্ত্রী বলেন, আমরা তাদের কাছেও টিকা চেয়েছি। তারাও বলেছে দিবে। কিন্তু কবে দিবে সেটাই দেখার বিষয়।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

rst

২০২১-০৬-১০ ০৭:৩০:৩৬

এমনটা নয়তো যে ওরা বুজে গেছে আপনারা জনগন আর দেশের জন্য কত বড় বাটপার? আর ওরা একটু বুজিয়ে দিতে চায় ভারততো তা দেখিয়ে দিয়েছে!!!!!!

দয়াল মাসুদ

২০২১-০৬-১০ ০৬:২৩:০৪

কথা দিয়ে কথা না রাখার ক্ষেত্রে ভারতত যে মুনাফেক, সেটি চির সত‍্য জেনেও সেই ভারতের উপরই ডিপেন্ড করে এদেশের এদেশের কোটি কোটি মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিলেন জনাব! ভুলে যাবেন না,মানুষের জীবন নিয়ে খেলা করার কোন অধিকার আপনাদের সহ কারোরই নেই। ভারতের কথা বিশ্বাস করে সহজ বিষয়টিকে জটিল করে ফেলে সমস্ত বাংলাদেশের মানুষকে স্বাস্থ্য ঝুঁকির মাঝে ফেলে দিলেন স্যার? ইতিহাস আপনাদের ক্ষমা করবে না । ভারতের তোষামোদি করতে যেয়ে সমস্ত জাতিকে ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন!!!

Anisur rahman

২০২১-০৬-১০ ০৬:১৭:২৪

Dear sir You look worried, what's the matter? We understand your situation. Please don't worry. As husband, I am worried about my wife's health. I will try my level best to do for her betterment. It's my responsibility as well as obligations. Dear sir, I remembered, someone told us about special relations between Bangladesh and India like ---------. So please don't worry, if you worried, we the people get more nervous .

salim

২০২১-০৬-১০ ১৮:৪৯:০৯

শুরুতে যখন সবাই টিকা সরবরাহ করতে চেয়েছিল, তখন শুধু ভারত থেকে টিকা আনার জন্য অন্যদের প্রস্তাবের গুরুত্ব দেন নাই, এরপরে যখন ভারত টিকা দিতে না পারায় চিনের সাথে করা চুক্তি গোপন রাখার শর্তে টিকা পাওয়ার একটা অবস্থা তৈরী হয়েছিল, সেইটাও হেলায় হারিয়েছেন। এখন এসে অন্যদের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছেন। লজ্জা করে না?

Md. Abbas Uddin

২০২১-০৬-১০ ১৭:৪৪:৪২

লকডাউন ঘোষণা মানেই জনগণ মনে করে এখন থেকে মাস্ক পরতে হবে। তাই তারা মাস্ক পরা শুরু করে এবং করনা সংক্রমণ কমতে থাকে। আবার যখন করনা সংক্রমণ কমতে থাকে এবং মাস্ক পরার নজরদারিতে সরকার উদাসীনতা দেখায় তখন অজ্ঞ ও মুর্খ্য জনগণ মাস্ক পরা ছেড়ে দেয়। অতঃপর করনা আবার বৃদ্দি পেতে থাকে। এক্ষেত্রে করনা সংক্রমণ যতক্ষ না '০' লেভেল পর্যন্ত আসবে ততক্ষণ পর্যন্ত সকলকে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে দিতে হবে। করনা নিয়ন্ত্রণে 'মাস্ক' একটি নিয়ামক শক্তি হিসাবে যে কাজ করছে তাহা বৈজ্ঞানিকগন্ব স্বীকার করছেন।

সুষমা

২০২১-০৬-১০ ০৪:৪২:৫৬

আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় শিক্ষক বলতেন যে নিরাশ হতে নেই।আশা রাখতে হবে আর পরিকল্পনা করে সেই মত এগোতে হবে।সামনাসামনি অনেক হিসেব পাল্টেও যায় অনেক সময়।

সুষমা

২০২১-০৬-১০ ০৪:৩৭:৪২

আমি কিন্তু আশাবাদী।কারণ ভার্চুয়ালী যা সম্ভব নয় তা কিন্তু শারীরিকভাবে উপস্হিতিতে সম্ভব।শুধু কৌশলী হতে হবে আমাদের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়কে।কারণ বিচক্ষণ ব্যক্তিত্ব না হলে উঁনি নিশ্চয়ই এই আসনে অধিষ্ঠিত হতেন না আর "না" বলে কোনো শব্দ নাই।

nasir uddin

২০২১-০৬-১০ ১৭:২৩:৫১

We deliberately hide our Covid fatalities. And hence, we are paying for it.

Md. Abbas Uddin

২০২১-০৬-১০ ১৭:১৩:১১

শুধু টিকা দিয়েই করনা নিয়ন্ত্রন করা যাবে না। টিকায় এন্টিবডি তইরী হলেও তাহা দীর্ঘ মেয়াদী কিনা তাহা এখনো নিশ্চিত নয়। তাছাড়া টিকাও এখন সহজলভ্য নয় যে সকল মানুষকে টিকা দেয়া নিশ্চিত করা যাবে। তাই আগে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে বিশেষ করে সকল মানুষকে মাস্ক পরতে বাধ্য করুন। সারাবছর মাস্ক পরানো এবং শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে চলা ও হাত দোয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা বা আচরন পরিবর্তনের মাধ্যমেই লকডাউনকে বিদায় করা যাবে এবং আমরা অনেকটা পূর্বের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে পারব ইনশাআল্লাহ। অন্যথায় করনাকে এইভাবে জিইয়ে রেখে আমরা পারিবারিক, সামাজিক, শিক্ষা, কর্মস্থল কোন কিছুতেই পূর্বের মত স্বাভাবিক পরিবেশ আশা করতে পারি না। জনাব বদিউল আলম সাহেবের প্রতিষ্ঠান কর্তৃক করনায় সফল যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে সরকার তাহা ফলো করলে জাতি উপকৃত হবে। সময় নষ্ট করার আর সুযোগ নেই। দীর্গদিন ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জীবন আজ ধ্বংসের মুখে, অভিজ্ঞ ডাক্তারদের চেম্বার বন্ধ থাকাতে জটিল সমস্যা নিয়ে রোগীরা ডাক্তার দেখাতে পারছে না। করনায় কঠোর ব্যবস্থা না নিয়ে মনে হচ্ছে জাতিকে মেধাশূন্য করার চেষ্টা হচ্ছে। জরূরী ভিত্তিতে ঘনবসতিপূর্ন বাংলাদেশের বাস্তবতায় দেশের সকল মানুষকে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরার আওতায় আনতে হবে। এক্ষেত্রে পুলিশকে পুরোপুরি ক্ষমতা দিতে হবে। যাহারা মাস্ক পরবে না কিংবা পুলিশকে ফাঁকি দেয়ার জন্য মাস্ক নাকের নীচে, থুঁতনির নীচে এবং পকেটে রাখবে তাদের থেকে বড় অংকের (যেমনঃ ২০০০, ৩০০০, ৫০০০ টাকা) জরিমানা আদায় ও জেল দিতে হবে।

ভেসেল

২০২১-০৬-১০ ০৩:৫২:২৬

সহজ জিনিস কে জটিল করে ফেলে সমস্ত বাংলাদেশের মানুষকে স্বাস্থ্য ঝুঁকি র মাঝে ফেলে দিলেন স্যার । ইতিহাস আপনাদের ক্ষমা করবে না । ভারতের তোষামোদি করতে যেয়ে সমস্ত জাতিকে ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে দাঁড় করিয়ে দেয়া হয়েছে ।

Md. Abbas Uddin

২০২১-০৬-১০ ১৬:৩২:৫১

টীকায় কাজ হবে না, সকল মানুষকে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরার আওতায় আনতে কঠোর ব্যবস্থা নিন। যাহারা স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করবে বিশেষ করে নিয়মিতভাবে মাস্ক পরবে না তাদেরকে বড় অংকের (যেমনঃ ২০০০, ৩০০০, ৫০০০ টাকা) জরিমান ও জেল দেয়ার ব্যবস্থা করুন। এক্ষেত্রে ভ্রাম্যমাণ আদালত বাদ দিয়ে পুলিশকে পূর্ণ ক্ষমতা দিন। ইতিমধ্যে জাতির অনেক সময় নষ্ট হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাতে শিক্ষার্থীদের জীবন ধ্বংসের মুখে। অভিজ্ঞ ডাক্তারদের চেম্বার বন্ধ থাকাতে জটিল রোগের রোগীরা চিকিৎসা নিতে পারছে না।

রাহমান

২০২১-০৬-১০ ০৩:২৩:১৮

রক্তের সাথে রক্তের বেঈমানী স্ত্রীর সাথে স্বামীর। আপনাদের স্বামী আপনাদের সাথে বেঈমানী করছে। আপনারা জনগণের সঙ্গে ধুকাবাজি করছেন তাই

হাসানুল বান্না

২০২১-০৬-১০ ১৬:০৮:৫৭

আসি আসি বলে টীকা ফাঁকি দিয়েছে,

Shahab

২০২১-০৬-১০ ০৩:০৮:১৭

Blood relationship they are send only pending costumes clearance on benapole port. Tomorrow early morning you can start vaccine for ....

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

অস্পষ্টতা-

ইলিশ রপ্তানি বন্ধ না সচল?

২৩ জুন ২০২১

প্রসঙ্গ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন-

পশ্চিমা দুনিয়ার ফোকাসে পরিবর্তন, হতাশ ঢাকা

২২ জুন ২০২১

কবিতা

নিষ্ঠুর কোথাও না কোথাও

২২ জুন ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



কদমতলীতে পিতা-মাতা ও বোনকে হত্যা

মেহজাবিন ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

DMCA.com Protection Status