সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন (১ মাস আগে) মে ১৭, ২০২১, সোমবার, ১১:৫৮ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৯:২৮ পূর্বাহ্ন

সরকারি নথি চুরির অভিযোগে প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। মামলা নং-১৬। সোমবার রাতে ডিএমপির শাহবাগ থানায় মামলাটি করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ডাঃ মোঃ শিব্বির আহমেদ ওসমানী।
বিষয়টি নিশ্চিত করে ডিএমপির রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশীদ বলেন, বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামলা নেয়া হয়েছে।
মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন সোমবার বিকেল ২ টা ৫৫ মিনিটে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিবের একান্ত সচিবের দপ্তরে রোজিনা ইসলাম নামীয় একজন নারী প্রবেশ করেন। এ সময় একান্ত সচিব দাপ্তরিক কাজে সচিবের কক্ষে অবস্থান করছিলেন। উক্ত নারী দাপ্তরিক গুরুত্বপূর্ণ কাগজ-পত্র শরীরের বিভিন্ন স্থানে লুকোনো এবং মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ছবি তোলেন। এ সময় সচিবের দপ্তরে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য মো: মিজানুর রহমান খান দেখতে পান এবং তাকে বাধা প্রদান করেন এবং তিনি নির্ধারিত কর্মকর্তার অনুপস্থিতিতে কক্ষে কি করছেন মর্মে জানতে চান। এ সময় তিনি নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় প্রদান করেন। পরবর্তীতে অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগম, উপসচিব জাকিয়া পারভীন, সিনিয়র সহকারী সচিব শারমীন সুলতানা, সচিবের একান্ত সচিব মো: সাইফুল ইসলাম ভূঞা, সিনিয়র সহকারী সচিব মোসাদ্দেক মেহদী ইমাম, অফিস সহায়ক মো: মাহফুজুল ইসলাম, সোহরাব হোসেন সহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও স্টাফগণ ঘটনাস্থলে আসেন এবং অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগম তল্লাশি করে তার কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র এবং ডকুমেন্টসের ছবি সম্বলিত মোবাইল উদ্ধার করেন।
এতে প্রতীয়মান হয় যে, ডকুমেন্টসগুলো তিনি চুরি করে নিয়ে যাচ্ছিলেন।এ সময় সচিবালয়ের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ কর্মকর্তার নেতৃত্বে শাহবাগ থানার মহিলা পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে তাকে জিম্মায় নেন। এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, বর্তমানে বিভিন্ন দেশের সাথে বাংলাদেশের ভ্যাকসিন ক্রয়/সংগ্রহ সংক্রান্ত নেগোসিয়েশন চলমান রয়েছে এবং খসড়া সমঝোতা স্মারক ও নন-ডিসক্লোজার এগ্রিমেন্ট প্রণয়ন কাজ চলমান রয়েছে। সমঝোতা স্মারক নিয়ে পক্ষদ্বয়ের মাঝে প্রতিনিয়ত পত্র এবং ই-মেইলের মাধ্যমে যোগাযোগ হচ্ছে, যেখানে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সন্নিবেশিত রয়েছে। উক্ত নারী যেসকল নথিপত্রের ছবি তুলছিলেন তার মধ্যে উল্লিখিত গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রও ছিলো। এসকল তথ্য জনসমক্ষে প্রচার হলে সংশ্লিষ্ট দেশসমূহের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যাওয়ার অশঙ্কা রয়েছে। উল্লিখিত কাগজপত্রসমূহ গুরুত্বপূর্ণ বিধায় মন্ত্রণালয়ে সংরক্ষিত আছে, যা পরবর্তীতে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রদর্শন করা হবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Shajahan sazu

২০২১-০৫-১৮ ০৭:০৪:০৬

স্বাস্থ্য খাতের সীমাহিন দুর্নীতির রিপোর্ট প্রকাশ থেকে বিরত রাখতে এহেন মিথ্যা অভিযোগে সাংবাদিককে আটক, এটা একজন দুধের শিশুও বুঝেছে ৷ রিমান্ড না মঞ্জুরের মাধ্যমে তেমনি বুঝেছেন বিচারক ৷ নিঃশর্ত মুক্তি চাই ৷

আনিস উল হক

২০২১-০৫-১৭ ১৯:২৭:২৯

সেই কক্ষে তো ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা থাকার কথা।সেখানে তো ঘটনার সব তথ্যই রয়েছে।

কালাম ফয়েজী

২০২১-০৫-১৮ ০৬:১৪:৫৪

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তো এমনিতেই ডুবে আছে। সাংবাদিক হেনস্তা করে কি একে ভাসানো যাবে?

দেশপ্রেমিক

২০২১-০৫-১৭ ১৩:৪৭:২২

মিথ্যাবাদী বেঈমানের দল, আসল ঘটনা হলো এই সাংবাদিক স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গলার কাটা হয়ে গেছে সেইজন্য এই চক্রান্ত, কোন পাগলে ও বিশ্বাস করবেনা যে একটা উপসচিবের রুমে কেউ গোপনে প্রবেশ করতে পারবে,৷ তবে হ্যাঁ এটা ও সাংবাদিকদের জন্য অশ্বনি সংকেত,

Md. Rashid

২০২১-০৫-১৮ ০০:৫৪:৫৫

Coming soon : New Drama

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



কদমতলীতে পিতা-মাতা ও বোনকে হত্যা

মেহজাবিন ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

DMCA.com Protection Status