করোনাকে হালকাভাবে নেবেন না, নিজের খাদ্যাভ্যাসে বিশেষ নজর দিন

সেবন্তী ভট্টাচার্য

অনলাইন (১ সপ্তাহ আগে) জুন ১০, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:২২ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০১ অপরাহ্ন

প্রতীকী ছবি
কোভিড-১৯ কম-বেশি আমাদের প্রত্যেকের জীবন বদলে দিয়েছে। আমরা অনেক আপনজনকে হারিয়েছি, অনেকে আবার সেরে ওঠার পরও এই ভাইরাসের কবল থেকে পুরোপুরি মুক্ত হতে পারেননি। সেরকমই এক রোগীর কথা আজ আপনাদের জানাবো। ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়া থেকে লন্ডনে বাড়ি যাওয়ার পথে করোনা আক্রান্ত হয়ে স্বাদ এবং গন্ধ হারিয়ে ফেলেছিলেন বছর চুয়াল্লিশের অ্যামি মুলিনাক্স।  মাইগ্রেন, মাথা ঘোরা এবং অবিরাম ক্লান্তি কাটিয়ে উঠে দু'মাস পরে অ্যামি যখন রাস্তায় হাঁটতে বেরোন, তখন কিছুটা হেঁটেই ভীষণ ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন। এখন করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর ১৬ মাস কেটে গেছে। তার স্বাদ-গন্ধ ফিরে এলেও  এখনো সামান্য একটা বক্স প্যাকিং করতে গিয়ে রীতিমত হাঁপিয়ে ওঠেন অ্যামি। শুধু অ্যামি নয়, করোনা ভাইরাসকে অতিক্রমকারী অনেকেই এখনো তাদের পুরনো স্বাস্থ্য ফেরত পাননি।  যুক্তরাজ্যেই কয়েক হাজার করোনা ভাইরাস বহনকারী মানুষের টেস্ট রেজাল্ট নেগেটিভ আসার পরেও তারা ব্রেন ফগ, বুক ধড়ফড়ানি এবং কোনো না কোনো অঙ্গের স্থায়ী সমস্যায় ভুগছেন। অ্যামি জানাচ্ছেন, "২০২০ সালের জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়া থেকে লন্ডন ফিরে যাওয়ার পরে আমি আমার স্বাদ ও গন্ধের অনুভূতি হারাই।
মার্চ মাসে আমার সবচেয়ে খারাপ সময় গেছে। মাইগ্রেন, মাথা ঘোরা, পেট খারাপ, মন খারাপসহ ভীষণ ক্লান্তি অনুভব করেছি দিনের পর দিন। যদিও অনেকেই এই ভাইরাসের কবল থেকে মুক্তি পেয়েছেন, কিন্তু আমি এখনো এই মারণ ভাইরাসের কবল থেকে মুক্ত হতে পারিনি। অ্যামি জানান, একটি কারখানায় তিনি কাজ করতেন, কোভিডের পর পা ফুলে যাওয়ায় এবং শারীরিকভাবে ক্লান্তি অনুভব করায় কাজটি ছেড়ে দিতে হয়েছিল তাকে। এমনকি কোভিড সেরে যাবার পরেও কানের সমস্যা এবং ফুসকুড়ির মত একাধিক ব্যাধিতে তিনি জর্জরিত ছিলেন। যদিও সরকারী নির্দেশিকায় কিছু বলা হয়নি, তবুও অ্যামি এই অসুস্থতা কাটিয়ে উঠতে তার ডায়েটে বিশেষ নজর দিয়েছিলেন। খাবারে প্রতিদিন ভিটামিন ডি, ভিটামিন বি এবং প্রোবায়োটিক রাখতেন তিনি। যারা কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের উদ্দেশে অ্যামি জানান, সেরে ওঠার পরও ডায়েটে বিশেষ নজর দিতে হবে এবং লম্বা আরাম ভীষণ প্রয়োজন। বৃটিশ ডায়েটিক অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা সমর্থিত ডায়েট মেনে চলতেন অ্যামি, যা তাকে সেরে উঠতে প্রভূত সাহায্য করেছে। শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ রাখার জন্য সঠিক ডায়েট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলছেন সংস্থার অধ্যাপক মেরি হিকসন। তাই সেরে ওঠার পরও করোনাকে হালকা ভাবে নেবেন না।  নিজের খাদ্যাভ্যাসে বিশেষ নজর দিন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

কাজি

২০২১-০৬-০৯ ২২:০২:২৭

করোনা পরবর্তী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া গুলি ও ভয়ংকর। তাই কোন মতেই হাল্কা ভাবে নেওয়া উচিত নয়। যাতে আক্রান্ত না হওয়া যায় সেটাই উৎকৃষ্ট ।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

ক্যাপশন নিউজ

১৮ জুন ২০২১

শনাক্তের হার ১৮.৫৯

একদিনে আরও ৫৪ জনের মৃত্যু,শনাক্ত ৩৮৮৩

১৮ জুন ২০২১



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা মামলা

নাসির উদ্দিনসহ গ্রেপ্তার ৩

DMCA.com Protection Status